BBC navigation

বাংলাদেশে দুদকের পদক্ষেপ নীরিক্ষা করবে বিশ্বব্যাংক

সর্বশেষ আপডেট মঙ্গলবার, 18 ডিসেম্বর, 2012 11:13 GMT 17:13 বাংলাদেশ সময়
padma bridge

বাংলাদেশে পদ্মাসেতু প্রকল্পে দুর্নীতির ষড়যন্ত্রের অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশনের পক্ষ থেকে সাতজনের বিরুদ্ধে মামলা করার একদিন পর বিশ্বব্যাংক বলছে তাদের বিশেষজ্ঞ প্যানেল দুদকের তদন্ত প্রক্রিয়া পর্যালোচনা করে রিপোর্ট দেবে।

ঢাকায় বিশ্বব্যাংকের স্থানীয় প্রধান এলেন গোল্ডস্টেইন এক প্যারার ছোট একটি লিখিত বিবৃতিতে বলেছেন, "আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত দুর্নীতি বিরোধী যে নিরপেক্ষ প্যানেল গঠন করা হয়েছে, তাঁরা দুদকের তদন্তের প্রাথমিক রিপোর্ট পর্যালোচনা করে তাঁদের রিপোর্ট দেবেন।"

মিস গোল্ডস্টেইন বলেন, "নিরপেক্ষ প্যানেলের পর্যালোচনার ওপরই ভবিষ্যতে (বাংলাদেশে) কোন প্রকল্পে বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নের সিদ্ধান্ত নির্ভর করবে।"

দুর্নীতির অভিযোগে বিশ্বব্যাংক পদ্মা সেতু প্রকল্পে অর্থায়ন স্থগিত রেখেছে।

"নিরপেক্ষ প্যানেলের পর্যালোচনার ওপরই ভবিষ্যতে (বাংলাদেশে) কোন প্রকল্পে বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নের সিদ্ধান্ত নির্ভর করবে"

এলেন গোল্ডস্টেইন, ঢাকায় বিশ্বব্যাংক প্রতিনিধি

বিশ্বব্যাংকের অভিযোগের তীর মূলত সাবেক যোগাযোগমন্ত্রী সৈয়দ আবুল হোসেনের দিকে থাকলেও দুদকের মামলায় তাঁকে আসামী করা হয়নি। তাঁকে এবং আরেক সাবেক মন্ত্রী আবুল হাসান চৌধুরীকে সন্দেহের তালিকায় রাখা হয়েছে।

সোমবার দুদকের এর দায়ের করা এই মামলায় সাতজন সাবেক সরকারি কর্মকর্তাকে অভিযুক্ত করা হয়েছে।

কমিশন বলেছে, যথেষ্ট তথ্য প্রমাণ না পাওয়ায় সাবেক দু’জন মন্ত্রীকে সরাসরি অভিযুক্ত করা না হলেও সন্দেহের তালিকায় রাখা হয়েছে।এখন তদন্তে দু’জন সাবেক মন্ত্রীর বিরুদ্ধে তথ্যপ্রমাণ খোঁজা হবে।

যথেষ্ট তথ্য প্রমাণ না পাওয়ায় তাদেরকে অভিযুক্ত না করে সন্দেহের তালিকায় রাখার কথা বলছে দুদক।

মামলার পূর্ণ তদন্তে দুদকে কমিটি গঠণ

ওদিকে মামলা করার একদিন পরই দুদক মামলার পূর্ণ তদন্তের জন্য মঙ্গলবার চার সদস্যের একটি কমিটি গঠণ করেছে।

দুদকের কর্মকর্তারাই এই কমিটিতে রয়েছে। বলা হয়েছে যত দ্রুত সম্ভব এই কমিটি তাদের তদন্ত শেষ করবেন।

দুদকের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, প্রাথমিক অনুসন্ধানের পর সোমবার যে মামলা হলো, দুদকের আইন অনুযায়ী সর্ব্বোচ্চ ৬০ কার্যদিবসের মধ্যে দুদকই তার তদন্ত করে চার্জশিট দেবে। যার ভিত্তিতে বিচার কার্যক্রম শুরু হবে।

syed abul hossain

আসামীর তালিকায় নেই সাবেক মন্ত্রী সৈয়দ আবুল হোসেন

সেতু বিভাগের সাবেক সচিব মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়াসহ যে সাতজনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে, তাদের মধ্যে রয়েছেন সেতু বিভাগেরই সাবেক দু’জন কর্মকর্তা এবং ক্যানাডিয়ান পরামর্শক প্রতিষ্ঠান এসএনসি লাভালিনের স্থানীয় প্রতিনিধিসহ চারজন কর্মকর্তা ।

