যুক্তরাষ্ট্রের সেনাবাহিনীতে তৃতীয় লিঙ্গের কোনো স্থান নেই: ডোনাল্ড ট্রাম্প

তৃতীয় লিঙ্গ ছবির কপিরাইট EPA

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, দেশটির সেনাবাহিনীতে তৃতীয় লিঙ্গের মানুষেরা কোনোভাবেই কাজ করতে পারবে না ।

ওবামা প্রশাসন গত বছর সেনাবাহিনীতে প্রকাশ্যেই তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের অন্তর্ভুক্ত করার নীতি নিয়েছিল।

এক টুইট বার্তায় তিনি বলেছেন, সামরিক বিশেষজ্ঞদের সাথে তিনি আলোচনা করেছেন এবং এ কারণে 'ডাক্তারি খরচ ও কাজে বিঘ্নও' ঘটছে।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের এমন পদক্ষেপে সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা প্রশাসনের নীতি উল্টে যাচ্ছে।

ট্রাম্প আমলে এসে আগের সরকারের সেই পরিকল্পনা ছয় মাসের জন্য স্থগিত করেছিলেন বর্তমান প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেমস ম্যাটিস।

আর এখন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বুধবার এক টুইটে তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদেরকে সেনাবাহিনীতে না নেওয়ার কথা বললেন।

মি: ট্রাম্প বলেছেন, "আমাদের সামরিক চূড়ান্ত লক্ষ্য থাকতে হবে বাহিনীকে যুদ্ধ জয়ের দিকে। সেদিকে দৃষ্টি রেখেই তাদের এগিয়ে যেতে হবে। তাদের ওপর বিপুল ডাক্তারি খরচের বোঝা চাপানো যায় না কিংবা তাদের কাজে কোনো ধরনের বিঘ্নও ঘটতে দেওয়া যায় না।"

এছাড়া কয়েকজন রিপাবলিকানও সামরিক বাহিনীতে তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের কাজ করার বিরোধিতা করেছেন।

মার্কিন সেনাবাহিনীতে তৃতীয় লিঙ্গের ব্যক্তিদের সম্পৃক্ততা নিয়ে গত বছর 'দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট র‌্যান্ড করপোরেশন' এর এক হিসাবে বলা হয়েছে, মার্কিন বাহিনীতে ১২ লাখ সক্রিয় সদস্যের মধ্যে ২ হাজার ৪৫০ জন তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ আছে।

মি: ট্রাম্পের সমালোচনাকারীরা বলছেন, নির্বাচনী প্রচারণাকালে যুক্তরাষ্ট্রে সমলিঙ্গের মানুষদের অধিকারের বিষয়ে সমর্থনের যে কথা বলেছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প , এখনকার এই সিদ্ধান্তে ব্যতিক্রম রূপই প্রকাশ পাচ্ছে।

তখন তিনি বলেছিলেন "আমি আপনাদের জন্য লড়াই করবো"।

বিবিসি বাংলায় আরো পড়ুন:

‘নেহরু ছাড়া ভারতে অন্য কোনো চিন্তাবিদ নেই না কি?’

'পানির নীচে রাস্তা ভালো', ট্রাফিকের সাইনবোর্ড

যুক্তরাজ্যে নিষিদ্ধ হবে পেট্রোল ও ডিজেলচালিত গাড়ি

স্বামীগৃহ হারাচ্ছেন মিয়ানমারের ধর্ষিতা রোহিঙ্গা নারীরা

সম্পর্কিত বিষয়