সাড়া ফেলেছে সৌদি আরবের মেসেজিং অ্যাপ 'সারাহা'

সউদি আরব
Image caption সারাহার এখন ব্যবহারকারীর সংখ্যা ৩০ কোটি

সৌদি আরব থেকে 'সারাহা' এমন একটি মেসেজিং অ্যাপ বাজারে ছাড়া হয়েছে যা ব্যাপক চাঞ্চল্য সৃষ্টি করেছে। ইতিমধ্যেই এর ব্যবহারকারীর সংখ্যা ৩০০ মিলিয়ন বা ৩০ কোটি ছাড়িয়ে গেছে।

কিন্তু এই প্রতিষ্ঠানটির কর্মচারী আছেন মাত্র তিন জন।

'সারাহা' একটি আরবি শব্দ যার মানে হচ্ছে সততা।

এর বৈশিষ্ট্য হচ্ছে যে আপনার প্রোফাইলের লিংক আছে এমন যে কেউ আপনাকে মেসেজ পাঠাতে পারবে - কিন্তু আপনি জানতে পারবেন না যে এ বার্তাটি কে পাঠিয়েছে।

Image caption জুলাই মাসে এ্যাপলের এ্যাপ স্টোরে তালিকার শীর্ষে ছিল এই সারাহা

স্ন্যাপচ্যাট লোকের প্রোফাইল লিংক শেয়ার করার সুযোগ করে দেবার পর থেকেই এই সারাহা অ্যাপটি যাকে বলে 'ভাইরাল' হয়ে গেছে অর্থাৎ দ্রুত লোকের মাঝে ছড়িয়ে পড়ছে।

জুলাই মাসে অ্যাপলের অ্যাপস্টোরে তালিকার শীর্ষে ছিল এই সারাহা।

এর প্রতিষ্ঠাতা হচ্ছেন ২৯ বছর বয়স্ক জয়নাল আবদিন তওফিক। তাকে প্রশ্ন করা হয়েছিল - তার এই সারাহা যে এত জনপ্রিয়তা পাবে তা তিনি ভেবেছিলেন কিনা।

আরো পড়তে পারেন:

Image caption জয়নালআবদিন তওফিক

মি. তওফিক বলছেন, তিনি আশাবাদী ছিলেন। ভেবেছিলেন, ১০০০ মেসেজ পেলেই তিনি খুশি হবেন - কিন্তু তা এখন ৩০ কোটি ছাড়িয়ে গেছে।

যদিও এখানে কে মেসেজ পাঠাচ্ছে তার পরিচয় গোপন রাখার সুযোগ আছে, কিন্তু অনলাইনে হয়রানি, গালাগালি বা খারাপ আচরণ ঠেকানোর জন্যও তিনি কড়া প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা নিয়েছেন। ব্লক করার ব্যবস্থাও আছে এখানে।

যদিও এই 'অনলাইন অ্যাবিউজ' সব প্ল্যাটফর্মের জন্যই সমস্যা - বলছেন তিনি।

""অপব্যবহার কিন্তু সকল সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোরই একটি সমস্যা। সারাহা মনে করে এরকম একটি ঘটনাও অন্যায়। আমরা এর বিরুদ্ধে বেশ কিছু ব্যবস্থা নিয়েছি। সেটি নিয়ে খোলাসা করে আমরা কিছু বলবো না কারণ তাতে অপব্যবহারকারীরা নানা বুদ্ধি পেয়ে যাবে। তবে ব্লক বা ফিল্টার করার মতো পদ্ধতিও আমাদের রয়েছে" -বলেন মি: তওফিক।

বিবিসি বাংলায় আরো পড়তে পারেন:

সম্পর্কিত বিষয়