BBC navigation

বাংলাদেশে হরতালের দ্বিতীয় দিনে নিহত ৩, রাজধানীতে ট্রেনে আগুন

সর্বশেষ আপডেট সোমবার, 4 মার্চ, 2013 17:20 GMT 23:20 বাংলাদেশ সময়
আগুন নেভানোর চেস্টায় ব্যস্ত রেলওয়ে কর্মীরা

আগুন নেভানোর চেস্টায় ব্যস্ত রেলওয়ে কর্মীরা

বাংলাদেশে বিরোধী দল জামায়াতে ইসলামীর ডাকে তিনদিনের টানা হরতালের দ্বিতীয় দিনে রাজধানী ঢাকা এবং বিভিন্ন জেলায় সহিংসতায় তিন জন নিহত হয়েছে। পুলিশের গুলিতে আহত হয়েছে বেশ কিছু লোক।

রাজধানী ঢাকায় কমলাপুর রেলস্টেশনে একটি আন্তঃনগর ট্রেনে অগ্নি সংযোগ করা হয়েছে।

কর্মকর্তারা বলছেন, নোয়াখালী থেকে ঢাকায় পৌঁছানোর পর আন্তঃনগর উপকূল এক্সপ্রেস ট্রেনটির সবশেষের দুটি বগিতে আগুন লাগানো হয়। এ সময় সেখানে ককটেল বিস্ফোরণেরও শব্দ শোনা যায়।

দমকল বাহিনী পরে ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুনে ট্রেনটির একটি বগি সম্পূর্ণ পুড়ে গেছে। এবং একটি বগি মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

বাংলাদেশ সফররত ভারতের রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায় যে হোটেলে অবস্থান করছেন তার কাছেই একটি ঘরে তৈরি হাতবোমা নিক্ষেপ করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, সোনারগাঁ হোটেলের কাছে সার্ক ফোয়ারার কাছে দুপুরের দিকে একটা ককটেল বিস্ফোরণ ঘটে।

চলন্ত গাড়ি থেকে ককটেলটি ছোঁড়া হযেছে বলে পুলিশ ধারণা করছে।

দু'দিনের হরতাল পালন শেষে সন্ধ্যায় জামায়াতের ওয়েবসাইটে দেয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে তাদের আন্দোলন দমন করার জন্য বৃহস্পতিবার থেকে সোমবার পর্যন্ত সরকারি হামলায় শিশু, ও নারীসহ ১৪৩ জন নিহত হযেছেন এবং ১০০০০ মানুষ আহত হয়েছেন।

বিবৃতিতে বলা হয়, এরপরও তাদের আন্দোলন কর্মষূচি চলবে এবং মঙ্গলবার নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

সোনারগাঁ হোটেলের কাছে বোমা হামলার জায়গায় পুলিশ

সোনারগাঁ হোটেলের কাছে বোমা হামলার জায়গায় পুলিশ

সাতক্ষীরার পুলিশ সুপার মো আসাদুজ্জামান বিবিসি বাংলাকে জানিয়েছেন, কলারোয়া থানা এলাকায় সোমবার সকালে হরতাল সমর্থক লোকজন গাছের গুড়ি ফেলে রাস্তা অবরোধ করে এবং যান চলাচল ব্যহত হয়।

পরে পুলিশ রাস্তা চলাচল স্বাভাবিক করা উদ্যোগ নিলে সেখানে তারা হরতালকারীদের হামলার শিকার হয় এবং পুলিশ এসময় গুলি ছোঁড়ে। এ ঘটনায় জামায়াত- শিবিরের দুজন কর্মী নিহত হন।

পরিস্থিতি এরপর অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে আসে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ার পূর্ব দেলুয়া বাজার এলাকায় সকালে হরতাল সমর্থকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষে নিহত হন একজন কিশোর।

সরকারি কর্মকর্তারা বলছেন, নাশকতা ও আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির আশঙ্কায় উল্লাপাড়া পৌর সদর এবং বোয়ালিয়া থেকে বালশাবাড়ি এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে।

পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত এই আদেশ বলবৎ থাকবে বলে তারা বলছেন।

ওসি বিমান কুমার দাস আরও জানান, জামায়াত-শিবিরের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনায় বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত ৩ জামায়াত-শিবিরকর্মীকে আটক করা হয়েছে। এ বিষয়ে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

এর আগে রোববার টানা হরতালের প্রথম দিনে হরতাল সমর্থকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষে পুলিশসহ অন্তত ১৬ জন নিহত হয়।

পুলিশের ওপর বিক্ষোভকারীদের ইটপাটকলে নিক্ষেপ

পুলিশের ওপর বিক্ষোভকারীদের ইটপাটকলে নিক্ষেপ

বগুড়া, রাজশাহী, জয়পুরহাট, গাজিপুর এবং ঝিনাইদহে পুলিশের সঙ্গে হরতাল সমর্থকদের সংঘর্ষের ঘটনায় মৃত্যুর এই ঘটনা ঘটে।

এর মধ্যে বগুড়ায় নয় জন, রাজশাহীর গোদাগাড়িতে দু'জন, জয়পুরহাটে তিন জন, ঝিনাইদহতে একজন এবং গাজিপুরের শ্রীপুরে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে।

বগুড়ার বেশ কয়েকটি পুলিস স্টেশনে সকাল থেকে হরতাল সমর্থকদের সাতে পুলিশের যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে তাতে হতাহতের ঘটনা সবচেয়ে বেশি।

সোমবার সকালে পুলিশের রংপুর রেঞ্জের উপ মহাপরিদর্শক ইকবাল বাহার জানিয়েছেন, গতকালের সহিংসতার পর থেকে পরিস্থিতি এখনো পর্যন্ত শান্ত রয়েছে।

বগুড়ার পরিস্থিতিও শান্ত রয়েছে বলে জানিয়েছেন জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আব্দুল ওয়ারিশ।

সকালে হরতাল সমর্থনে মিছিল বের হলে পুলিশ তাদেরকে ছত্রভঙ্গ করে দেয় বলেও জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।

জামায়াত নেতা দেলেয়ার হোসেন সাঈদীর ফাঁসির রায়ের পর জামায়াতে ইসলামীর রোববার থেকে টানা ৪৮ ঘন্টার হরতালের ডাক দেয়া হয়।

একই ধরনের খবর

BBC © 2014 বাইরের ইন্টারনেট সাইটের বিষয়বস্তুর জন্য বিবিসি দায়ী নয়

কাসকেডিং স্টাইল শিট (css) ব্যবহার করে এমন একটি ব্রাউজার দিয়ে এই পাতাটি সবচেয়ে ভাল দেখা যাবে৻ আপনার এখনকার ব্রাউজার দিয়ে এই পাতার বিষয়বস্তু আপনি ঠিকই দেখতে পাবেন, তবে সেটা উন্নত মানের হবে না৻ আপনার ব্রাউজারটি আগ্রেড করার কথা বিবেচনা করতে পারেন, কিংবা ব্রাউজারে css চালু কতে পারেন৻