আফগান নারীর সতীত্ব পরীক্ষার পদ্ধতি বাতিলের আহবান

ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption সতীত্ব পরীক্ষার নামে আফগানিস্তানে অনেক নারীকে অবমাননার মুখে পড়তে হয়।

আফগানিস্তানে নারীদের সতীত্ব পরীক্ষা করার পদ্ধতি বাতিল করার জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানিয়েছে দেশটির মানবাধিকার কমিশন।

মানবাধিকার কর্মীরা বলেছেন, নারীদের সতীত্ব পরীক্ষার মাধ্যম তাদের চরম অবমাননা এবং হয়রানীর মুখোমুখি হতে হয়।

আফগানিস্তানে কোন নারী যদি তার প্রেমিকের সাথে ঘর ছাড়ে তাহলে তাকে আটক করে সতীত্ব পরীক্ষা করা হয়।

এর মাধ্যমে যাচাই করা হয়, সে নারী তার প্রেমিকের সাথে বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কে লিপ্ত হয়েছিল কী না।

এ ধরনের পরীক্ষা একজন নারীর জন্য চরম অবমাননাকর এবং সেটি যৌন হয়রানীর শামিল বলে মনে করেন মানবাধিকার কর্মীরা।

এ ধরনের পরীক্ষার মাধ্যমে যদি বিবাহ বহির্ভূত শারীরিক সম্পর্ক প্রমাণিত হয়, তাহলে ১৫ বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড দেয়া হয়।

কিন্তু দেশটির মানবাধিকার কমিশন বলছে, এ ধরনের পরীক্ষার কোন ভিত্তি নেই। কারণ যেভাবে এ পরীক্ষা করা হয়, সেটি সম্পূর্ণ বৈজ্ঞানিক নয় এবং চিকিৎসা বিজ্ঞানে এর কোন ভিত্তি নেই।

তাছাড়া জোর করে কোন নারীকে এ ধরনের অবমাননাকর পরীক্ষা করতে বাধ্য করা মানবাধিকারের লঙ্ঘন বলে মনে করে দেশটির মানবাধিকার কমিশন।

তবে এ বিষয়ে আফগানিস্তান সরকারের কোন ভাষ্য এখনো পাওয়া যায়নি।

বিবিসি বাংলায় আরো পড়ুন:

বাংলাদেশের ক্রিকেটে সিলেকশন নিয়ে বিতর্ক কেন?

২০৯০ সালের আগে এমন সূর্যগ্রহণ আর হবে না

সম্পর্কিত বিষয়