ঢাকায় সৌদি নিরাপত্তা প্রতিনিধিদল

spot of saudi killing

গুলশানের এখানেই গুলিবিদ্ধ হন সৌদি কূটনীতিক

প্রায় এক মাসে ঢাকায় একজন সৌদি কূটনীতিককে গুলি করে হত্যার ঘটনায় তদন্তের অগ্রগতি পর্যালোচনা করতে সৌদি আরবের নিরাপত্তা বাহিনীর একটি দল আজ (মঙ্গলবার) ঢাকায় এসেছে।

ঢাকায় সৌদি দূতাবাসের একজন উর্ধ্বতন কর্মকর্তা বিবিসিকে জানিয়েছেন নিহত কূটনীতিক হত্যার ঘটনায় বাংলাদেশের তদন্তকারী দল কতটা অগ্রগতি করতে পেরেছে সে বিষয়টি তারা বাংলাদেশ সরকারের কাছে জানতে চাইবে।

এদিকে বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা বলছেন, ঢাকায় আসা সৌদি আরবের দলটি বাংলাদেশী তদন্তকারীদের সহায়তা করার চেষ্টা করেবে।

গত মাসের প্রথম দিকে ঢাকার গুলশানে অজ্ঞাত বন্দুকধারীদের গুলিতে নিহত হন ঢাকায় সৌদি দূতাবাসের দ্বিতীয় সচিব খালাফ আল আলী।

সৌদি নিরাপত্তা বাহিনীর আট সদস্যের দলটি আজ দুপুরে ঢাকায় এসে পৌঁছে। ঢাকায় সৌদি দূতাবাসের অন্যতম উর্ধ্বতন একজন কর্মকর্তা বিবিসিকে জানিয়েছেন তাদের কূটনীতিক খালাফ আল আলীকে হত্যার ঘটনায় তদন্তের ক্ষেত্রে কতটা অগ্রগতি হয়েছে এ দলটি সে বিষয় পর্যালোচনা করবে।

প্রায় একমাস আগে গুলশানে আততায়ীর গুলিতে সৌদি ওই কূটনীতিক নিহত হলেও পুলিশ এখনও সুনিদ্দির্ষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারে নি।

তদন্তের ক্ষেত্রে তাদের বিশেষ কোন জ্ঞান দিয়ে আমাদের যাতে সহযোগিতা করতে পারে সেটাই তাদের উদ্দেশ্য।

কামাল উদ্দিন আহমেদ, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, অতিরিক্ত সচিব

ঢাকায় সৌদি দূতাবাসের ওই কর্মকর্তা জানিয়েছেন হত্যাকান্ডের ঘটনায় সুষ্ঠু বিচারের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ সরকার প্রতিশ্রুতিতে সৌদি সরকার আশ্বস্ত।

কিন্তু হত্যাকান্ডের প্রায় একমাস হতে চললেও কেন কাউকে গ্রেফতার করা সম্ভব হচ্ছেনা সেটি নিয়ে সৌদি দূতাবাস কিছুটা চিন্তিত বলেও উল্লেখ করেছেন সৌদি দূতাবাসের ওই উর্ধ্বতন কর্মকর্তা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই কর্মকর্তা বিবিসিকে জানিয়েছেন তদন্ত কীভাবে অগ্রসর হচ্ছে এবং এতে সৌদি আরব কোনো সহায়তা করতে পারে কিনা সেটিও খতিয়ে দেখবে দলটি।

তবে বাংলাদেশের কর্মকর্তারা বলছেন হত্যাকারীকে ধরতে বাংলাদেশের পুলিশ জোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। সেক্ষেত্রে বাংলাদেশে আসা সৌদি দলটি তদন্তের ক্ষেত্রে কোন সহায়তা করতে পারে কিনা সেটি নিয়েও আলোচনা হবে।

সৌদি আরবের এই দলটির সাথে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের হয়ে সমন্বয়ের কাজ করছেন অতিরিক্ত সচিব কামাল উদ্দিন আহমেদ। মি: আহমেদ বলেন সৌদি কূটনীতিককে হত্যার বিষয়টিতে তদন্তের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের পুলিশ চেষ্টা করে যাচ্ছে।

মি: আহমেদ বলেন, সৌদি আরবের সাথে বাংলাদেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক থাকার কারণে বাংলাদেশের নিরাপত্তা ইস্যুতে সে দেশের সাথে সহযোগিতা স্বাভাবিক।

