প্রতীকী ধর্মঘট এবং অনশন করবেন সাংবাদিকরা

bd journalist ছবির কপিরাইট focus bangla
Image caption সাংবাদিক দম্পতি হত্যাকান্ডের দ্রুত তদন্তের দাবিতে ঢাকায় সাংবাদিক সমাবেশ (ছবি-ফোকাস বাংলা)

সাংবাদিক দম্পতি সাগর সরওয়ার এবং মেহেরুন রুনির নৃশংস হত্যাকান্ডের ১১ দিন পর ঢাকার প্রেসক্লাবের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশে কয়েকশ সংবাদকর্মী অংশ নেন৻

সমাবেশ থেকে এই হত্যাকান্ডের তদন্ত নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন সাংবাদিক উইনিয়নের নেতৃবৃন্দ৻

দ্রুত তদন্ত এবং হত্যাকারিদের সনাক্ত করার দাবিতে ২৭শে ফেব্রুয়ারি দেশের সব সংবাদপত্রে এক ঘন্টার প্রতীকী কর্মবিরতি ধর্মঘট পালনের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে৻

তাছাড়া পহেলা মার্চ প্রেস ক্লাব চত্বরে সকাল ১০ টা থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত অনশন কর্মসূচি পালন করবেন সাংবাদিকরা৻

বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে) এবং ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) উভয় অংশ যৌথভাবে এ্ই সাংবাদিক সমাবেশ এং কর্মসূচি দিয়েছে৻

দুই সহকর্মীর এই হত্যাকান্ডের দ্রুত তদন্ত এবং বিচারের দাবিতে বিভিন্ন মতাদর্শের সাংবাদিক ইউনিয়নগুলেোর মধ্যে এ ধরনের ঐক্যবদ্ধ কর্মসূচি একটি বিরল ঘটনা৻

আপনার ডিভাইস মিডিয়া প্লেব্যাক সমর্থন করে না

বিএফইউজের একাংশের নেতা ইকবাল সোবহান চৌধুরি বিবিসিকে বলেন, “তদন্তের অগ্রগতি তা জানার ফলে মানুষের মধ্যে আস্থাহীনতা তৈরী হচ্ছে“৻

জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাধারন সম্পাদক সৈয়দ আবদাল আহমেদ বলেন “তাঁর বিশ্বাস পুলিশ ও গোয়েন্দা সংস্থা ঠিকমত তাদের দায়িত্ব পালন করছেন না৻ তদন্তে গাফিলতি করা হচ্ছে৻“

সাংবাদিকদের সমাবেশে উল্লেখ করা হয় গত ১২ বছরে দেশে ২৫ জনের মত সাংবাদিক হত্যাকান্ডের শিকার হয়েছেন যেগুলোর এখনও বিচার শেষ হয়নি৻ সাংবাদিক ইউনিয়নগুলো তাদের তিন-দফা দাবির মধ্যে সমস্ত সাংবাদিক হত্যার দ্রুত বিচার দাবি করেছে৻

সাংবাদিক এ্ই দম্পতিকে গত ১২ই ফেব্রুয়ারি তাদের ফ্লাটে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করা হয়৻

পরদিনই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন ৪৮ ঘন্টার মধ্যে খুনীদের আটক করতে পুলিশকে নির্দেশ দেন৻ দুদিন পর পুলিশের মহা পরিদর্শকও সাংবাদিকদের জানান তদন্তে তারা প্রণিধানযোগ্য তথ্য পেয়েছেন৻ কিন্তু ১১ দিন পরও পুলিশের পক্ষ থেকে তদন্তের উল্লেখযোগ্য কোন অগ্রগতির বক্তব্য শোনা না যাওয়ায় এই হত্যাকান্ড নিয়ে নানা গুজব শোনা যাচ্ছে৻