ভিক্ষা না করে ইতালির রাস্তা পরিষ্কার করছে নাইজেরিয়ার অভিবাসীরা

অভিবাসীদের লাইন ছবির কপিরাইট Reuters
Image caption ইটালিতে রয়েছে বহু অভিবাসী যাদের অনেককেই সেখানে কাজের জন্য সংগ্রাম করতে হচ্ছে।

লিবিয়া থেকে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে আসা অভিবাসীদের বিরুদ্ধে ব্যাপক ধরপাকড় চালাচ্ছে ইতালি সরকার।

চলতি বছরেই এ পর্যন্ত প্রায় ৯৭ হাজার অভিবাসী ইটালিতে পৌঁছেছে, যার বেশিরভাগ লিবিয়া হয়ে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে সেখানে পৌঁছাতে সক্ষম হয়েছে।

তাদের কড়াকড়ির কারণে চলতি সপ্তাহেই ভূমধ্যসাগরে উদ্ধার তৎপরতা বন্ধ করতে হয়েছে তিনটি সাহায্য সংস্থাকে।

তারপরেও ইতালিতে রয়েছে বহু অভিবাসী যাদের অনেককেই সেখানে কাজের জন্য সংগ্রাম করতে হচ্ছে।

তাই কোনোভাবে ইতালিতে প্রবেশ করতে পারলেই সাধারণ রাজনৈতিক আশ্রয় চেয়ে আবেদন করেন অভিবাসীরা।

কিন্তু এ ক্ষেত্রে ভিন্নধর্মী একটি চেষ্টার কারণে আলোচনায় উঠে এসেছে রোমের শরণার্থী শিবিরে আশ্রয় নেয়া নাইজেরিয়া থেকে আসা একদল অভিবাসী।

ভিক্ষাবৃত্তি না করে তারা নিজ উদ্যোগেই চালিয়ে যাচ্ছে রাস্তাঘাট পরিষ্কারের কাজ, যার সূচনা হয়েছে দুই নাইজেরিয়ান তরুন উইসডম আর ওসাসের হাত ধরে।

সাধারণত রাজনৈতিক আশ্রয়ের আবেদনের পর সেটি নিষ্পত্তি হতে বেশ খানিকটা সময় নেয় ইতালির কর্তৃপক্ষ।

আবার এ সময়টাতে কোথাও কোন কাজ পাওয়াও অত্যন্ত কঠিন অভিবাসীদের জন্য।

উইসডম আর ওসাস এই সময়টাতেই স্বপ্রণোদিত হয়ে রাস্তা পরিষ্কারের জন্য একটি উদ্যোগ নেয় এবং সংঘবদ্ধ করে তোলে শরণার্থী শিবিরে থাকা বেশ কিছু তরুণকে।

এসব তরুণেরা মনে করে ভিক্ষা করার চেয়ে রাস্তা পরিষ্কার করে যা কিছু বকশিস পাওয়া যাবে তাতেই তাদের চলে যাবে।

এসব অভিবাসীরা নাইজেরিয়া থেকে এসেছিলো অনেকটা শুন্য হাতেই।

"তারা আসলেই আমাদের প্রশংসা করছে। তারা আমাদের বলছে গ্রাজি গ্রাজি। গ্রাজির অর্থ হলো ধন্যবাদ তোমার কাজের জন্য। গ্রাজি মিলে। এর মানে হলো অনেক ধন্যবাদ আমাদের রাস্তাগুলো পরিষ্কার করার জন্য" বলছিলেন লাল উইসডম।

ওসাস আর উইসডম দুজনেই বাস করছে রোমের একটি শরণার্থী শিবিরে।

"আমাদের কাছে মনে হয়েছে এটি একটি ভালো আইডিয়া। আমরা সেটি করতে শুরু করলাম যাতে করে অন্যরা বুঝতে পারছে যে আমরাই করছি" বলেন ওসাস।

রোমের সড়কের পাশে রাখা ময়লা ফেলার বাক্সগুলোকে প্রায় সময়েই উপচে পড়তে দেখা যায়। রীতিমত সেখানকার পরিচিত দৃশ্যগুলোর মধ্যে এটি একটি।

আর সে কারণেই কেউ যখন নিজ থেকে ময়লা আবর্জনা পরিষ্কার করতে শুরু করলো তখন তার প্রশংসাই আসতে শুরু করলো রোমের অধিবাসীদের কাছ থেকে। বিনিময়ে জুটতে শুরু করলো টিপস অর্থাৎ বকশিস।

"রাস্তা পরিষ্কারের জন্য আমরা প্রতিদিন দশ থেকে বিশ ইউরো পেতে শুরু করলাম। এটা কোনো ভিক্ষাবৃত্তি নয়, আমরা নতুন একটি আইডিয়া এনেছি। আর সে কারণেই আমি বিশ্বাস করি তারা বিষয়টির প্রশংসা করলো যে অন্তত ভিক্ষার চেয়ে এটি অনেক ভালো" বলেন উইসডম।

আরো পড়ুন:

'যেথায় কাজ আছে, সেথাই চলি যাবো'

আইসল্যান্ডের নিজস্ব টয়লেট পেপারের ব্যবসা লাটে

প্রাপ্তবয়স্ক জীবনের প্রথম ধাপ, বেলফাস্টের নারীদের কথা

ছবির কপিরাইট EPA
Image caption ইটালিতে প্রবেশ করতে পারলেই সাধারণ রাজনৈতিক আশ্রয় চেয়ে আবেদন করেন অভিবাসীরা।

ওসাস ও উইসডমের দাবি রোম এখন আগের চেয়ে অনেক পরিচ্ছন্ন।

তাদের মতে শহরটি ছিলো নোংরা আবর্জনায় ঠাসা। আর শহরটিকে এখন তাদের নিজেদের মনে করেন তারা।

ওসাসের মতে "জীবন এখন অনেক ভালো আমাদের জন্য। অতীতের সঙ্গে হয়তো তুলনা করা যাবে না। কিন্তু আমাদের বর্তমানটাই অনেক বেশি উজ্জ্বল।"

আর দুই তরুণের পথ ধরে অন্তত তিনশোর বেশি নাইজেরিয়ান এখন যোগ দিয়েছে তাদের সঙ্গে। যাদের হাত দিয়ে প্রতিনিয়ত পরিচ্ছন্ন হচ্ছে রোমের সড়ক অলিগলি।

আর তাদের এ কাজ স্বস্তি এনে দিয়েছে রোম নগরীর বহু মানুষের মধ্যেই।

বিবিসি বাংলার আরো খবর:

'শোক দিবসে ছাত্রদের পড়া বোঝানো কি অপরাধ?'

ইরাকে সংঘাতের মধ্যেই বাড়ছে ফুটবলের জনপ্রিয়তা

বাড়িতে শৌচাগার বানাননি স্বামী, তাই ডিভোর্স মঞ্জুর

সম্পর্কিত বিষয়