সমুদ্রে প্লাস্টিক দূষণ বন্ধে কাজ করার প্রতিশ্রুতি এশিয় দেশগুলোর

ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption এশিয় অঞ্চলের বিভিন্ন নদীর মাধ্যমে সবচেয়ে বেশি প্লাস্টিক দূষণ হয়।

সমুদ্রে প্লাস্টিক দূষণের জন্য দায়ী প্রধান কয়েকটি দেশ প্রতিশ্রুতি দিয়েছে তারা তাদের কর্মকাণ্ড পরিবর্তন করবে।

জাতিসংঘের সমুদ্র সম্মেলনে চীন, থাইল্যান্ড, ইন্দোনেশিয়া এবং ফিলিপিন্সের প্রতিনিধিরা বলেছেন, তারা সমুদ্র থেকে প্লাস্টিক দুরে রাখার জন্য কাজ করবেন।

কিছু কিছু প্রতিশ্রুতি এখনো আনুষ্ঠানিক রূপ পায়নি এবং পরিবেশবাদীরা বলছেন, এই উদ্যোগ যথেষ্ট নয়।

তবে জাতিসংঘের কর্মকর্তারা এ প্রতিশ্রুতির প্রশংসা করেছেন।

নিউ ইয়র্কের সম্মেলনে তারা বলছেন, এটি সমুদ্র দূষণের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের অবস্থানের একটি স্পষ্ট নির্দেশক।

জাতিসংঘের পরিবেশবিষয়ক পরিচালক, এরিক সলহাইম বিবিসিকে বলেন, "উৎসাহী হওয়ার মত বেশ কিছু বিষয় এসেছে এবং অংশগ্রহণকারী দেশগুলো সমুদ্রকে অনেক বেশি গুরুত্বের সাথে নিচ্ছে। যদিও আমাদের অনেক দুর যেতে হবে কারণ সমস্যাও অনেক বিশাল"।

ধারণা করা হয়, প্রতিবছর ৫০ লাখ থেকে ১ কোটি ৩০ লাখ টন প্লাস্টিক বর্জ্য সমুদ্রে প্রবেশ করে। এসব প্লাস্টিকের একটি বড় অংশ প্রবেশ করে মাছ এবং পাখির দেহে- এমনকি সমুদ্রের তলদেশেও প্রাণীর শরীরে প্লাস্টিকের টুকরো পাওয়া গেছে।

সাম্প্রতিক এক গবেষণায় বলা হচ্ছে, এসব প্লাস্টিকের একটি বড় অংশ সমুদ্র থেকে অনেক দুরে তৈরি হয়। বিশেষ করে যেসব দেশে ভোক্তা অর্থনীতির দ্রুত উন্নয়ন ঘটেছে কিন্তু বর্জ্য ব্যবস্থাপনার উন্নয়ন হয়নি সেখানে এই সমস্যা প্রকট।

জার্মানির একটি গবেষণা সংস্থা বলছে, বিশ্বের মাত্র ১০ টি নদীর মাধ্যমে ৭৫ শতাংশ স্থলে উৎপন্ন সমুদ্র দূষণ হয়, এসব নদীর অধিকাংশই এশিয়ায়।

এসব নদীতে যদি প্লাস্টিকের পরিমাণ ৫০ শতাংশ কমানো যায়, তবে সারাবিশ্বে প্লাস্টিক দূষণ ৩৭ শতাংশ কমবে।

সম্পর্কিত বিষয়