লন্ডনে গিয়েও সংলাপে গেলোনা কেন আওয়ামী লীগ?

ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption বিএনপি বলছে এটি ছিলো হাউজ অব লর্ডসের একটি কমিটির উদ্যোগ কিন্তু আওয়ামী লীগ বলছে তারা জেনেছেন সংলাপ টি ছিলো ব্যক্তিগত উদ্যোগ

বাংলাদেশের মানবাধিকার পরিস্থিতি এবং রাজনৈতিক সংকট নিয়ে এক সংলাপ অনুষ্ঠানে যোগ দেয়ার জন্য লন্ডনে গিয়েও তাতে যোগ দেয়নি আওয়ামী লীগের একটি প্রতিনিধি দল।

কেন শেষ মূহুর্তে আওয়ামী লীগ বর্জন করেছিল, তার কারণ ব্যাখ্যা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একজন উপদেষ্টা ড. মসিউর রহমান বলেছেন, এটি ব্রিটিশ পার্লামেন্টের আয়োজিত কোন সংলাপ ছিল না জানতে পারার পরই- তারা সেটি বর্জন করেন।

মিস্টার রহমানের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধিদল এই অনুষ্ঠানে যোগ দিতে লন্ডনে যায়। দলটিতে আরও ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর আরেকজন উপদেষ্টা গওহর রিজভী ও সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডা: দিপু মনি।

বাংলাদেশ থেকে আসা বিএনপির একটি প্রতিনিধিদলও সেখানে অংশ নেয় এবং সে দলটির নেতৃত্বে ছিলেন দলটির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী।

গত মঙ্গলবার লন্ডনে হাউজ অব লর্ডসের সদস্য লর্ড অ্যালেক্সান্ডার কার্লাইলের আমন্ত্রণে কেন তারা শেষ পর্যন্ত সাড়া দেননি- এমন প্রশ্নের জবাবে মসিউর রহমান বলেন, " লন্ডনে এসে জানতে পারলাম যে কার্লাইলের এটা ব্যক্তিগত উদ্যোগ ছিলো, এটাই কারণ"।

তিনি বলেন যদি জয়েন্ট কমিটির উদ্যোগে হতো তাহলে তারা অংশ নিতেন।

Image caption আওয়ামী লীগ প্রতিনিধি দলের নেতা ড: মসিউর রহমান বলছেন শেষ মূহুর্তে তারা জানতে পারেন যে সংলাপটি ছিলো ব্যক্তিগত উদ্যোগ

এই সংলাপে বাংলাদেশের মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে কথাবার্তা হয়েছে এবং হিউম্যান রাইটস ওয়াচের মতো প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন, তাদের এড়াতেই কি আওয়ামী লীগ সে অনুষ্ঠানে যায়নি ?

এমন প্রশ্নের জবাবে মিস্টার রহমান বলেন "কোন ব্যক্তির আলোচনা তো প্রাসঙ্গিক নয় আমাদের জন্য, কমিটি সেই আলোচনা করতে পারে"।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি ও সামনের নির্বাচন নিয়েও আলোচনা হয়েছে এবং বিএনপি প্রতিনিধি দল বলেছে যে নির্বাচন শেখ হাসিনার অধীনে হলে তিনি তাতে প্রভাব বিস্তার করতে পারেন। এ বিষয়ে মসিউর রহমান বলেন সংবিধানেই বলা আছে নির্বাচন কিভাবে হবে।

Image caption বিএনপি প্রতিনিধি দলের নেতা আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী শেষ মূহুর্তে আওয়ামী লীগের সংলাপে না যাওয়ার সমালোচনা করেছেন

"নির্বাচনের সময় সব ক্ষমতা নির্বাচন কমিশনের কাছে যায়। তাই সংবিধানের বাইরে যাওয়ার কোন সুযোগ আছে বলে মনে হয়না।

ওদিকে লন্ডনে বিএনপির প্রতিনিধি দলের নেতা আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন হাউজ অব লর্ডসের ওই সেমিনারে আওয়ামী লীগের না থাকা রহস্যজনক।

যদিও মসিউর রহমান বলছেন সেটি হাউস অব লর্ডসের অনুষ্ঠান ছিলোনা, সেটি ছিলো ব্যক্তিগত উদ্যোগে আলোচনা সভা।

প্রসঙ্গত বাংলাদেশ বিষয়ক ওই সেমিনারের উদ্যোক্তা ছিলেন হাউজ অব লর্ডসের স্বতন্ত্র সদস্য অ্যালেক্সান্ডার চার্লস কারলাইল।

আরও পড়ুন টয়লেটে গিয়ে সিংহের হাতে প্রাণ হারাল কিশোরী

পৃথিবী দ্রুতই পরিণত হচ্ছে একটি 'প্লাস্টিকের তৈরি গ্রহে'