চীনে ইন্টারনেট আসক্তির চিকিৎসা করাতে গিয়ে মৃত্যু হলো তরুণের

বেইজিং-এর দাশিং-এর এক ইন্টারনেট আসক্তি চিকিৎসা কেন্দ্র। বিশ-বছর বয়সী এসব যুবকদের পরিবার জোর করে তাদের এই কেন্দ্রে পাঠিয়েছে। ছবির কপিরাইট AFP/Getty Images
Image caption বেইজিং-এর দাশিং-এর এক ইন্টারনেট আসক্তি চিকিৎসা কেন্দ্র। বিশ-বছর বয়সী এসব যুবকদের পরিবার জোর করে তাদের এই কেন্দ্রে পাঠিয়েছে।

চীনে ইন্টারনেটের নেশার চিকিৎসা করাতে গিয়ে এক তরুণের মৃত্যু হয়েছে।

আর এর পর এই ধরনের বিতর্কিত প্রতিষ্ঠানগুলোর বিরুদ্ধে নতুন করে সমালোচনা শুরু হয়েছে।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম খবর দিয়েছে, ১৮-বছর বয়সী ঐ ব্যক্তির দেহে বেশ কিছু আঘাতের চিহ্ন দেখা গিয়েছে।

পুলিশ ঐ নিরাময় কেন্দ্রের পরিচালক এবং কর্মচারীদের আটক করেছে।

পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশ আনহুইতে এমাসের গোড়াতে এই ঘটনা ঘটে বলে জানা যাচ্ছে।

ইন্টারনেট এবং ভিডিও গেম-এ আসক্তদের চিকিৎসার জন্য সামরিক-ধাঁচের বেশ কিছু নিরাময় শিবির গড়ে উঠেছে।

নিহত তরুণের মা, যার পদবী লিউ, জানান যে তার ছেলে ইন্টারনেটের প্রতি খুবই আসক্ত হয়ে পড়েছিল।

তিনি বা তার স্বামী ছেলেকে কোনভাবে সাহায্য করতে পারছিলেন না।

তখন তারা সিদ্ধান্ত নেন যে ছেলেকে তারা ফুইয়াং শহরের ইন্টারনেট আসক্তি চিকিৎসা কেন্দ্রে পাঠিয়ে দেবেন।

ঐ প্রতিষ্ঠানটির বিজ্ঞাপনে বলা হয় যে মনস্তাত্ত্বিক ও শারীরিক চিকিৎসার মাধ্যমে তারা শিশু-কিশোরদের ইন্টারনেট আসক্তি দূর করে।

এরপর তারা গত মাসে ছেলেকে ঐ প্রতিষ্ঠানে রেখে আসেন।

ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption বেইজিং-এর এক হাসপাতালে ইন্টারনেট আসক্তির চিকিৎসা চলছে।

কিন্তু দু'দিন পরই তারা ফোন পান যে তাদের ছেলেকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে, যেখানে পরে তার মৃত্যু হয়।

তরুণের মৃত্যুর প্রকৃত কারণ সম্পর্কে জানা যায়নি। তবে চিকিৎসকরা মা-বাবাকে জানান যে তাদের ছেলের দেহে ২০টিরও বেশি ক্ষতচিহ্ন দেখা গিয়েছে।

চীনে সম্প্রতি এই ধরনের 'বুট ক্যাম্প' স্টাইলের অনেকগুলো ইন্টারনেট আসক্তি নিরাময় কেন্দ্র গড়ে উঠেছে।

এসব প্রতিষ্ঠানের কোন কোনটি স্থানীয় হাসপাতালের সাথে যুক্ত।

জনপ্রিয় হলেও কোন কোন প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে তাদের 'রোগী'দের মারধর করা কিংবা ইলেকট্রিক শক্ দেয়ারও অভিযোগ রয়েছে।