বিয়ে করলে ধর্ষকের রেহাইয়ের আইন বাতিল জর্ডানে

জর্ডন ছবির কপিরাইট AFP
Image caption জর্ডন সহ অল্প কিছু দেশে এখনো এরকম আইন আছে

জর্ডানে ধর্ষণকারী যদি ধর্ষণের শিকার নারীকে বিয়ে করে তাহলে সে শস্তি এড়াতে পারবে - এমন একটি আইন বাতিলের পক্ষে ভোট দিয়েছেন সেদেশের এমপিরা।

জর্ডানের পার্লামেন্টের নিম্ন কক্ষ ৩০৮ ধারা নামের ওই বিতর্কিত আইনটি বাতিলের পক্ষে ভোট দেয়।

তবে এটা কার্যকর হবার আগে এর পক্ষে পার্লামেন্টের উচ্চ কক্ষ এবং বাদশার অনুমোদন লাগবে।

মানবাধিকার ও নারী অধিকারকর্মীরা দীর্ঘদিন ধরেই এ আইনটি বাতিলের জন্য আন্দোলন করছিলেন। কিন্তু এর পক্ষের লোকেরা বলছিলেন, এর ফলে নারীদেরকে সামাজিক দুর্নামের হাত থেকে রক্ষা করা সম্ভব হতো।

এ আইনে ছিল যে ধর্ষণের শিকারকে ধর্ষণকারী বিয়ে করলে মামলা তুলে নেয়া যেতো । তিন বছরের মধ্যে বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটানো যাবে না, এমন বিধানও ছিল।

আইনটি বাতিল হওয়ার প্রস্তাব পার্লামেন্টে পাস হওয়ায় নারী অধিকার গোষ্ঠীগুলো আনন্দ প্রকাশ করেছে। তারা একে নারী আন্দোলনের বিজয় বলে আখ্যায়িত করেন।

জর্ডান ছিল এমন অল্প কয়েকটি দেশের একটি যাতে এ ধরণের আইন রয়ে গিয়েছিল। কিছুদিন আগে তিউনিসিয়া ধর্ষণ সংক্রান্ত এ ধরণের আইন বাতিল করেছে। লেবাননেও এ রকম একটি আইন সংস্কার প্রক্রিয়া চলছে।

তবে মধ্যপ্রাচ্য এবং আফ্রিকার যেসব দেশে এরকম আইন আছে সেগুলো হলো আলজেরিয়া, ইরাক, কুয়েত, লিবিয়া, ও সিরিয়া, এবং ফিলিস্তিন। এ তথ্য হিউম্যান রাইটস ওয়াচের।

বিবিসি বাংলায় আরো পড়ুন:

আমরা শত্রু নই: উত্তর কোরিয়াকে যুক্তরাষ্ট্র

'আমার দেয়া ছাগল মারা যায় নি. মানহানিও হয়নি'

আমেরিকার স্কুলে ধর্মগ্রন্থ পড়া বন্ধ হয়েছিল যে মামলায়

সম্পর্কিত বিষয়