একই গানে ভারত ও পাকিস্তানের জাতীয় সঙ্গীত

গানের অন্যতম দুইজন শিল্পী ছবির কপিরাইট YOUTUBE/VOICEOFRAM
Image caption গানের অন্যতম দুইজন শিল্পী

পাকিস্তানের ৭০ তম স্বাধীনতা দিবস আজ। আগামীকাল তার ঐতিহাসিক প্রতিপক্ষ ভারত পালন করবে নিজের ৭০ তম স্বাধীনতা দিবস।

প্রতিবেশী দুই দেশের বৈরিতা নতুন নয়। কাশ্মীর নিয়ে সাম্প্রতিক সময়ে দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনার পারদ আরো ওপরে উঠেছে।

এমন প্রেক্ষাপটে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে ভারত এবং পাকিস্তানের একদল তরুণ শিল্পীর গাওয়া একটি গান, যাকে উদ্যোক্তারা বলছেন 'পিস অ্যানথেম' বা শান্তির জাতীয় সঙ্গীত।

'ভয়েস অব রাম' নামে শান্তির পক্ষে প্রচারণা চালানো ফেসবুক ভিত্তিক একটি গ্রুপ গত রাতে গানটি পোষ্ট করেছে।

১২ ঘণ্টার মধ্যেই প্রায় সাড়ে তিন লাখ বার দেখা হয়েছে ভিডিওটি। দশ হাজারের মত শেয়ার করা হয়েছে গানটি।

ছবির কপিরাইট YOUTUBE/VOICEOFRAM
Image caption পাকিস্তানি শিল্পীদের মধ্যে নাতাশা বেগও গান গেয়েছেন এই ভিডিওতে

ভিডিওর শুরুতেই পর্দায় ভেসে ওঠে একটি বাক্য "শিল্পের জন্য আমরা যখন সীমান্ত খুলে দেই, তখন শান্তির দেখা মেলে"।

দেখা যায়, একটি গানেরই প্রথম অংশে পাকিস্তানের জাতীয় সঙ্গীত 'পাক সার জমিন সাদ বাদ' গাইছেন একদল শিল্পী।

পরের অংশে সেই শিল্পীদেরই দেখা যায় ভারতের জাতীয় সঙ্গীত 'জনগনমন অধিনায়ক জয় হে' গাইছেন।

এদের কাউকে কাউকে রেকর্ডিং স্টুডিও থেকে, আবার কাউকে কাউকে দুই দেশের বিভিন্ন লোকেশনে গানে গলা মেলাতে দেখা যায়।

গানটি শেষে পর্দায় ভেসে ওঠে "আসুন শান্তি পক্ষে দাড়াই"।

'ভয়েস অব রাম' এর প্রধান চলচ্চিত্রকার এবং রাজনৈতিক আন্দোলন কর্মী রাম সুব্রামানিয়ন বলেছেন, অনেক মানুষই আছেন যারা শান্তির পক্ষে কথা বলতে ভয় পায়।

তাদের অযৌক্তিক ভীতি দূর করার জন্য এই ভিডিও।

গানটি নিয়ে এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে তুমুল আলোচনা সমালোচনা।

পাকিস্তানের ডন পত্রিকা একে 'অবাক করা' উপহার হিসেবে আখ্যা দিয়ে বলছে গানটি শুনতে বেশ ভালো।

গত বছর কাশ্মীর নিয়ে সীমান্তে নতুন করে উত্তেজনা শুরু হবার পর থেকে দুই তরফের হতাহতের ঘটনা ঘটেছে।

দুই দেশের মধ্যে শান্তির কোন উদ্যোগ বা বিনিময়কে উভয় দেশের জাতীয়তাবাদীরা বিশ্বাসঘাতক বলে আখ্যায়িত করার একটি সাধারণ প্রবণতা দুই দেশেই আছে।