স্কুলের বিরুদ্ধে 'যুদ্ধাপরাধের' অভিযোগ আনলো ১১ বছরের ছাত্রী

A picture tweeted by Mason Cross showing his daughter's school feedback form ছবির কপিরাইট Twitter/MasonCross
Image caption স্কুলের ফর্মে লেখা আভা বেলের মন্তব্য। এটি টুইটারে শেয়ার করেন তার তাঁর বাবা।

১১ বছরের এক স্কুল ছাত্রী তার স্কুলে শাস্তি দানের ব্যবস্থাকে যুদ্ধাপরাধের সঙ্গে তুলনার পর সোশ্যাল মিডিয়ায় এ নিয়ে বিরাট শোরগোল পড়ে গেছে।

তাঁর বাবা গ্যাভিন বেল, যিনি লেখক ম্যাসন ক্রস নামে লেখালেখি করেন, এটি টুইটারে শেয়ার করেছিলেন।

আভা বেল স্কুল সম্পর্কে এই মন্তব্য করে স্কুলের এক ফর্মে। সেখানে জানতে চাওয়া হয়েছিল তার শিক্ষকের কোন কাজটি আরও ভালোভাবে করা উচিত।

আভা বেল তখন সেখানে লিখেছে একজনের অপরাধের জন্য পুরো ক্লাশকে শাস্তি দেয়া বন্ধ করা উচিত। কারণ অন্য যারা কোন অপরাধই করেনি, তাদের জন্য এটা ন্যায্য নয়। আভা বেল সবাইকে শাস্তি দেয়ার এই বিধানকে জেনেভা কনভেনশনের বরাত দিয়ে যুদ্ধাপরাধের সঙ্গেও তুলনা করে।

এক ঘটনার পর গ্যাভিন বেল টুইটারে তাঁর মেয়ের এই মন্তব্য পোষ্ট করে বলেন, "বুঝতে পারছি না তাকে আমি শাস্তি দেব না আইসক্রিম কিনে দেব।"

টুইটারে পোষ্টটিতে এ পর্যন্ত চার লক্ষের বেশি লাইক পড়েছে।

গ্যাভিন বেল অবশ্য জানিয়েছেন, তার মেয়ে তার শিক্ষককে খুবই পছন্দ করে। শুধু তার আপত্তি স্কুলে যে ধরণের শাস্তির ব্যবস্থা চালু আছে সে ব্যাপারে।

তবে টুইটারে বেশিরভাগ মানুষ গ্যাভিন বেলকে পরামর্শ দিয়েছেন, তিনি যেন তার মেয়েকে শাস্তি না দিয়ে বরং আইসক্রীম কিনে দেন।

একজন এমনকি দরকার হলে তাকে এক বছর ধরে আইসক্রীম কিনে দেয়ার জন্য 'ক্রাউডফান্ডিং' এর মাধ্যমে অর্থ জোগাড় করার কথা বলেছেন!

তবে গ্যাভিন বেল অবশ্য ইতোমধ্যে মেয়েকে আইসক্রীম কিনে দিয়েছেন, আইসক্রীম হাতে তার ছবিও টুইটারে পোস্ট করেছেন।

বিবিসি বাংলায় আরো পড়ুন:

ভাস্কর্য সরানো সম্পর্কে যা বললেন মৃণাল হক

সাভারে জঙ্গী আস্তানায় অভিযান : কি বলছে পুলিশ

কবুতরের পিঠে ব্যাগ বেঁধে মাদক পাচার!

ছবির কপিরাইট Twitter/MasonCross
Image caption আইসক্রীম হাতে আভা বেল