জার্মান গানের স্কুলে বহু ছেলে যৌন নির্যাতনের শিকার

ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption জার্মানির রাজেন্সবার্গ ডমস্পাৎজেন

জার্মানির এক বিশ্বখ্যাত গানের স্কুলের ওপর চালানো এক তদন্তে দেখা গেছে, গত প্রায় ৫০ বছরে পাঁচশোরও বেশি শিক্ষার্থী বালকের ওপর শারীরিক কিংবা যৌন নির্যাতন চালানো হয়েছে।

এই ৫০ বছরের বেশিরভাগ সময়ই এই স্কুলটির ছেলেদের সমবেত-সঙ্গীতের দল বা 'কয়ার' চালাতেন জর্জ রাৎসিঙ্গার - যিনি সাবেক পোপ ১৬শ বেনেডিক্ট-এর ভাই।

জর্জ রাৎসিঙ্গার এসব নিপীড়নের অভিযোগের কথা অস্বীকার করে বলেছেন, তিনি এ ব্যাপারে কিছু জানেন না।

রাজেন্সবার্গ ডমস্পাটজেন নামের এই রোমান ক্যাথলিক স্কুলের সঙ্গীত দলটি ১০০০ বছরেরও বেশি পুরোনো।

রিপোর্টে বলা হয়, ১৯৪৫ থেকে ১৯৯০এর দশক পর্যন্ত অল্পবয়েসী ছেলেদের ওপর শারীরিক নির্যাতন এবং কোন কোন ক্ষেত্রে যৌন নিপীড়ন চালানো হয়েছে।

এর শিকার যারা হয়েছেন, তারা বলেছেন তাদের অভিজ্ঞতা ছিল 'নারকীয়, একটি কারাগার বা কনসেনট্রেশন ক্যাম্পের মতো।' মোট ৪৯ জন ক্যাথলিক চার্চ সদস্য এই নির্যাতন চালায়।

বিবিসি বাংলায় আরো পড়ুন:

ক্যাথলিক চার্চে যাজকদের হাতে শিশুদের যৌন নির্যাতনের কাহিনি

ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption উলরিখ ওয়েবার

তদন্ত পরিচালনাকারী উলরিখ ওয়েবার বলেছেন, তিনি ৬৭টি যৌন নিপীড়নের ঘটনা জানতে পেরেছেন।

তিনি বলেন, 'মুখ বন্ধ রাখার সংস্কৃতির আড়ালে' এসব ঘটনা ঘটেছে।

তিনি আরো বলেন. নির্যাতনকারীদের তিনি সনাক্ত করতে পেরেছেন, কিন্তু এসব ঘটনা এত আগে ঘটেছে যে তাদের বিরুদ্ধে এখন আর ফৌজদারি অভিযোগ আনা যাবে না।

এর আগে ২০১০ সালে এই কয়ারে ব্যাপক যৌন নির্যা্তন চালানোর অভিযোগ ওঠে। পরে ২০১৬ সালে এক রিপোর্টে বলা হয় এসময় ২৩১টি শিশু যৌননিপীড়নের শিকার হয়। শিকারদের এর আগে ক্ষতিপূরণ দেবার প্রস্তাবও দেয়া হয়েছিল।

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে অন্তত ১২টি দেশে ক্যাথলিক চার্চে যৌন নির্যাতনের ঘটনা নিয়ে বেশ কয়েকটি কেলেংকারি হয়। জাতিসংঘ এ নিয়ে ভ্যাটিকানের বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলে। বর্তমান পোপ নিজেও এ নিয়ে কথা বলেছেন।

আরো পড়ুন:

সোশ্যাল মিডিয়া 'তরুণদের মধ্যে উদ্বেগ বাড়াচ্ছে'

ভূমিকম্প প্রবণ স্থানে গভীর গর্ত খুঁড়ছে কেন ভারতীয়রা?

সম্পর্কিত বিষয়