BBC navigation

বিশ্বজিৎ হত্যা মামলায় ২১ জনকে আসামি করে অভিযোগপত্র

সর্বশেষ আপডেট মঙ্গলবার, 5 মার্চ, 2013 10:36 GMT 16:36 বাংলাদেশ সময়
বিশ্বজিৎ হত্যা  মামলায় ২১ জনকে আসামী করে অভিযোগপত্র

গত বছর বিএনপির অবরোধ কর্মসূচির সময় ক্যামেরার সামনে বিশ্বজিৎ দাসকে নির্মমভাবে খুন করা হয়

বাংলাদেশের পুরান ঢাকায় চাঞ্চল্যকর বিশ্বজিৎ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় পুলিশ ২১ জনকে আসামী করে অভিযোগপত্র দিয়েছে।

হত্যাকাণ্ডের প্রায় তিন মাস পর ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে এই অভিযোগপত্র দেওয়া হলো।

অভিযুক্তরা সবাই জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের অতিরিক্ত উপ কমিশনার সানোয়ার হোসেন।

তিনি জানান, বিশ্বজিৎকে হত্যার সাথে জড়িত থাকার সন্দেহে মোট ১১ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিলো। তার মধ্যে সাত জন এখনো গ্রেপ্তার আছে।

বাকি চারজনের বিরুদ্ধে হত্যার সাথে সংশ্লিষ্টতার কোন প্রমাণ না থাকার কারণে ওই চারজনকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে।

আসামীদের মধ্যে ১৪ জন এখনো পলাতক রয়েছে।

পুলিশ বলছে, ভিডিও ফুটেজ দেখে অভিযুক্তদের অনেককেই চিহ্নিত করা হয়েছে।

বিভিন্ন টেলিভিশন চ্যানেলের ক্যামেরার সামনে এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা সারাদেশে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি করে।

হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় অভিযুক্তদের অনেকের বিরুদ্ধেই তখন ব্যবস্থা নেয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। তাদেরকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিস্কার করা হয়।

কিন্তু পুলিশ ও সরকারের পক্ষ থেকে দেওয়া নানা বক্তব্যে তখন বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয়েছিলো।

আটক ব্যাক্তির সংখ্যা নিয়ে পুলিশ ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে ভিন্ন ভিন্ন বক্তব্য দেওয়া হয়েছে।

গত বছরের ডিসেম্বর মাসে বিরোধী দল বিএনপি নেতৃত্বাধীন ১৮ দলীয় জোটের অবরোধ কর্মসূচির সময় পুরান ঢাকায় কয়েকজনের হাতে নৃশংসভাবে খুন হন এক দর্জির দোকানের কর্মী বিশ্বজিৎ দাস।

তার হত্যাকারীদের রাজনৈতিক পরিচয় নিয়ে তখন তীব্র বিতর্কের সৃষ্টি হয়।

সংবাদ মাধ্যমগুলোতে হত্যাকারীদের ছবি প্রকাশ করে তাদেরকে ক্ষমতাসীন দলের সহযোগী সঙ্গঠন ছাত্রলীগের সদস্য বলে উল্লেখ করা হয়।

সরকারের পক্ষ থেকে এই অভিযোগ অস্বীকার করা হয়।

বিশ্বজিতের হত্যাকারীরা ছাত্রলীগের সদস্য নয় বলে দাবি করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রেস সচিব।

প্রধানমন্ত্রীর দফতরে সংবাদ সম্মেলন করে তিনি বলেন যে বিশ্বজিতের হত্যাকারীরা জামায়াত শিবিরের সদস্য।

আর ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে দাবি করা হয় যে তাদেরকে সংগঠন থেকে আরো আগেই বহিষ্কার করা হয়েছে।

BBC © 2014 বাইরের ইন্টারনেট সাইটের বিষয়বস্তুর জন্য বিবিসি দায়ী নয়

কাসকেডিং স্টাইল শিট (css) ব্যবহার করে এমন একটি ব্রাউজার দিয়ে এই পাতাটি সবচেয়ে ভাল দেখা যাবে৻ আপনার এখনকার ব্রাউজার দিয়ে এই পাতার বিষয়বস্তু আপনি ঠিকই দেখতে পাবেন, তবে সেটা উন্নত মানের হবে না৻ আপনার ব্রাউজারটি আগ্রেড করার কথা বিবেচনা করতে পারেন, কিংবা ব্রাউজারে css চালু কতে পারেন৻