জঙ্গীবাদে প্রশ্রয়ের অভিযোগ নাকচ করলো বিএনপি

  • ১৯ জুলাই ২০১৩
Image caption সরকার ভিন্ন দিকে দৃষ্টি ফেরাতে হীন প্রচার চালাচ্ছে: মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর

বাংলাদেশে জঙ্গীবাদের উত্থান সাবেক বিএনপি সরকারের প্রশ্রয়ে হয়েছে বলে প্রধানমন্ত্রীর একজন উপদেষ্টার অভিযোগ নাকচ করে দিয়েছে বিএনপি।

প্রধানমন্ত্রীর জনপ্রশাসন উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম বিবিসিকে বলেছিলেন, সাবেক বিএনপি সরকার সুযোগ দেবার কারণেই বাংলাদেশে জঙ্গীবাদের বিস্তার হয়েছিল। তবে এ বক্তব্য সম্পূর্ণ নাকচ করে দিয়ে, এটিকে সরকারের হীন অপপ্রচার হিসেবে বর্ণনা করেছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

এদিকে হেফাজতে ইসলামের ভেতরে জঙ্গীবাদীদের অবস্থানের বিষয়ে মি. ইমামের মন্তব্যেরও বিরোধিতা করছে সংগঠনটি।

সম্প্রতি বর্তমান সরকারের মেয়াদের শেষ অংশে এসে ধর্ম এবং জঙ্গীবাদ একটি বড় ইস্যু হয়ে উঠেছে। বিশেষ করে সর্বশেষ হেফাজতে ইসলামের সমাবেশটিও দীর্ঘদিন যাবত মানুষের আলোচনার মধ্যে রয়েছে।

এমনি এক প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশে জঙ্গীবাদের উথ্থানের জন্য সাবেক বিএনপি সরকারকে দায়ী করছেন প্রধামন্ত্রীর জনপ্রশাসন বিষয়ক উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম।

"অন্যদেশী বিদ্রোহীদের এবং অস্ত্রধারীদের এদেশের ভূখন্ড ব্যবহার করে প্রশিক্ষণ নিতে দেয়া হয়েছে এবং দেশে ধর্মীয় উম্মাদনা সৃষ্টির জন্য নানারকম কাজ করা হয়েছে," বলেন মি. ইমাম।

তবে মি. ইমামের এ বক্তব্যকে পুরোপুরি নাকচ করে দিচ্ছে প্রধান বিরোধী দল বিএনপি।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলছেন, বর্তমানে সরকারের কর্মকান্ডে জনগণের মধ্যে যে অনাস্থা তৈরী হয়েছে সেদিক থেকে মানুষের দৃষ্টি সরাতেই সরকার এসব অপপ্রচার চালাচ্ছে। বরং বিএনপি সরকারের সময়েই জঙ্গীবাদের উত্থান ঠেকাতে নানা আইন এবং চুক্তি করেছিল।

Image caption বিএনপির বিরুদ্ধে জঙ্গীবাদে প্রশ্রয় দেয়ার অভিযোগ তোলেন এইচ টি ইমাম

"ইতোপূর্বেও আওয়ামী লীগ বহুবার চেষ্টা করেছিল জঙ্গীবাদের সাথে বিএনপিকে জড়িত করবার, কিন্তু তাদের এই উদ্দেশ্য কখনোই সফল হয়নি" বলেন মি. আলমগীর।

গত বিএনপি সরকারের সময়ে জেএমবিসহ কয়েকটি জঙ্গী সংগঠনের তৎপরতা প্রকাশ পায়। তবে মি. আলমগীর বলেন, বাংলা ভাইসহ এসব জঙ্গী সংগঠনের নেতাদের বিএনপির শাসনামলেই গ্রেপ্তার করা হয়েছিল।

এদিকে মি. ইমাম কওমী মাদ্রাসাভিত্তিক সংগঠন হেফাজতে ইসলামের কথা উল্লেখ করে বলেন, জঙ্গীদের একটি অংশ এই সংগঠনের ভেতরেও অনুপ্রবেশ করেছে।

তবে জঙ্গীবাদের সাথে তাদের কোন সম্পর্ক নেই বলে দাবী করছে হেফাজতে ইসলাম। নিজেদের এবং সকল কওমী মাদ্রাসাকে সম্পূর্ণ ধর্মভিত্তিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে দাবী করছেন সংগঠনটির একজন কেন্দ্রীয় নেতা আব্দুর রশীদ ফাহিম।

"এগুলো নাস্তিকদের ষড়যন্ত্র। বাংলাদেশের ইতিহাসে কোন কওমী মাদ্রাসার ছাত্র জঙ্গীবাদের সাথে যুক্ত হবার প্রমাণ কেউ দেখাতে পারে নাই," বলেন মি. ফাহিম।

সরকার তাদের ব্যর্থতাগুলো ঢাকার জন্য এবং তত্ত্বাবধায়ক সরকারের ইস্যু থেকে সরে আসার জন্যই ইসলামী জঙ্গীবাদের কথা তুলে আনছে বলে মন্তব্য করেন বিএনপি নেতা মি. আলমগীর।

তবে বর্তমানে জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোটাই বাংলাদেশের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ বলে মনে করছে প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম।