চার সিটি কর্পোরেশনে ১৮দলীয় জোট সমর্থিত প্রার্থীদের বিজয়

  • ১৬ জুন ২০১৩
Image caption বেসরকারি ফলাফলে বিজয়ী হয়েছেন ১৮ দলীয় জোট সমর্থিত প্রার্থীরা

বাংলাদেশের চারটি সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বেসরকারি ফলাফলে মেয়র পদে বিএনপি নেতৃত্বাধীন আঠারো দলীয় জোট সমর্থিত প্রার্থীরা বিজয়ী হয়েছেন। প্রতিটি মহানগরীতেই তাদের প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা বেশ কয়েকহাজার ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হয়েছেন।

মহানগরীগুলোয় রাতে নির্বাচন কমিশনের কন্ট্রোলরুম থেকে যে তথ্য জানানো হয়, তাতে ১৮ দলীয় জোট সমর্থিত প্রার্থীরাই বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ বিবিসি বাংলাকে বলেছেন, স্থানীয় নির্বাচনে প্রার্থীদের ব্যক্তিগত আচরণ, পরিচিতি ভোট প্রাপ্তির জন্য কাজ করে। সেখানে ১৪ দলীয় জোটের যে প্রার্থীরা ছিলেন, তাদের অনেকের ক্ষেত্রেই স্থানীয় পর্যায়ে কর্মীদের সাথে দূরত্ব ছিল, অনেক প্রাথীর অনেক প্রাথীর আচরণ নিয়েও অভিযোগ ছিল, যার প্রভাব নির্বাচনে পড়েছে।

মি. হানিফ বলছেন, জাতীয় নির্বাচনের আগে এই নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীদের পরাজয়ের বিষয়টি সংগঠনের জন্য তারা একটি সতর্কতামুলক বার্তা হিসাবেই দেখছেন।

তবে সরকারের অধীনে এই নির্বাচনে বিরোধী জোট সমর্থিত প্রার্থীর জয়ের ফলে, জাতীয় নির্বাচন নিয়ে বিরোধী জোট বরাবর যে সংশয় প্রকাশ করে আসছে, সেটির আর কোন কারণ আছে বলে তিনি মনে করেন না।

তবে বিরোধী দল বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বিবিসি বাংলাকে বলেছেন, তারা তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবিতে যে আন্দোলন করে আসছেন, এই নির্বাচনের মাধ্যমে জনগণ তাদের সেই দাবির প্রতিই সমর্থন জানিয়েছে। কারণ এই নির্বাচনে জাতীয় রাজনীতির অনেক প্রভাব পড়েছে।

মি. রিজভী বলছেন, স্থানীয় সরকার নির্বাচনের মাধ্যমে তো ক্ষমতার পালাবদল ঘটেনা। ফলে এই নির্বাচনে তাদের প্রার্থীরা জয় পেলেও, তারা তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আন্দোলন থেকে সরে আসবেন না।

রাজশাহী থেকে বিবিসি বাংলার সংবাদদাতা কাদির কল্লোল জানিয়েছেন, সাবেক মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনকে পরাজিত করে বিজয়ী হয়েছেন ১৮ দলীয় জোট সমর্থিত প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল। তাদের উভয়ের মধ্যে ভোটের ব্যবধান ৪৭ হাজার।

সিলেট থেকে সাংবাদিক আহমেদ নূর বলছেন, সাবেক মেয়র বদরউদ্দিন আহমেদ কামরানকে হারিয়ে ১৮ দলীয় জোট সমর্থিত প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী বিজয়ী হয়েছেন। মি. কামরান পেয়েছেন ৭২,১৭৩ ভোট, অপরদিকে মি. চৌধুরী পেয়েছেন ১,০৭, ৩৩০টি ভোট।

খুলনার সাংবাদিক গৌরাঙ্গ নন্দী জানিয়েছেন, খুলনায় বেশ কয়েক হাজার ভোটের ব্যবধানে তালুকদার আব্দুল খালেককে হারিয়ে বেসরকারি ফলাফলে জয় পেয়েছেন আঠারো দলীয় জোট সমর্থিত প্রার্থী মনিরুজ্জামান মনি। আনারস প্রতীকে মি. মনি পেয়েছেনে এক লাখ ৮০ হাজার ৯৩ ভোট। অপরদিকে তার প্রতিদ্বন্দ্বী পেয়েছেন মি. খালেক তালা প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন এক লাখ ১৯ হাজার ৪২২ ভোট।

রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা বাসস জানিয়েছে, বরিশাল সিটি কর্পোরেশনে মেয়র পদে বেসরকারি ফলাফলে ১৮ দলীয় জোট সমর্থিত প্রার্থী আহসান হাবিব কামাল বিজয়ী হয়েছেন। তিনি পেয়েছেন ৮৩,৭৫১ ভোট, অপরদিকে তার প্রতিদ্বন্দ্বী ১৪ দলীয় মহাজোট সমর্থিত প্রার্থী শওকত হোসেন হিরণ পেয়েছেন ৬৬, ৭৪১ ভোট।

Image caption সুষ্ঠুভাবেই শেষ হয়েছে ভোটগ্রহণ

শনিবার নির্বাচন চলার সময় বিছিন্ন সংঘর্ষের ঘটনা ঘটলেও শান্তিপূর্ণভাবেই ভোটগ্রহণ শেষ হয়েছে। কোথাও কোন বড় ধরণের সহিংসতার খবর পাওয়া যায়নি।

ফলাফল ঘোষণার পর রাজশাহীতে দুই পক্ষের সমর্থকরা মুখোমুখি অবস্থান নিলেও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

বাংলাদেশের জাতীয় নির্বাচনের কয়েকমাস আগে অনুষ্ঠিত হওয়া এই নির্বাচন নিয়ে পর্যবেক্ষকদের ছিল গভীর আগ্রহ।

এই খবর নিয়ে আরো তথ্য