BBC navigation

দিল্লিতে গণধর্ষিতার মরদেহের সৎকার সম্পন্ন

সর্বশেষ আপডেট রবিবার, 30 ডিসেম্বর, 2012 18:36 GMT 00:36 বাংলাদেশ সময়
delhi rape protest

দিল্লিতে প্রতিবাদ বিক্ষোভ

ভারতের দিল্লিতে বাসে গণধর্ষণের শিকার তরুণীর মৃতদেহের সৎকার শেষ হয়েছে।

ভোরে ভারত সরকারের একটি বিশেষ বিমানে করে তার মরদেহ সিঙ্গাপুর থেকে দিল্লীতে আনা হয়।

তার ঘণ্টা খানেক পরই সৎকার কাজ সম্পন্ন করা হয়।

এসময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন পরিবারের সদস্য ও ভারত সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

ভোরে দিল্লিতে বিমানবন্দরে তার মরদেহ গ্রহণ করেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং এবং কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী।

সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে গণধর্ষণের শিকার ওই তরুণীর মৃত্যু হয় শুক্রবার রাতে, ভারতীয় সময় সোয়া দুটোয়৻ এ সময় তাঁর পাশে ছিলেন বাবা-মা আর সিঙ্গাপুরে ভারতীয় রাষ্ট্রদূত৻

শুক্রবার থেকেই তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হচ্ছিল৻ শেষে একাধিক অঙ্গ বিকল হয়ে যায় ও কয়েকবার হার্ট অ্যাটাকও হয় ওই তরুণীর৻

দিল্লিতে প্রায় দু সপ্তাহ আগে গণ-ধর্ষণের শিকার ২৩ বছরের এই তরুণীর মৃত্যুতে সারা দেশ জুড়ে যে বিক্ষোভ শুরু হয়, তা অব্যাহত থাকে শনিবার রাতেও৻

বিক্ষোভকারীরা নারীর নিরাপত্তা বিধানে সরকারের আরও কার্যকর ভূমিকা নেবার দাবি জানান। তেমনই এক বিক্ষোভে গিয়েছিলেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী শিলা দিক্ষিত এবং সেখানে তিনি বিক্ষোভকারীদের তোপের মুখে পড়েন।

তিনি বলেন, ‌‌ ‘বিক্ষোভকারীরা সরকারের প্রতি ক্রুদ্ধ হতে পারেন, পুলিশের ওপরও ক্রুদ্ধ হতে পারেন। কিন্তু আমার মনে হয় এই বিক্ষোভ একটু শান্ত হয়ে গেলে সমাজের ভেতরেও এখন এ প্রশ্ন ওঠা উচিত যে কেন এ ধরনের একটি ঘটনা ঘটল। তবে আমি এতো বড় প্রতিক্রিয়া আশা করিনি।‌’

মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে দিল্লি পুলিশ নিরাপত্তা ব্যবস্থা কঠোর করে দেয় ভোর থেকে৻ শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে কয়েক হাজার পুলিশ ও আধাসামরিক বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে এবং অনেক রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছে।

ওদিকে এই ঘটনায় গ্রেপ্তার হওয়া ছয় অভিযুক্তের বিরুদ্ধে হত্যার অভিযোগও আনা হয়েছে, বিচারে দোষী সাব্যস্ত হলে তাদের মৃত্যুদণ্ড দেয়া হবে। ভারত সরকার বলছে এর বিচার দ্রুত করা হবে এবং ভারতীয় সমাজে নারীর প্রতি মনোভাব পরিবর্তনেও ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বিক্ষোভ বাড়ছে

rape protest

ধর্ষণের অভিযোগে পুলিশের নিষ্ক্রিয় আচরণের বিরুদ্ধেও সোচ্চার বিক্ষোভ হচ্ছে দিল্লি জুড়ে

যত সময় বেড়েছে, মৃত্যুর খবর গণমাধ্যমে আর সামাজিক যোগাযোগরক্ষাকারী সাইটগুলোর মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে তত আর বিক্ষোভে যোগ দেওয়া মানুষের সংখ্যাও বেড়েছে তত৻

গত দেড় সপ্তাহ ধরে গণধর্ষণের বিরুদ্ধে ও মহিলাদের নিরাপত্তার দাবিতে বিক্ষোভ দেখাচ্ছে যেসব সংগঠনগুলো, তারই একটির নেত্রী রঞ্জনা কুমারী বলছিলেন, “গোটা দেশের মানুষ আজ একদিকে যেমন শোক পেয়েছেন, তেমনই সবাই ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেছে সবাই৻ সরকারের কাছে মানুষ জবাব চাইছেন। ভবিষ্যতে মহিলাদের ওপরে এরকম জঘন্য অত্যাচার যে আর হবে না, তার নিশ্চয়তা চাইছে মানুষ৻”

দিল্লি ছাড়াও কলকাতা, মুম্বই, বেঙ্গালুরু, লখনোউ, আহমেদাবাদ – সব শহরেই সাধারণ মানুষ শোক মিছিল, মোমবাতি মিছিল করছেন রাত পর্যন্ত৻ মানুষের মধ্যে ক্ষোভ রয়েছে, কিন্তু কোথাওই প্রতিবাদ বিক্ষোভ সহিংস হয়ে ওঠে নি৻

মানুষ বলছেন, আজ হিংসার দিন নয় – শান্তভাবে ওই তরুণীকে স্মরণ করার দিন আর এই শপথ নেওয়ার দিন, যাতে আর কোনও মহিলাকে এভাবে প্রাণ দিতে না হয়৻

এই ধর্ষণের অভিযোগে আটক ছয় ব্যক্তির বিরুদ্ধে পুলিশ হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানা গেছে।

২৩ বছরের এই যুবতীকে দিল্লির এক চলন্ত বাসে গণধর্ষণের ঘটনার পর ভারত জুড়ে ব্যাপক প্রতিবাদ বিক্ষোভ চলছে পুলিশ ও বিচার ব্যবস্থায় আমূল পরিবর্তন আনার দাবিতে এবং রাজধানীতে মেয়েদের সুরক্ষা নিশ্চিত করার দাবিতে।

একই ধরনের খবর

সম্পর্কিত বিষয়

BBC © 2014 বাইরের ইন্টারনেট সাইটের বিষয়বস্তুর জন্য বিবিসি দায়ী নয়

কাসকেডিং স্টাইল শিট (css) ব্যবহার করে এমন একটি ব্রাউজার দিয়ে এই পাতাটি সবচেয়ে ভাল দেখা যাবে৻ আপনার এখনকার ব্রাউজার দিয়ে এই পাতার বিষয়বস্তু আপনি ঠিকই দেখতে পাবেন, তবে সেটা উন্নত মানের হবে না৻ আপনার ব্রাউজারটি আগ্রেড করার কথা বিবেচনা করতে পারেন, কিংবা ব্রাউজারে css চালু কতে পারেন৻