বাজেটে কৃষিখাতের জন্য বিশেষ ব্যবস্থার দাবি

বাংলাদেশে কৃষিপণ্যের সঠিক মূল্য নিশ্চিত করতে কৃষকদের পক্ষ থেকে এবারে জোরালো দাবী করা হলেও অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন যে আগামী বছরের বাজেটে এক্ষেত্রে বিশেষ কোন পদক্ষেপ নেয়া সম্ভব হবে না।

তবে তিনি বলেন, সরকারীভাবে শস্য ক্রয়ের সময় কৃষকের মুনাফার ব্যাপারে বরাবরের মতোই নজর দেয়া হবে।

বেসরকারী টেলিভিশন ‘চ্যানেল আই’য়ের পক্ষ থেকে প্রতিবছরের মতো এবারেও কৃষিখাতের জন্যে অর্থমন্ত্রীর কাছে যে বাজেট প্রস্তাবনা পেশ করা হয়েছে, তাতে সবচেয়ে বেশী জোরালো সুপারিশ এসেছে কৃষিপণ্যের দাম নিশ্চিত করার বিষয়ে।

চ্যানেল আইয়ের ‘হৃদয়ে মাটি ও মানুষ’ অনুষ্ঠানের পক্ষ থেকে কৃষিখাতের বাজেটের জন্যে সুপারিশমালা তৈরী করা হয়েছে কৃষকদের সাথে সরাসরি কথা বলে।

ঐ অনুষ্ঠানের উপস্থাপক, চ্যানেল আইয়ের বার্তা বিভাগের প্রধান শাইখ সিরাজ বলেন যে এবারে ছয়টি জেলায় অনুষ্ঠান করা হয়েছে, আর এসব অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন প্রায় ২৫ হাজার কৃষক। অনুষ্ঠানগুলো চ্যানেল আইয়ে প্রচার করা হয়েছে।

এসব অনুষ্ঠান থেকে পাওয়া সুপারিশগুলো সংকলন করে তা কৃষি বাজেটের জন্যে প্রস্তাবনা হিসেবে পেশ করা হয়েছে অর্থমন্ত্রী মিঃ মুহিতের কাছে। মিঃ সিরাজ বলেন যে কৃষি ও এর উপখাতগুলোর জন্যে ৫৫টি সুপারিশ করা হয়েছে।

উৎপাদন ব্যয় নিয়ে কৃষক বিপর্যস্ত। অন্যদিকে তাঁরা পণ্য বিক্রি করছে কম মূল্যে

শাইখ সিরাজ

তিনি বলেন, সবচেয়ে বড় সুপারিশ এসেছে যে কৃষির উৎপাদন ব্যয় কমিয়ে কৃষিপণ্যের সঠিক মূল্য পাওয়া যাবে, এমন একটি বাজার সৃষ্টি করা করা।

“কৃষক প্রচণ্ডভাবে বিপর্যস্ত হচ্ছে উৎপাদন ব্যয় নিয়ে। অন্যদিকে তাঁরা পণ্য বিক্রি করছে কম মূল্যে।“

মিঃ সিরাজ জানান, অনেক ক্ষেত্রে কৃষক এমন কথাও বলছে যে ভর্তুকি তাদের দরকার নেই, বরং উৎপাদন খরচের ওপর ১০ শতাংশ লাভ দেয়ার ব্যাপারটি নিশ্চিত করা হলেই তাঁরা খুশী।

তিনি বলেন, এটি হয়তো তাদের ইমোশনের কথা, তবে বিক্রি মূল্য নিয়ে তাঁরা এতোটাই বিপর্যস্ত যে বারবার এই বিষয়টি উঠে এসেছে।

চলতি বোরো মওসুমে ধানের দাম নিয়ে এরই মধ্যে উদ্বেগ তৈরী হয়েছে। উৎপাদন মূল্যের চেয়ে বাজার মূল্য কম বলে অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে।

অর্থমন্ত্রী মিঃ মুহিত বলেন, কৃষি বাজেটের জন্যে দেয়া সুপারিশমালায় বিষয়টি উঠে এলেও এক্ষেত্রে বিশেষ কোন পদক্ষেপ হয়তো নেয়া সম্ভব হবে না।

