ভেনেজুয়েলা: সুপ্রিম কোর্টে হেলিকপ্টার দিয়ে হামলা, সতর্কাবস্থায় সেনাবাহিনি

ছবির কপিরাইট Instagram
Image caption ওস্কার পেরেজ নামে এক পুলিশ অফিসার এই হামলার কৃতিত্ব দাবি করছে

ভেনেজুয়েলার সুপ্রিম কোর্টের ওপর হেলিকপ্টার থেকে বন্দুক ও গ্রেনেড হামলার পর দেশটির সেনাবাহিনিকে সতর্ক অবস্থায় রাখা হয়েছে।

প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাডুরু এই ঘটনাকে একটি সন্ত্রাসী হামলা বলে বর্ণনা করেছেন।

অনলাইনে পোস্ট করা ভিডিও ফুটেজে দেখা যায় রাজধানী কারাকাসের আকাশে হেলিকপ্টারটি চক্কর দিচ্ছে এবং এরপর বিস্ফোরণের শব্দ শোনা যাচ্ছে।

একজন পুলিশ কর্মকর্তা একটি পুলিশ হেলিকপ্টার ছিনতাই করে এই হামলা চালায় বলে মনে করা হচ্ছে।

ভেনেজুয়েলার নিরাপত্তা পরিস্থিতির যখন ক্রমশ অবনতি হচ্ছে, তার মধ্যেই এই ঘটনা ঘটলো।

ছবির কপিরাইট EPA
Image caption চাপের মুখে আছেন প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাডুরু

ছিনতাইকৃত হেলিকপ্টারটি প্রথমে কারাকাসের আকাশে কয়েকবার চক্কর দেয়। এরপর এটি সুপ্রিম কোর্ট ভবনের ওপর অন্তত দুটি গ্রেনেড ফেলে।

ওস্কার পেরেজ নামে এক পুলিশ অফিসার এই ঘটনার কৃতিত্ব দাবি করেছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করা এক ভিডিওতে ওস্কার পেরেজ দাবি করেছেন, সামরিক বাহিনি, পুলিশ এবং অসামরিক অনেক মানুষ তার সঙ্গে আছেন।

তিনি তাঁর ভাষায় ভেনেজুয়েলায় স্বৈরাচারী শাসনের বিরুদ্ধে সবাইকে রুখে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান।

ভেনেজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাডুরু গত কিছুদিন ধরেই বেশ রাজনৈতিক চাপের মুখে আছেন। প্রেসিডেন্ট মাডুরু এই ঘটনাকে সন্ত্রাসী হামলা বলে বর্ণনা করেছেন।

তিনি জানিয়েছেন, শান্তি বজায় রাখার জন্য সশস্ত্র বাহিনিকে 'সক্রিয়' করা হয়েছে।

এর আগে তিনি হুঁশিয়ারি দেন যে ভেনিজুয়েলার বিপ্লব যদি বিপন্ন হয় প্রয়োজনে অস্ত্র দিয়ে তা রক্ষা করা হবে।

তবে প্রেসিডেন্টের এই বার্তাকে দেশটির বিরোধী দলগুলো তাদের প্রতি হুমকি হিসেবে দেখছে।

গত তিন মাসে ভেনেজুয়েলায় সহিংস বিক্ষোভে অন্তত ৭০ জন নিহত হয়েছে।

সম্পর্কিত বিষয়