আওয়ামী লীগ নেতার মামলায় হেনস্থার শিকার ইউএনও তারিক সালমন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে

ছবির কপিরাইট TARIK SALMON/FACEBOOK
Image caption বরগুনার আলোচিত ইউএনও তারিক সালমন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে

বরগুনার আওয়ামী লীগ নেতার মামলায় হেনস্থার শিকার হওয়া আলোচিত ইউএনও গাজী তারিক সালমনকে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে বদলি করা হয়েছে। এদিকে আজ বিকেলে তিনি মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের গঠিত তদন্ত কমিটির কাছে তার বক্তব্য উপস্থাপন করবেন।

বরগুনার সদরের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা গাজী তারিক সালমনকে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে বদলি করা হয়েছে। বিবিসি বাংলাকে তিনি জানিয়েছেন, আওয়ামী লীগ নেতার মামলায় হেনস্থার শিকারও হওয়া মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের গঠিত তদন্ত কমিটির কাছে তিনি আজ বিকেলে তার বক্তব্য উপস্থাপন করবেন।

বরগুনা সদরের ইউএনও-কে হাতকড়া পরিয়ে জেলে নিয়ে যাওয়ার দৃশ্য স্তম্ভিত করেছিল বাংলাদেশের অনেক মানুষকেই। জনপ্রশাসনের কর্মকর্তাদের মধ্যে এই ঘটনার প্রতিক্রিয়া হয়েছিল মারাত্মক।

এমনকি খোদ প্রধানমন্ত্রীর দফতরের কর্মকর্তারাও এ ঘটনায় বিস্ময় প্রকাশ করেন। অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন খোদ প্রধানমন্ত্রী।

ছবির কপিরাইট facebook
Image caption পঞ্চম শ্রেণীর ছেলের আঁকা যে ছবি নিয়ে বিতর্ক

ঘটনার পর বিবিসিকে মি সালমন বলেছিলেন "আমি কল্পনা করিনি যে আমার জামিন নামঞ্জুর করা হবে। একটি জামিন-যোগ্য ধারায় মামলাটি করা হয়েছে এবং যথাযথভাবে আদালতের সামনে আমার বক্তব্য উপস্থাপন করেছে আমার আইনজীবী। জামিন নামঞ্জুর করার পর আমাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয়া হয়। আমি খুবই অপমানিত বোধ করি।"

আগৈলঝরা উপজেলার দায়িত্বে থাকা অবস্থায় শিশুদের এক চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার আয়োজন করে শেষ পর্যন্ত এরকম একটি হেনস্থার শিকার হন তিনি।

প্রতিযোগিতায় প্রথম এবং দ্বিতীয় হওয়া শিশুদের আঁকা ছবি ব্যবহার করে ২৬শে মার্চের আমন্ত্রণ-পত্র অংকন করা হয়। ওই প্রতিযোগিতার থিম ছিল বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ।

কিন্তু এতে বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা রাষ্ট্রপতি শেখ মুজিবুর রহমানের 'বিকৃত ছবি' প্রকাশের অভিযোগ তুলে তার বিরুদ্ধে মামলা করেন স্থানীয় একজন আওয়ামী লীগ নেতা। জামিন যোগ্য মামলায় বিচারক তার জামিনের আবেদন নাকচ করে দিলে হতভম্ব হয়ে পড়েন গাজী তারিক সালমন।

বিষয়টি নিয়ে সামাজিক মাধ্যম থেকে গণমাধ্যমে ব্যাপক সমালোচনা তৈরি হয়।

তবে তারিক সালমন বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের অংশ হিসেবেই এই কার্ডটি ছাপানোর সিদ্ধান্ত নেন বলে তখন উল্লেখ করেন। এই মামলার কিছুদিন পরে তারিক সালমনকে বরগুনা সদরের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে বদলি করা হয়।

সম্পর্কিত বিষয়