এমন অবস্থানের পক্ষে সংবাদ সম্মেলন করে যুক্তি তুলে ধরেছেন মামলার বাদী এবং দুদকের উপ পরিচালক আব্দুল্লাহ আল জাহিদ।

তিনি বলেন, ''যাদের দায়দায়িত্ব দন্ডবিধির আওতায় নির্ধারণ করা হয়েছে, তাদেরকে সরাসরি অভিযুক্ত করা হয়েছে। আর যাদের দায়দায়িত্ব নির্ধারণের ক্ষেত্রে কিছু তথ্যপ্রমাণ এখনও পাওয়া যায়নি। তাদেরকেই সন্দেহের তালিকায় রাখা হয়েছে।''

শিগগিরই কিছু তথ্য প্রমাণ পাওয়া গেলে বিষয়গুলো দৃশ্যমান এবং পরিস্কার হবে। তখন সবাই সন্তুষ্ট হবেন বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

অভিযোগের অনুসন্ধান যখন চলছিল, তখনও সাবেক ঐ দু’জন মন্ত্রী এবং প্রধানমন্ত্রীর অর্থ বিষয়ক উপদেষ্টা মশিউর রহমানসহ অনেককে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছিল।

বিশ্বব্যাংকের আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞ প্যানেলও দু’দফায় ঢাকায় এসে দুদকের অনুসন্ধান কাজ নিয়ে কথাবার্তা বলেছে।

"বিশ্বব্যাংকের দিক থেকে সৈয়দ আবুল হোসেনকে অভিযুক্ত করার জন্য বলা হয়েছিল। আমরা বলেছি, সৈয়দ আবুল হোসেনকে অভিযুক্ত করার মতো তথ্য প্রমাণ কিছু নেই।"

আনিসুল হক, দুদকের প্রধান কৌঁসুলি

অভিযুক্ত কারা হবেন, তা নিয়ে দুদক এবং বিশ্বব্যাংকের প্যানেলের মধ্যে ঐক্যমত্য হয়নি। এমন খবরও সংবাদমাধ্যমে প্রকাশ হয়েছিল।

দুদকের প্রধান কৌঁসুলি আনিসুল হক বলেন, ''বিশ্বব্যাংকের দিক থেকে সৈয়দ আবুল হোসেনকে অভিযুক্ত করার জন্য বলা হয়েছিল। আমরা বলেছি, সৈয়দ আবুল হোসেনকে অভিযুক্ত করার মতো তথ্য প্রমাণ কিছু নেই।''

''তখন বিশ্বব্যাংক বলেছিল, তদন্ত এলে তখন কি হবে। তাতে আমাদের জবাব ছিল , তদন্ত তথ্য প্রমাণ এলে ,অবশ্যই তাকে অভিযুক্ত করা হবে।''

তবে অন্য সাতজন অভিযুক্তের ব্যাপারে দুদক এবং বিশ্বব্যাংক একমত হয়েছিল বলেও আনিসুল হক উল্লেখ করেন।

তিনি আরও জানান, ঘটনায় যেহেতু অর্থের লেনদেন হয়নি সেকারণে মামলায় দুর্নীতির ষড়যন্ত্রের অভিযোগ আনা হয়েছে। "বিশ্বব্যাংক এবং দুদক -- দু’পক্ষই এতে একমত ছিল"।

একই ধরনের খবর

সম্পর্কিত বিষয়

BBC © 2014 বাইরের ইন্টারনেট সাইটের বিষয়বস্তুর জন্য বিবিসি দায়ী নয়

কাসকেডিং স্টাইল শিট (css) ব্যবহার করে এমন একটি ব্রাউজার দিয়ে এই পাতাটি সবচেয়ে ভাল দেখা যাবে৻ আপনার এখনকার ব্রাউজার দিয়ে এই পাতার বিষয়বস্তু আপনি ঠিকই দেখতে পাবেন, তবে সেটা উন্নত মানের হবে না৻ আপনার ব্রাউজারটি আগ্রেড করার কথা বিবেচনা করতে পারেন, কিংবা ব্রাউজারে css চালু কতে পারেন৻