BBC navigation

কলকাতায় গণধর্ষণের অভিযোগে ধৃতদের বিরুদ্ধে চার্জ গঠন

সর্বশেষ আপডেট বুধবার, 20 ফেব্রুয়ারি, 2013 18:02 GMT 00:02 বাংলাদেশ সময়
rape protest

ভারতের বিভিন্ন শহরে সম্প্রতি ধর্ষণের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ বিক্ষোভ হয়েছে- ফাইল চিত্র

ভারতের কলকাতায় এক বছর আগে একটি চলন্ত গাড়ীতে গণধর্ষণের অভিযোগে ধৃত তিনজনের বিরুদ্ধে মঙ্গলবার স্থানীয় একটি আদালতে চার্জ গঠন করা হয়েছে৻

আগামী মাসের গোড়া থেকে মূল বিচারপর্ব শুরু হবে বলেও জানানো হয়েছে৻

পার্ক-স্ট্রিট গণধর্ষণ কান্ড নামে পরিচিত ওই ঘটনায় অভিযোগ একজন মধ্যবয়সী মহিলাকে বাড়ি পৌঁছিয়ে দেওয়ার নাম করে চলন্ত গাড়ীতেই ধর্ষণ করেছিল পাঁচজন৻

প্রথমে পুলিশ ওই ধর্ষণের অভিযোগ আমলেই নেয় নি আর তদন্তের আগেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী ঘটনাটিকে সাজানো বলে মন্তব্য করেছিলেন৻

পরে অবশ্য গোয়েন্দারা ধর্ষণের প্রমাণ পান, কিন্তু তারপরেই সরিয়ে দেওয়া হয় পুলিশের গোয়েন্দা প্রধানকে৻

আদালতে ধৃতদের যে চার্জ পড়ে শোনানো হয়, তাতে তিন অভিযুক্ত - সুমিত বাজাজ, রুমন খান ও নাসির খান – সবার বিরুদ্ধেই গণধর্ষণ ও ষড়যন্ত্রের অভিযোগ আনা হয়েছে৻ দুজনের বিরুদ্ধে মারধর ও হুমকির অভিযোগও রয়েছে৻

মূল অভিযুক্ত কাদের খান এবং আরও একজন এখনও ফেরার রয়েছেন৻

মার্চের গোড়া থেকে মূল বিচারপর্ব শুরু হবে৻

গতবছর ৫ ফেব্রুয়ারি রাতে কলকাতার পার্ক স্ট্রিটের একটি পাঁচতারা হোটেলের নাইটক্লাব থেকে ওই মহিলাকে নিয়ে গাড়িতে করে বেরিয়েছিলেন অভিযুক্তরা তার ক্লোজড সার্কিট ক্যামেরার ছবি, তাদের গাড়ি থেকে পাওয়া ধর্ষণের প্রমাণ, ডিএনএ পরীক্ষার রিপোর্ট, ইত্যাদি পড়ে শোনানো হয় অভিযুক্তদের৻

এই ঘটনাটা নিয়ে গোটা পশ্চিমবঙ্গেই চাঞ্চল্য তৈরি হয়েছিল ৻

অন্যান্য শহরে চলন্ত গাড়িতে গণধর্ষণের কথা শোনা গেলেও কলকাতার প্রাণকেন্দ্রে রাজপথে দীর্ঘক্ষণ ধরে একটি গাড়িতে গণধর্ষন করা হচ্ছে, পুলিশের নজরে পড়ছে না, আবার ভোররাতে একটা থানার কাছেই গাড়ি থেকে ধর্ষিতাকে ফেলে দেওয়া হচ্ছে– এটা একটা বিরল ঘটনা৻

ঘটনাটা নিয়ে পুলিশ-প্রশাসনের ভূমিকার কারণেও সরকারের ব্যাপক সমালোচনা হয়৻

পুলিশ প্রথমে ৩৭ বছর বয়সী বিবাহবিচ্ছিন্না ওই অ্যাঙ্গলো ইন্ডিয়ান মহিলার অভিযোগই নিতে চায় নি৻ তারপরে যখন সংবাদমাধ্যমের খবর প্রকাশিত হয়ে যায়, তখন আবার তদন্ত শুরুর আগেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী বলে দেন যে সরকারের বেকায়দায় ফেলার জন্য ঘটনাটা সাজানো হয়েছে৻ পুলিশ কমিশনারকে দিয়েও প্রায় একই বয়ান দেওয়ানো হয়৻

মুখ্যমন্ত্রীর মন্তব্য নিয়ে যখন ব্যাপক সমালোচনা চলছে, তখনই পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ প্রাথমিক তদন্তে গণধর্ষনের প্রমাণ পাওয়ার কথা ঘোষণা করে দেয়৻

মুখ্যমন্ত্রী যেটাকে সাজানো ঘটনা বলেছিলেন, সেটাকে গণধর্ষণ বলে দেওয়াতে কয়েকদিনের মধ্যেই কম গুরুত্বপূর্ণ একটি পদে বদলি করা হয় কলকাতার প্রথম মহিলা গোয়েন্দা প্রধান দময়ন্তী সেনকে৻

মুখ্যমন্ত্রীর ‘সাজানো ঘটনা’ মন্তব্যের পরে কয়েকজন রাজ্যের এক মন্ত্রী ওই মহিলা যৌনকর্মী কী না – সেই ইঙ্গিতবাহী প্রশ্ন করেছিলেন৻ ‌

কয়েকদিন আগে তৃণমূল কংগ্রেসের এক মহিলা সাংসদ আবার সেই ইঙ্গিত দিয়ে বলেন যে পার্ক স্ট্রিটের ঘটনা কোনও ধর্ষণ নয়, ওই মহিলা আর তাঁর ক্লায়েন্টদের মধ্যে দরদাম নিয়ে অশান্তি৻

চার্জ তৈরি হওয়া আর মূল বিচার শুরু হওয়ার পরে সরকার কোনও প্রতিক্রিয়া দেয় নি৻ ক্ষমতাসীন দলের তরফেও কিছু বলা হয় নি৻

তবে এই মামলায় সরকারের দায়সারা মনোভাবের জন্য সম্প্রতি দেশের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্ট ক্ষোভ প্রকাশ করেছিল৻

সম্পর্কিত বিষয়

BBC © 2014 বাইরের ইন্টারনেট সাইটের বিষয়বস্তুর জন্য বিবিসি দায়ী নয়

কাসকেডিং স্টাইল শিট (css) ব্যবহার করে এমন একটি ব্রাউজার দিয়ে এই পাতাটি সবচেয়ে ভাল দেখা যাবে৻ আপনার এখনকার ব্রাউজার দিয়ে এই পাতার বিষয়বস্তু আপনি ঠিকই দেখতে পাবেন, তবে সেটা উন্নত মানের হবে না৻ আপনার ব্রাউজারটি আগ্রেড করার কথা বিবেচনা করতে পারেন, কিংবা ব্রাউজারে css চালু কতে পারেন৻