তিনি বলেন, আমরা যখন শস্যের মূল্য নির্ধারণ করি আমাদের সংগ্রহের জন্যে, তখন আমরা কৃষকের মুনাফার দিকে নজর রাখি, আবার একই সাথে বাজারের দিকেও নজর রাখি, যাতে একটি ভারসাম্য বজায় থাকে।

কিন্তু চলতি বছরে পণ্যমূল্য নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে বিশেষ কিছু সম্ভব হবে না জানিয়ে তিনি বলেন, ভারতে প্রাইস কমিশন থাকলেও বাংলাদেশে এখনই তেমন কিছু করা যাবে না, কারণ বাজেট দেয়ার আগে হাতে খুব বেশী সময় নেই।

“যে সামান্য সময় বাকি আছে, সেই সময়ের মধ্যে এ রকম নতুন প্রস্তাব দেওয়ার মতো মানসিকতা আমার নেই।“

শাইখ সিরাজ হৃদয়ে মাটি ও মানুষ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ২০০৫ সাল থেকে কৃষি বাজেটের জন্যে সুপারিশ সরকারের কাছে পেশ করে যাচ্ছেন।

তিনি বলেন, তাঁর অনুষ্ঠানের মাধ্যমে কৃষির সমস্যাগুলো সম্পর্কে জানা এবং সেগুলোর সমাধানে সরকারের পক্ষ থেকে ধীরে ধীরে আরো বেশী গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে। এক্ষেত্রে উদ্ভাবনী ধারণাও বেরিয়ে আসছে বলে জানান মিঃ সিরাজ।

এ প্রসঙ্গে পিপিপি’র উদাহরণ দিয়ে তিনি বলেন, প্রতিবছর পিপিপিতে বড় বরাদ্দ থাকে এবং ধরেই নেয়া হয় যে এর মাধ্যমে রাস্তা, সেতুর মতো বড় বড় অবকাঠামো গড়ে তোলা হবে।

কিন্তু পিপিপি গ্রাম পর্যায়ে অবস্থাশালী কৃষকের সঙ্গেও হতে পারে, এ কথা জানিয়ে এই গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব বলেন যে সরকার এদেরকে কিছু অর্থ দিয়ে গ্রাম এলাকায় স্টোরেজ ক্ষমতা গড়ে তুলতে পারে নতুন নতুন গুদাম তৈরী করার মাধ্যমে।

চলতি বছরের ছয়টি অনুষ্ঠানের একটিতে সরাসরি কৃষকদের বক্তব্য শুনেছেন অর্থমন্ত্রী মিঃ মুহিত।

একটি টেলিভিশন চ্যানেলের আয়োজনে এ ধরনের অনুষ্ঠান এবং পরে পেশ করা সুপারিশ বাজেট তৈরীতে কতটা সহায়তা করে, তা জানতে চাইলে তিনি বলেন যে এর মাধ্যমে মাঠপর্যায়ের প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়।

“এমনকি আপনি যদি একটি সুপারিশ প্রত্যাখ্যানও করেন, তাহলেও এর মানে দাড়ায় যে এটি আপনার নজর কেড়েছে। সেটিই তো বড় কথা।“

কৃষিখাতে ভর্তুকি বাড়ানোর বিষয়ে সুপারিশ করা হলেও অর্থমন্ত্রী বলেন যে চলতি বছরে ভর্তুকির পরিমান অত্যন্ত বেশী হয়ে যাওয়ায় সরকার বরং ভর্তুকির পরিমান কমানোর উপায় খুঁজছে।

সর্বশেষ সংবাদ

অডিও খবর

ছবিতে সংবাদ

বিশেষ আয়োজন

BBC navigation

BBC © 2014 বাইরের ইন্টারনেট সাইটের বিষয়বস্তুর জন্য বিবিসি দায়ী নয়

কাসকেডিং স্টাইল শিট (css) ব্যবহার করে এমন একটি ব্রাউজার দিয়ে এই পাতাটি সবচেয়ে ভাল দেখা যাবে৻ আপনার এখনকার ব্রাউজার দিয়ে এই পাতার বিষয়বস্তু আপনি ঠিকই দেখতে পাবেন, তবে সেটা উন্নত মানের হবে না৻ আপনার ব্রাউজারটি আগ্রেড করার কথা বিবেচনা করতে পারেন, কিংবা ব্রাউজারে css চালু কতে পারেন৻