“তদন্তের ক্ষেত্রে তাদের বিশেষ কোন জ্ঞান দিয়ে আমাদের যাতে সহযোগিতা করতে পারে সেটাই তাদের উদ্দেশ্য।” বলেন মি: আহমেদ।

সৌদি আরবের সাথে কূটনীতিক সম্পর্ককে বাংলাদেশের তরফ থেকে অত্যন্ত গুরুত্ব সহকারে দেখা হয়।

ঢাকায় সৌদি দূতাবাসের কর্মকর্তা

কূটনীতিক হত্যার বিষযটি নিয়ে বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে দূতাবাস যোগাযোগ রেখেছে (ফাইল চিত্র)

খালাফ আল আলী হত্যাকান্ডের পর বিষয়টি নিয়ে বাংলাদেশ সরকার একধরনের চাপে পড়েছিল বলে বিভিন্ন গণমাধ্যমে খবরা-খবর প্রকাশিত হয়।

সৌদি আরবে প্রবাসী বাংলাদেশীদের মধ্যেও একধরনের উদ্বেগ কাজ করছিল। সেই প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সৌদি আরব গিয়ে সে দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রীর সাথে কথা বলেন।

বিষয়টি সর্ব্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত হচ্ছে - বাংলাদেশের কাছ থেকে এমন বক্তব্য পাওয়ার পরও বাংলাদেশে দল পাঠানোর বিষয়ে প্রস্তাব এসেছিল সৌদি আরবের দিক থেকেই।

বাংলাদেশে এর আগেও কয়েকটি চাঞ্চল্যকর হত্যার ঘটনার পর বাংলাদেশী দলকে সাহায্য করার জন্য বিভিন্ন সময় বিদেশী দল এসেছিল। কিন্তু এরপর সেসব ঘটনার কী হলো তা নিয়ে পরিস্কার কোন ধারণা পাওয়া যায়না।

নিহত কর্মকর্তা সম্পর্কে এমন কিছু তথ্য থাকতে পারে যেটি হয়ত বাংলাদেশের তদন্তকারীদের জানা সম্ভব নয়। সৌদি দলটি সেধরনের তথ্য এবং কারিগরি বিষয়ে সহায়তা করতে পারে।

মোহাম্মদ নুরুল হুদা, পুলিশের সাবেক মহাপরিদর্শক

পুলিশের সাবেক মহাপরিদর্শক মোহাম্মদ নুরুল হুদা বলছিলেন এ ধরনের সহায়তা একটি স্বাভাবিক বিষয়।

“নিহত কর্মকর্তা সম্পর্কে এমন কিছু তথ্য থাকতে পারে যেটি হয়ত বাংলাদেশের তদন্তকারীদের জানা সম্ভব নয়। সৌদি দলটি সেধরনের তথ্য এবং কারিগরি বিষয়ে সহায়তা করতে পারে” বলেন মি: হুদা।

তবে সহযোগিতা নিলেও মূল তদন্তকাজ বাংলাদেশের সংশ্লিষ্ট বিভাগকেই করতে হবে বলে সাবেক এই আইজিপি বলেন। কারণ আদালতে সেটিই গ্রহণযোগ্য হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

এদিকে আজ ঢাকায় আসা সৌদি আরবের দলটি কতদিন থাকবে সে বিষয়ে বাংলাদেশের কর্মকর্তারা কিংবা সৌদি দূতাবাস পরিস্কার করে কিছু বলেনি।

বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা অবশ্য বলছেন সৌদি দলটি তাদের যতদিন প্রয়োজন হয়, ততদিনই ঢাকায় থাকবেন বলেই তারা ধারণা পেয়েছেন।

সর্বশেষ সংবাদ

অডিও খবর

ছবিতে সংবাদ

বিশেষ আয়োজন

BBC navigation

BBC © 2014 বাইরের ইন্টারনেট সাইটের বিষয়বস্তুর জন্য বিবিসি দায়ী নয়

কাসকেডিং স্টাইল শিট (css) ব্যবহার করে এমন একটি ব্রাউজার দিয়ে এই পাতাটি সবচেয়ে ভাল দেখা যাবে৻ আপনার এখনকার ব্রাউজার দিয়ে এই পাতার বিষয়বস্তু আপনি ঠিকই দেখতে পাবেন, তবে সেটা উন্নত মানের হবে না৻ আপনার ব্রাউজারটি আগ্রেড করার কথা বিবেচনা করতে পারেন, কিংবা ব্রাউজারে css চালু কতে পারেন৻