মার্কিন বিমান ঘাঁটিতে ‘চলতি মাসেই হামলা চালাতে প্রস্তুত’ উত্তর কোরিয়া

গুয়ামে যুক্তরাষ্ট্রের বিমান বাহিনীর একটি ঘাঁটি রয়েছে। ছবির কপিরাইট AFP/Getty images
Image caption গুয়ামে যুক্তরাষ্ট্রের বিমান বাহিনীর একটি ঘাঁটি রয়েছে।

উত্তর কোরিয়া বলছে, যুক্তরাষ্ট্রের প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল গুয়ামের কাছাকাছি এলাকায় তারা চারটি ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালাতে প্রস্তুত।

রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা জানাচ্ছে , কিম জং-উন যদি এই পরিকল্পনা পাশ করেন তাহলে হুয়াসং-১২ রকেট জাপানের ওপর দিয়ে গুয়াম থেকে ৩০ কিলোমিটার (১৭ মাইল) দূরে সাগরে গিয়ে পড়বে।

এর আগে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প হুঁশিয়ারি দেন যুক্তরাষ্ট্রকে আবার পারমাণবিক হামলার হুমকি দিলে, সমুচিত জবাব দেয়া হবে।

তারপরই বুধবার উত্তর কোরিয়া জানায়, কৌশলগতভাবে যুক্তরাষ্ট্রের জন্য গুরুত্বপূর্ণ একটি স্থাপনা হিসেবে পরিচিত গুয়ামে দেশটি মাঝারি দেকে দূর পাল্লার রকেট নিক্ষেপ করার পরিকল্পনা করছে।

এরপর থেকে নতুন করে উত্তেজনা শুরু হয়।

উত্তর কোরিয়ার অনবরত এমন হুমকির আবারো পাল্টা জবাব দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটি বলছে, উত্তর কোরিয়ার এমন যেকোনো পদক্ষেপ হবে তাদের নিজেদের 'শাসনক্ষমতা শেষ হতে দেখা'।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষামন্ত্রী জিম ম্যাটিস বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্রদের বিরুদ্ধে পিয়ংইয়ং যদি কোনো যুদ্ধে অবতীর্ণ হয় তাহলে দেশটির ওপর 'সর্বশক্তি প্রয়োগ করা হবে'।

গুয়াম থেকে বিবিসির সংবাদদাতা রুপার্ট উইংফিল্ড হায়েস জানাচ্ছেন, উত্তর কোরিয়ার এমন হুঁশিয়ারিকে 'বাগাড়ম্বরপূর্ণ' মনে করছেন অনেকে। কারণ সেখানকার অনেক মানুষ মনে করেন যদি সত্যিই এমন ধরনের হামলা করে উত্তর কোরিয়া তাহলে সেটি হবে আত্মঘাতী একটি কাজ।

বিবিসি বাংলায় আরো পড়ুন:

'মাহিন্দ্রা অ্যান্ড মুহাম্মদ' হলো 'মাহিন্দ্রা অ্যান্ড মাহিন্দ্রা'

‘প্রতি মাসে এক-দুই হাজার করে জমিয়েছি হজের জন্য’

'ব্রিজ খেলতে দেখলে পরিবার বলতো জুয়া খেলছি'