আমেরিকান পরিকল্পনায় বাংলাদেশের ইতিবাচক সাড়া

  • ১১ জুলাই ২০১৩

বাংলাদেশের পোশাক কারখানাগুলোর কাজের পরিবেশ নিরাপদ করতে আমেরিকান কোম্পানিগুলো যে পরিকল্পনা ঘোষণা করেছে, তাকে স্বাগত জানিয়েছে বাংলাদেশ সরকার এবং পোশাক শিল্প মালিকদের সংগঠন।

কিন্তু শ্রমিক সংগঠনগুলো এই পরিকল্পনায় তাদের কোন প্রতিনিধিত্ব না রাখায় এর সমালোচনা করেছে।

যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার ১৭টি কোম্পানি তাদের পরিকল্পনায় বাংলাদেশের পোশাক কারখানারগুলোর নিরাপত্তা মান উন্নয়নে স্বল্প সুদে ঋণ দেয়ার প্রস্তাব রেখেছে। এই প্রস্তাবকে বেশ ইতিবাচক দৃষ্টিতেই দেখছে পোশাক শিল্প মালিকদের সংগঠন ।

বিজিএমইএর সহ সভাপতি শহীদুল আজিম বলেন, ‘কারখানা নিরাপদ জায়গায় সরিয়ে নিতে তারা মাত্র চার থেকে পাঁচ শতাংশ সুদে ঋণ দেবে। এই উদ্যোগকে আমরা স্বাগত জানাই।’

বস্ত্র মন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী বলেছেন, সরকার ছয়শো একর জমির উপর গার্মেন্টস পল্লী তৈরির একটি প্রকল্প নিয়েছে। কিন্তু অর্থ সংকটের কথা তুলে সেখানে কারখানা সরিয়ে নিতে মালিকরা অনীহা দেখাচ্ছিলেন। এখন স্বল্প সুদে ঋণ পাওয়া গেলে, সেটা সহায়ক হবে বলে করেন তিনি।

‘বাংলাদেশের ব্যাংকগুলোর ঋণের সুদ ১৬ থেকে ১৭ শতাংশ। এত বেশি সুদে ঋণ নিয়ে অনেক মালিক তাঁর কারখানা সরিয়ে নিতে রাজি নন। ফলে মার্কিন প্রতিষ্ঠানগুলো অল্প সুদে ঋণ দেওযার যে পরিকল্পনা ঘোষণা করেছে, সেটাকে আমরা স্বাগত জানাই।’

তবে এই পুরো প্রক্রিয়ায় শ্রমিকদের কোন প্রতিনিধিত্ব কেন রাখা হয়নি তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন গার্মেন্টস শ্রমিক নেত্রী নাজমা আক্তার।

তিনি বলেন, ‘আমেরিকাতো শ্রমিক অধিকারের কথা অনেক বেশি বলে ,কিন্তু তাদের উদ্যোগে শ্রমিকদের প্রতিনিধিত্ব কোথায় ?