কবুতরের পিঠে ব্যাগ বেঁধে মাদক পাচার কুয়েতে

  • ২৭ মে ২০১৭
ছবির কপিরাইট আল-রাই
Image caption কবুতরের পিঠে বাঁধা ব্যাগে মাদক ট্যাবলেট

কবুতরের পিঠে আটকানো ব্যাগে ভরে মাদক পাচারের এক অভিনব ঘটনা ধরেছেন কুয়েতের শুল্ক কর্মকর্তারা ।

কুয়েতি সংবাদপত্র আল-রাই জানিয়েছে, কবুতরটির পিঠে আটকানো একটি ছোট্ট কাপড়ের ব্যাগে ১৭৮টি কেটামাইন ট্যাবলেট পাওয়া গেছে। এটি এক ধরণের চেতনানাশক ট্যাবলেট - যা অবৈধ 'পার্টি ড্রাগ' হিসেবে ব্যবহৃত হয়।

ইরাক-কুয়েত সীমান্তের কাছে আবদালি শহরের কাস্টমস ভবনের কাছে কবুতরটি ধরা পড়ে।

একজন কর্মকর্তা বিবিসিকে জানিয়েছেন, শুল্ক বিভাগের লোকেরা আগেই জানতেন যে মাদক চোরাপাচারের কাজে কবুতর ব্যবহৃত হচ্ছে - কিন্তু এর একটা দৃষ্টান্ত ধরা পড়লো এই প্রথম।

বিবিসি বাংলায় আরো পড়ুন:

ভাস্কর্য সরানো সম্পর্কে যা বললেন মৃণাল হক

সাভারে জঙ্গী আস্তানায় অভিযান : কি বলছে পুলিশ

ছবির কপিরাইট আল-রাই
Image caption ইরাক -কুয়েত সীমান্তের কাছে কবুতরটি ধরা পড়ে

কোস্টা রিকায় ২০১৫ সালে একটি কারাগারের রক্ষীরা এমনি একটি কবুতর ধরেছিল, যার পিঠে বাঁধা থলিতে কোকেন এবং গাঁজা ভর্তি ছিল।

এর আগে ২০১১ সালে কলম্বিয়াতেও পুলিশ একটি কারাগারের বাইরে একটি কবুতর ধরে - যার গায়ে কোকেন ও গাঁজা ভর্তি ব্যাগ বাঁধা ছিল। কিন্তু ব্যাগের ওজন বেশি হওয়ায় কবুতরটি কারাগারের দেয়াল পার হবার মতো উঁচু দিয়ে উড়তে পারছিল না।

বার্তাবাহক হিসেবে কবুতরের ব্যবহার নতুন নয়। প্রাচীর রোমান যুগেও এর প্রচলন ছিল। কিছু কবুতরের এমন ক্ষমতা আছে যাতে তারা শত শত কিলোমিটার দূর থেকেও নিজের বাড়ি চিনে ফিরে আসতে পারে।