BBC navigation

বিরোধী জোটের পরিকল্পনার কী লক্ষ্য?

সর্বশেষ আপডেট মঙ্গলবার, 28 অগাষ্ট, 2012 15:59 GMT 21:59 বাংলাদেশ সময়
ঢাকায় বিএনপির সমাবেশ

ঢাকায় বিএনপির সমাবেশ

বাংলাদেশে বিএনপির নেতৃত্বাধীন বিরোধী জোট নির্দলীয় সরকারের দাবিতে আগামী দু’মাস জুড়ে সভা-সমাবেশসহ গণসংযোগের কর্মসূচি দিয়েছে।

বিএনপি’র এই নতুন কর্মসূচি অনুযায়ী দলের চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া দেশের বিভিন্ন মহানগর এবং জেলা সফর করবেন।

এর পাশাপাশি বিএনপি’র নেতৃত্বে ১৮-দলীয় জোটের নেতারা দেশব্যাপী গণসংযোগ কর্মসূচি পালন করবেন। যদিও এর আগে বিএনপি ঈদের পর কঠোর কর্মসূচি দেওয়ার কথা বলেছিল।

তবে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগির বলেছেন, সরকারবিরোধী আন্দোলনের নতুন ধারা সৃষ্টি করতেই তারা এ ধরনের কর্মসূচি নিয়েছেন।

বিএনপির সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারনী ফোরামের বৈঠকের পর সোমবার ১৮-দলীয় জোটের বৈঠক হয়। এর পরই মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।

অন্যদিকে, নির্দলীয় সরকারের রূপরেখা তৈরির উদ্যোগের কথা এর আগে বিএনপির পক্ষ থেকে তুলে ধরা হয়েছিল। সেই অবস্থান থেকে দলটি সরে এসেছে।

এখন দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগির বলেছেন, তারা কোন রূপরেখা তৈরি করবেন না।

নির্দলীয় সরকারের প্রধান উপদেষ্টা প্রশ্নে কোন আলোচনা হলে তারা তাতে রাজি আছেন।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগিরসহ দলের শীর্ষপর্যায়ের অনেক নেতাই আন্দোলনের পাশাপাশি নির্দলীয় সরকারের রূপরেখা তৈরির উদ্যোগের কথা বলে আসছিলেন।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগির

তাদের বক্তব্য ছিল, সংবিধানে এর আগে ত্রয়োদশ সংশোধনীতে যে তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা ছিল, তার আলোকে প্রধান উপদেষ্টা নিয়োগ এবং ঐ সরকারের মেয়াদ সুনির্দিষ্ট করাসহ কিছু বিষয়ে তাদের রূপরেখায় থাকবে। কিন্তু মি. আলমগির এখন বলেছেন, তারা কোন রূপরেখা তৈরি করবেন না।

তিনি বলেন, ''আমরা রূপরেখা তৈরির কোন চিন্তা এখন করছি না। আমরা চিন্তা করছি, সরকার যদি নীতিগতভাবে আমাদের দাবির ব্যাপারে রাজি হয়, তাহলে শুধু প্রধান উপদেষ্টা নিয়োগের বিষয়ে সরকারের সাথে আমরা আলোচনা করতে পারি। যেহেতু আদালতের রায় অনুযায়ী প্রধান উপদেষ্টা নিয়োগের ব্যাপারে প্রশ্ন রয়েছে।''

বিএনপির অন্য একজন নেতা জানিয়েছেন, আন্দোলনের শুরু থেকেই তারা দাবি করে আসছিলেন নির্দলীয় সরকার ব্যবস্থা সংবিধানে যা ছিল, সেটাকেই পুনর্বহাল করতে হবে, এবং তাতে সরকারকেই এগিয়ে আসতে হবে।

এই প্রশ্নে বিএনপির পক্ষ থেকে কোন রূপরেখা দেয়া হলে, তখন তাদের অবস্থান থেকে সরে আসা বা ছাড় দেওয়া বোঝাতে পারে। এমন বক্তব্য উঠেছে বিএনপির ভিতরে।

নেতারা উল্লেখ করেছেন আলোচনার প্রশ্নেও তাদের দাবির ব্যাপারে নৈতিক সমর্থন জানিয়ে সরকারকেই উদ্যোগ নিতে হবে।

বিএনপি নিজেই আলোচনার কোন উদ্যোগ নিতে রাজি নয়।

একই ধরনের খবর

BBC © 2014 বাইরের ইন্টারনেট সাইটের বিষয়বস্তুর জন্য বিবিসি দায়ী নয়

কাসকেডিং স্টাইল শিট (css) ব্যবহার করে এমন একটি ব্রাউজার দিয়ে এই পাতাটি সবচেয়ে ভাল দেখা যাবে৻ আপনার এখনকার ব্রাউজার দিয়ে এই পাতার বিষয়বস্তু আপনি ঠিকই দেখতে পাবেন, তবে সেটা উন্নত মানের হবে না৻ আপনার ব্রাউজারটি আগ্রেড করার কথা বিবেচনা করতে পারেন, কিংবা ব্রাউজারে css চালু কতে পারেন৻