জেল থেকে হোসনি মুবারকের মুক্তি, তবে গৃহবন্দী

Image caption কারাগার থেকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে হোসনি মুবারককে

মিশরের সাবেক প্রেসিডেন্ট হোসনি মুবারককে দু’বছরের বেশি বন্দী রাখার পর মুক্তি দেওয়া হয়েছে।

তবে তাকে এখন গৃহবন্দী রাখা হবে বলে জানানো হয়েছে।

কায়রোর কারাগারের কাছে যে সামরিক হাসপাতালে তাকে আটক রাখা হয়েছিল সেখান থেকে তাকে হেলিকপ্টারে করে নিয়ে যাওয়া হয়।

তবে কর্তৃপক্ষ বলছে, দু’বছর আগের অভ্যুত্থানের সময় বিক্ষোভকারীদের মৃত্যুর ঘটনায় সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে তাকে আবার বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হবে।

কায়রোর মেঘলা আকাশের মধ্য দিয়ে উড়ে হেলিকপ্টারটি হোসনি মুবারককে কারাগার থেকে সামরিক হাসপাতালে নিয়ে যায়।

প্রথমদিকে, এটিই হবে তার ঠিকানা।

তার যথেষ্ট বয়স হয়েছে, নানা ধরনের রোগবালাই রয়েছে, আর সে কারণেই তাকে কারাগারে না রেখে গৃহবন্দী করে রাখা হচ্ছে।

Image caption কারা হেফাজতে বিচার চলছে ক্ষমতাচ্যুত প্রেসিডেন্ট হোসনি মুবারকের

মিশরের টালমাটাল রাজনৈতিক পরিস্থিতির মধ্যে আজ এটা একটা বড় ঘটনা।

মি. মুবারকের সমর্থকের সংখ্যাও কম নয়।

তাদেরই একটা অংশ আজ জড়ো হয়েছিলেন কারাগারের বাইরে।

এরা মনে করেন, মি. মুবারকের পতনের মধ্য দিয়ে মিশরের পরিস্থিতি আরো খারাপ হয়েছে।

তবে এটাও ঠিক যে একটা বিরাট অংশের বিশ্বাস: তার এই ধরনের মুক্তির মধ্য দিয়ে আরব বসন্তের একটা মস্ত বড় সুফল এখন ভেস্তে যেতে বসেছে।