বস্টনে বিক্ষোভে কোণঠাসা এক উগ্র ডানপন্থী সমাবেশ

বস্টনে বর্ণবাদবিরোধী বিক্ষোভকারীরা ছবির কপিরাইট Reuters
Image caption বস্টনে বর্ণবাদবিরোধী বিক্ষোভকারীরা

যুক্তরাষ্ট্রের বস্টনে উগ্র ডানপন্থীদের একটি সমাবেশের বিরুদ্ধে বহু মানুষ বিক্ষোভ দেখিয়েছে।

বিক্ষোভকারীরা সংখ্যায় এত বেশী ছিল এবং তাদের শ্লোগানের এত তীব্রতা ছিল যে ডানপন্থীরা তাদের এই সমাবেশটি আগেভাগেই শেষ করে দিতে বাধ্য হয়।

হাতে গোনা এই উগ্র ডানপন্থীদেরকে পরে পুলিশ পাহারায় সরিয়ে নেয়া হয়।

এক সপ্তাহ আগের শার্লটসভিলের ঘটনাপ্রবাহ যাতে এখানে পুনরাবৃত্তি না হয়, সে জন্য এসকল পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছিল।

বস্টন কমনে যখন হাতে গোনা কিছু উগ্র ডানপন্থীর আয়োজনে চলছিল 'ফ্রি স্পিচ' নামের ওই সমাবেশ, তখন কাছেই বস্টন স্পোর্টস সেন্টার থেকে তাদের দিকে এগিয়ে আসছিল হাজার হাজার বর্ণবাদবিরোধী বিক্ষোভকারী। তাদের কণ্ঠে ছিল স্লোগান।

এক পর্যায়ে বিক্ষোভকারীরা এসে উগ্র ডানপন্থীদের ওই সমাবেশটিকে ঘিরে ফেলে এবং নিরাপদ দূরত্বে অবস্থান নিয়ে স্লোগান দিতে শুরু করে।

বস্টন হেরাল্ডে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী এই বিক্ষোভকারীদের সংখ্যা হবে অন্তত ৩০ হাজার।

ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption ত্রিশ হাজারের মতো মানুষ এই বিক্ষোভে অংশ নেয় বলে খবরে প্রকাশ।

শার্লটসভিলের প্রাণঘাতী সংঘাতের উদাহরণ সামনে আছে, তাই উত্তেজনা ছিল আগে থেকেই।

পুলিশও মোতায়েন করা হয়েছিল বিপুল সংখ্যক।

অবস্থা বেগতিক দেখে ডানপন্থীরা নির্দিষ্ট সময়ের আগেই তাদের সমাবেশ শেষ করে ফেলে।

এর ফলে শেষ দিকের বেশ কয়েকজন বক্তা তাদের বক্তব্য পর্যন্ত দিতে পারেনি।

পরে বিক্ষোভকারীরা পুলিশের সাথে সংঘর্ষে লিপ্ত হয় বলেও খবর বেরিয়েছে।

এ ঘটনায় কুড়ি জনকে আটক করা হয়েছে।

বিক্ষোভকারীদের অনেকের মুখে এবং শরীরের অন্যান্য স্থানে সাঁটা ছিল হেদার হেয়ারের ছবিযুক্ত স্টিকার।

ছবির কপিরাইট Reuters
Image caption এক পর্যায়ে পুলিশের সাথে সংঘর্ষেও জড়ায় বিক্ষোভকারীরা।

৩২ বছর বয়স্ক হেদার হেয়ার গত সপ্তাহে শার্লটসভিলে নিহত হন।

সেখানে তিনিসহ একদল বিক্ষোভকারীর উপর চলন্ত ট্রাক উঠিয়ে দিয়েছিল এক শ্বেতাঙ্গ শ্রেষ্ঠত্ববাদী।

ফ্রি স্পিচ সমাবেশের আয়োজক উগ্র ডানপন্থীরা অবশ্য দাবী করছে, তাদের সমাবেশে তারা কোন বর্ণবাদ বা ধর্মীয় গোঁড়ামিকে স্থান দিচ্ছিল না।

তারা এও দাবী করছিল যে তাদের সম্পর্কে গণমাধ্যমে ভুল তথ্য দেয়া হয়েছে, যার ফলে অনেকেই তাদেরকে শার্লটসভিলের সেই শ্বেতাঙ্গ শ্রেষ্ঠত্ববাদীদের সঙ্গে এক করে দেখছে।

সম্পর্কিত খবর:

যুক্তরাষ্ট্রের ভার্জিনিয়ায় দাঙ্গার পর জরুরী অবস্থা জারি

দাঙ্গা নিয়ে ট্রাম্পের মন্তব্য, হোয়াইট হাউজের সাফাই

শার্লটসভিল সহিংসতা: শঙ্কায় বিশ্বে যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থান

সম্পর্কিত বিষয়