১৬৪ ধারায় ফরহাদ মজহারের জবানবন্দি রেকর্ড করা হবে: ডিবি

ফরহাদ মাজহারের ছবি ছবির কপিরাইট ফরহাদ মাজহারের ফেসবুক পেজ
Image caption ফরহাদ মজহারকে সোমবার ভোর থেকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না বলে জানিয়েছিল তার পরিবার। (ছবিটি ফরহাদ মাজহারের ফেসবুক পেজ থেকে নেয়া)

কবি, কলামিস্ট ফরহাদ মজহারকে বাংলাদেশের যশোর থেকে উদ্ধারের পর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ঢাকায় ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয় মঙ্গলবার সকালেই।

দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে গোয়েন্দা পুলিশের যুগ্ম কমিশনার আবদুল বাতেন বলেছেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মি: মজহার বলেছেন ওষুধ কিনতে বাসা থেকে বের হওয়ার পর তিনি অপহরণের শিকার হন।

"উনি বলেছেন সকালবেলা যখন ওষুধ কিনতে গেছেন তখন উনাকে কয়েকজন তুলে নিয়ে গেছে মাইক্রোতে করে। এরপর আবার নিজের মোবাইল থেকে পরিবারের কাছে ফোন দিয়ে বলেছেন ৩৫ লাখ টাকা সংগ্রহ করে অপহরণকারীদের দেয়ার জন্য"।

এ বিষয় থেকে তদন্ত করে দেখা হচ্ছে বলে জানান মি: বাতেন।

কিন্তু উদ্ধারের পর গতরাতে খুলনায় এক সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ বলেছিল যে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে মি: মজহার স্বেচ্ছায় বাড়ি ছেড়েছেন।

এ নিয়ে সাংবাদিকরা প্রশ্ন তুললে গোয়েন্দা পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন "কে কোথায় কী বলেছেন সেটা বিষয় নয়। এখন ১৬৪ ধারায় উনার বক্তব্য গ্রহণ করার জন্য আদালতে প্রেরণ করা হবে। তার জবানবন্দির ওপর ভিত্তি করে পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে"।

ফরহাদ মজহারের বক্তব্যের ওপরে বাকি তদন্ত কার্যক্রম চলবে বলে জানান আবদুল বাতেন।

ফরহাদ মজহারকে সোমবার ভোর থেকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না বলে জানিয়েছিল তার পরিবার।

ঢাকার শ্যামলীর নিজের বাসা থেকে ভোর পাঁচটার দিকে বের হয়ে যান ফরহাদ মজহার।

এরপর তার মোবাইল ফোন ব্যবহার করে একাধিকবার মুক্তিপণও দাবি করা হয়েছিল বলে পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়।

কবি, কলামিস্ট ফরহাদ মজহারকে বাংলাদেশের যশোর জেলার নোয়াপাড়ায় ঢাকাগামী একটি বাস থেকে উদ্ধার করা হয় গতকাল রাতে।

উদ্ধারের পর র‍্যাব জানায়, তাদের কাছে খবর ছিল ফরহাদ মজহার খুলনা এলাকাতেই রয়েছেন। সেই খবর অনুযায়ী তারা খুলনার বিভিন্ন এলাকায় তল্লাশি চালান।

র‍্যাবের একটি টহলদল নোয়াপাড়ার একটি বাস আটকে তল্লাশি করলে সেই বাস থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়।

এরপর মি: মজহারকে যশোরের অভয়নগর থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। আর আজ সকালে ঢাকার আদাবর থানায় নিয়ে আসার ঘন্টাখানেক পর তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়।

আরো পড়তে পারেন:

আরবদের হটিয়ে যেভাবে ইসরায়েল রাষ্ট্রের জন্ম হয়েছিল

মাথার খুলি দিয়ে নির্মিত ভবনের সন্ধান মিললো মেক্সিকোতে

জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে ট্রাম্পের অবস্থান পৃথিবীর ক্ষতি করবে: স্টিফেন হকিং

সম্পর্কিত বিষয়