BBC navigation

সিরিয়ায় আবার যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ

সর্বশেষ আপডেট শুক্রবার, 2 নভেম্বর, 2012 12:45 GMT 18:45 বাংলাদেশ সময়
হত্যাকান্ড পরবর্তী দৃশ্য। (ভিডিও চিত্র থেকে)

হত্যাকান্ড পরবর্তী দৃশ্য। (ভিডিও চিত্র থেকে)

সিরিয়ার বিদ্রোহীরা একদল সরকারি সৈন্যকে বন্দী অবস্থায় হত্যা করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

ইন্টারনেটে প্রকাশ করা ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, উত্তেজিত বন্দুকধারীরা আল্লাহু আকবর ধ্বনি দিয়ে বন্দীদের লাথি মারছে, তারপর গুলির শব্দ শোনা যায়, এরপর দেখা যায় মাটিতে লাশের স্তুপের ছবি।

জাতিসংঘের মানবাধিকার কমিশনার বলেছেন, ভিডিওর এই ঘটনা সত্যি কিনা তা যাচাই করে দেখার দরকার আছে। তবে ঘটনা যদি সত্যি হয়, তা যুদ্ধাপরাধের পর্যায়ে পড়ে।

একটি চরমপন্থী ইসলামী গোষ্ঠী এই ঘটনার পেছনে আছে বলে দাবি করা হচ্ছে।

সিরিয়ায় বর্তমানে মানবাধিকার লংঘনের ঘটনা নিয়ে জাতিসংঘ যে দলিল তৈরি করছে তাতে সর্বশেষ যুক্ত হলো এই হতবাক করা ভিডিওচিত্র।

জাতিসংঘ মানবাধিকার বিষয়ক কমিশনের মুখপাত্র রূপার্ট কোলভিল বলছেন, আত্মসমর্পনের পরও সৈন্যদের হত্যা করা আন্তর্জাতিক আইনের পরিপন্থী।

তিনি জানান, এই ভিডিওটি সতর্কভাবে যাচাই করা হবে। অভিযোগ হচ্ছে এই সব সৈন্যরা আর লড়াই করছিল না, তারপরও এই ঘটনা ঘটায় এটা যুদ্ধপরাধের পর্যায়ে পড়ে।

মি. কোলভিল সিরিয়ায় বিবাদমান সকল গোষ্ঠীর প্রতি আবার আহ্বান জানান যেন তারা সংঘাতের আন্তর্জাতিক রীতিনীতি মেনে চলেন।

জাতিসংঘ বলছে এই ধরনের ঘটনায় যারাই জড়িত থাকবে তারাই বিচারের মুখোমুখি হবে।

শেষ পর্যন্ত ভিডিওটি যদি সত্যি বলে প্রমাণিত হয়, তাহলে সিরিয়ায় মানবাধিকার লংঘনের ঘটনা নিয়ে জাতিসংঘ এখন যেসব তদন্ত চালাচ্ছে, এটি তারই অংশ হবে।

ফলে বিষয়টা শেষ পর্যন্ত আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত পর্যন্ত গড়াতে পারে।

একই ধরনের খবর

BBC © 2014 বাইরের ইন্টারনেট সাইটের বিষয়বস্তুর জন্য বিবিসি দায়ী নয়

কাসকেডিং স্টাইল শিট (css) ব্যবহার করে এমন একটি ব্রাউজার দিয়ে এই পাতাটি সবচেয়ে ভাল দেখা যাবে৻ আপনার এখনকার ব্রাউজার দিয়ে এই পাতার বিষয়বস্তু আপনি ঠিকই দেখতে পাবেন, তবে সেটা উন্নত মানের হবে না৻ আপনার ব্রাউজারটি আগ্রেড করার কথা বিবেচনা করতে পারেন, কিংবা ব্রাউজারে css চালু কতে পারেন৻