"আমার বোরকা দেখতে কেমন": টুইটারে সৌদি ইমামকে মেয়েদের প্রশ্ন

ছবির কপিরাইট GCSHUTTER
Image caption সৌদি আরবে মেয়েদের আবায়া পরা বাধ্যতামূলক

সৌদি আরবের মহিলাদের সূচীকর্ম করা কাপড় পরতে এবং মেক-আপ না নিতে বলেছিলেন সেখানকার এক নামকরা ধর্মীয় নেতা। কিন্তু সৌদি মহিলারা তার আহ্বান অগ্রাহ্য করেছেন।

সৌদি ধর্মীয় নেতা মোহাম্মদ আলারাফে মহিলাদের এমব্রয়ডারি বা সূচিকর্ম করা 'আবায়া' বা বোরকা না পড়ার জন্য এই পরামর্শ দেন। সৌদি মহিলারা যে আবায়া পড়েন, তাতে মুখ, হাত এবং পা ছাড়া পুরো শরীর ঢাকা থাকে।

বিভিন্ন রঙের এবং হাল ফ্যাশনের অনেক আবায়া সৌদি আরবের মহিলাদের পরতে দেখা যায়।

ছবির কপিরাইট TWITTER
Image caption কারুকাজ করা হাল ফ্যাশনের বোরকার কদর বাড়ছে

কিন্তু মোহাম্মদ আলারাফে গত রবিবার টুইটারে এক পোস্টে বলেন, " হে কন্যারা, এমন আবায়া তোমরা কিনবে না, যেটাতে অনেক সাজ-সজ্জা আছে। এবং তোমাদের প্রতি অনুরোধ, কোন মেক-আপ ব্যবহার করো না।"

কিন্তু তাঁর এই ডাক অগ্রাহ্য করে উল্টো অনেক মহিলা তাদের আবায়া পরা ছবি টুইটারে পোস্ট করে জানতে চায়, তাদের কেমন লাগছে।

একজন মহিলা টুইটারে তাঁর আবায়া পরা ছবি পোস্ট করে জানতে চান, "শেখ, আমার আবায়া তোমার কেমন লাগছে? এর পরের বার আমি আরও রঙ ঝলমলে কারুকাজ করা আবায়া কিনবো।"

তবে মোহাম্মদ আলারাফে সৌদি আরবে বেশ জনপ্রিয়। তাঁর পোস্টটি রি-টুইট করা হয় ৩১ হাজার বার।

আরেকজন টুইট করেন, "আমি আমার চমৎকার খোলামেলা আবায়ার ছবি শেয়ার করতে চাই।"

মুসলিম ফ্যাশন ইন্ডাস্ট্রিতে এখন আবায়ার গুরুত্ব বাড়ছে। হ্যারডসের মতো নামকরা দোকানেও এখন আবায়া বিক্রি হয়।

কিন্তু সৌদি আরবে ধর্মীয় রক্ষণশীলরা একে ফ্যাশন হিসেবে দেখতে নারাজ।

আরো পড়ুন:

বিয়ে রুখতে নিজের হাত কাটলেন নবম শ্রেণীর বিথী

আরব তেল অবরোধ যেভাবে কাঁপিয়ে দিয়েছিল বিশ্ব

'সৌদি আরব উগ্র ইসলামী মতবাদ ছড়াচ্ছে '