পর্তুগালে দাবানলের ঘটনায় নিহত অন্তত ৫৭ জন

পর্তুগালে আগুন ছবির কপিরাইট EPA
Image caption বনে আগুন ছড়িয়ে সেটি রাস্তায় চলে আসছে

পর্তুগালের কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, কেন্দ্রীয় অঞ্চলের বনে আগুন লাগার ঘটনায় অন্তত ৫৭ জন নিহত হয়েছে। দাবানলের ঘটনায় আরো ৫৯ জন আহত হয়েছে।

নিহতের সংখ্যা আরো বাড়বে বলে আশঙ্কা করছে কর্তৃপক্ষ।

পর্তুগাল সরকার জানাচ্ছে, কোয়িমব্রা থেকে ৫০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পূর্বে পেদ্রোগাও গ্রান্দে জেলায় বনে আগুন লাগার পর গাড়ি দিয়ে পালানোর সময় দাবানলের কবলে পড়ে অনেকেই মারা যান।

প্রধানমন্ত্রী আন্তোনি কস্তা বলেছেন, "সাম্প্রতিক সময়ের ভয়াবহতম এই ট্র্যাজেডি প্রত্যক্ষ করলাম আমরা।"

দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানিয়েছেন, নিহতদের মধ্যে ৩০ জন তাদের গাড়ির ভেতরে বদ্ধ অবস্থায় আগুনে পুরে মারা যান। তিনজনের মৃত্যু হয়েছে ধোয়ায় দম বন্ধ হয়ে। এছাড়া গাড়ির বাইরে ১৭জনের মরদেহ পাওয়া গেছে।

বনে কী কারণে আগুন লাগলো সে বিষয়ে এখনো কিছু জানা যায়নি। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত আগুন নিয়ন্ত্রণ আসেনি।

পর্তুগালের সংবাদমাধ্যমে বলা হচ্ছে, আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে প্রায় ছয়শোর মতো দমকলকর্মী কাজ করছে।

আহতদের মধ্যে আট বছর বয়সী এক শিশুও রয়েছে, যাকে আগুনের কাছের একটি জায়গা থেকে উদ্ধার করে কর্মীরা।

ছয়জন দমলকর্মীও গুরুতর আহত হয়েছে, আর দুজন কর্মী নিখোঁজ বলে জানাচ্ছে পর্তুগালের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা।

আরো পড়ুন:

পড়ায় বাধা, স্বামীকে ‘তালাক’ দিলো কিশোরী

মির্জা ফখরুলের গাড়িবহরে 'হামলা'র অভিযোগ

রাঙ্গামাটির পরিস্থিতি ‘মহাবিপর্যয়কর’: জেলা প্রশাসক

‘আগুনে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য সহায়তা পর্যাপ্ত ছিলো না’

ছবির কপিরাইট EPA
Image caption বনের আগুন ছড়িয়ে পড়ার কারনে অনেক ঘরবাড়িও পুড়ে গেছে