টিভিতে কত লোকে দেখবে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনাল?

ক্রিকেট ছবির কপিরাইট Clive Rose
Image caption ওভাল

আজ লন্ডনের ওভালে আইসিসি চ্যাম্পিয়নস ট্রফির ফাইনালে মুখোমুখি হচ্ছে ভারত আর পাকিস্তান - যে ম্যাচটি টিভিতে সারা দুনিয়ার কত লোক দেখবে, এটাও একটা জল্পনার বিষয় হয়ে উঠেছে।

এই ম্যাচটি কি ৫০ কোটি লোক টিভিতে দেখবে? নাকি ১০০ কোটি?

ক্রিকিনফো ওয়েবসাইটে টিম উইগমোর লিখছেন, এর আগেও একাধিক ম্যাচকে কেন্দ্র করে এমন জল্পনা হয়েছিল, তবে পরে দেখা গেছে প্রকৃত টিভি দর্শকসংখ্যা ছিল ধারণার চাইতে অনেক কম।

সবচেযে বেশি টিভি দর্শক হয়েছিল ২০১১ সালের বিশ্বকাপ ক্রিকেট ফাইনালের দিন - যাতে ভারত জিতেছিল, বলছে ক্রিকিনফোর দেয়া এক জরিপ। সেই খেলা টিভিতে দেখেছিল ৫৫ কোটি ৮০ লাখ লোক।

সেই বিশ্বকাপেই ভারত-পাকিস্তান সেমিফাইনাল ছিল সর্বোচ্চ টিভি দর্শকের তালিকায় দ্বিতীয়।

আইসিসির দেয়া তথ্য উদ্ধৃত করে ক্রিকিনফো বলছে, আজকের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি ফাইনাল দেখবে ৩২ কোটি ৪০ লাখ লোক - যা হবে তৃতীয় সর্বোচ্চ।

ক্রিকিনফো আরো জানাচ্ছে, কোন ক্রীড়ানুষ্ঠানের টিভি দর্শক ১০০ কোটি ছুঁয়েছিল একবারই , ২০০৮এর বেজিং অলিম্পিক উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের দিন।

যাই হোক আসলে দর্শক কত হয় তা তো জানা যাবে খেলা হবার পর। কারণ এই ফাইনাল দেখবেন শুধু ভারত আর পাকিস্তানের লোকেরা নয়। সারা পৃথিবীতে যেখানেই ক্রিকেট ভক্ত আছে, তারা প্রায় সবাই আজ দেখবেন এই দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর লড়াই।

ছবির কপিরাইট Gareth Copley
Image caption বিরাট কোহলি

এই প্রথম একটি ৫০ ওভারের বৈশ্বিক ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ফাইনালে উঠেছে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারত আর পাকিস্তান।

এর আগে ২০০৭ সালে ওয়ার্ল্ড টি২০-র ফাইনালে ভারত-পাকিস্তান মুখোমুখি হয়েছিল - যাতে জিতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ভারত।

১৯৭৮ সাল থেকে এ পর্যন্ত ভারত আর পাকিস্তান একদিনের ম্যাচ খেলেছে ১২৮টি । এর মধ্যে ভারত জিতেছে ৫২টি আর পাকিস্তান ৭২টি।

কিন্তু ২০০৭ থেকে এ পর্যন্ত ১০ বছরে ভারত ও পাকিস্তান যে ২১টি একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছে তার মধ্যে ১২টিই জিতেছে ভারত, আর ৮টি জিতেছে পাকিস্তান।

ভারত যে এবার চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে উঠতে পারে - এটা প্রায় সব বিশ্লেষকের বিবেচনাতেই ছিল। কিন্তু ফাইনালে যে তাকে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে খেলতে হবে - তা হয়তো কারোরই ভাবনায় ছিল না।

কিন্তু পাকিস্তান ভারতের কাছে প্রথম গ্রুপ ম্যাচে ১২৪ রানের হারলেও তার পর দক্ষিণ আফ্রিকা, শ্রীলংকা এবং সেমিফাইনালে ইংল্যান্ডকে হারিয়ে ফাইনালে উঠে সবাইকে চমকে দিয়েছে সবাইকে।

ছবির কপিরাইট Gareth Copley
Image caption শোয়েব মালিক

পাকিস্তানের রয়েছে মোহাম্মদ আমির, হাসান আলি, ও জুনায়েদ খানের সমন্বয়ে একটি আক্রমণাত্মক বোলিং লাইনআপ, এবং কয়েকজন আক্রমণাত্মক ব্যাটসম্যান।

অন্যদিকে ভারতের আছে বিরাট কোহলি, রোহিত শর্মা, শিখর ধাওয়ান এবং যুবরাজ সিং-এর মতো ম্যাচ-জেতানো ব্যাটসম্যান, আর ভুবনেশ্বর কুমার আর রবিচন্দ্রন অশ্বিনের মতো বোলার।

ভারতের অধিনায়ক বিরাট কোহলি বলেছেন, পাকিস্তান একটি প্রতিভাবান দল এবং তাদের দিনে তারা যে কোন দলকে হারাতে পারে।

তাই রোববারের ফাইনালের ফলাফল কি হবে তা নিয়ে পরিসংখ্যানভিত্তিক জল্পনার হয়তো শেষ নেই, কিন্তু ফল নির্ধারিত হবে মাঠে কে কেমন খেলে তা দিয়েই।

পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটার ও অধিনায়ক শহিদ আফ্রিদি ফাইনালের আগে বলেছেন, তিনি আশা করেন এটি যেন এমন একটি 'মহাকাব্যিক' খেলা হয় যা বহু বহু দিন লোকে মনে রাখবে।

এখন দেখার অপেক্ষা, সত্যি কেমন হয় ২০১৭র চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনাল।

আশার কথা, আবহাওয়ার পূর্বাভাস বলছে ইংল্যান্ডের বিখ্যাত বৃষ্টি আজ খেলায় বাধা হয়ে দাঁড়াবে না। লন্ডনে সারা দিন রোদ থাকবে, এবং থাকবে গরম।

দুপুর নাগাদ তাপমাত্রা হবে ৩০ ডিগ্রির মতো ।

আরো পড়ুন: মাশরাফি-সাকিবদের পর বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ কী?