ভারতে আবারও বিক্ষোভের মুখে তসলিমা নাসরিন

তসলিমা নাসরিন দুই দশকের বেশি সময় ধরে নির্বাসিত রয়েছেন
Image caption তসলিমা নাসরিন দুই দশকের বেশি সময় ধরে নির্বাসিত রয়েছেন

ভারতে বসবাসকারী বাংলাদেশী লেখিকা তসলিমা নাসরিনকে স্থানীয় জনতার বিক্ষোভের মুখে মহারাষ্ট্রের আওরঙ্গাবাদ বিমানবন্দর থেকে শনিবার রাতে ফিরে যেতে হয়েছে।

আওরঙ্গাবাদের পুলিশ জানিয়েছে, লেখিকা তসলিমা নাসরিন শহরের একটি হোটেলে থাকার জন্য ঘরও বুক করেছিলেন - কিন্তু শনিবার সন্ধ্যায় মুম্বই থেকে আওরঙ্গাবাদ বিমানবন্দরে নামার পরই তিনি প্রবল বিক্ষোভের মুখে পড়েন।

অল ইন্ডিয়া মজলিস-ই-ইত্তেহাদুল মুসলিমিন (এআইএমআইএম) নামে একটি রাজনৈতিক সংগঠনের শত শত কর্মী বিমানবন্দরের বাইরে জড়ো হয়ে 'তসলিমা গো ব্যাক' শ্লোগান দিতে থাকেন।

তদের বক্তব্য ছিল, ইসলাম-বিরোধী লেখিকা তসলিমা নাসরিনকে কিছুতেই আওরঙ্গাবাদ শহরে পা রাখতে দেওয়া হবে না।

বুকের দুধ খাওয়ানোর ছবি দিয়ে বিতর্কে প্রেসিডেন্ট কন্যা

এই পরিস্থিতিতে পুলিশ তসলিমা নাসরিনকে বিমানবন্দরে বাইরে বেরোনোর অনুমতি দেয়নি।

শেষ পর্যন্ত এয়ারপোর্টেই বেশ কিছুক্ষণ অপেক্ষা করার পর তিনি পুলিশের পরামর্শ মেনেই ফিরতি বিমানে মুম্বই ফিরে যান বলে জানা গেছে।

এর আগে হায়দ্রাবাদ ও কলকাতাসহ ভারতের বিভিন্ন শহরেই তসলিমা নাসরিনকে বিভিন্ন মুসলিম সংগঠনের বিক্ষোভের মুখে পড়তে হয়েছে। এমন কী শারীরিকভাবেও তাকে লাঞ্ছনা করার চেষ্টা হয়েছে।

সুইডেনের পাসপোর্টধারী তসলিমা নাসরিন ভারতের ভিসা নিয়ে গত কয়েক বছর ধরে প্রধানত দিল্লিতেই বসবাস করেন।

কলকাতায় তার প্রবেশের ওপর পশ্চিমবঙ্গ সরকারের অঘোষিত নিষেধাজ্ঞা আছে, তবে নিরাপত্তাগত ঝুঁকির কারণে ভারতের অন্যত্রও যে তিনি অবাধে ঘোরাফেরা করতে পারেন তা নয়।

তবে আওরঙ্গাবাদের ঘটনা নিয়ে তসলিমা নাসরিন সংবাদমাধ্যমের সামনে এখনও মুখ খোলেননি।

তাকে আপাতত একটি অজ্ঞাত স্থানে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে।

লেখিকা এই মুহূর্তে কোথায় আছেন, পুলিশ কর্তৃপক্ষও সে ব্যাপারে মুখ খুলতে রাজি হয়নি।

সম্পর্কিত বিষয়