'স্বপ্নে দেখা' সোনার খোঁজে খনন শুরু ভারতে

  • ১৮ অক্টোবর ২০১৩
india treasure
Image caption উন্নাও দুর্গের একাংশ

ভারতের উত্তরপ্রদেশ রাজ্যের একটি প্রাচীন দূর্গের নীচে সোনা লুকানো আছে – এক হিন্দু সন্ন্যাসী এই স্বপ্ন দেখার পরে শুক্রবার সকালে দেশটির সরকারী পুরাতত্ত্ব বিভাগ সেখানে খনন কাজ শুরু করেছে।

উত্তরপ্রদেশের উন্নাও জেলায় ডোন্ডিয়া খেরা গ্রামের যে দূর্গে খনন কাজ শুরু করেছে আর্কিওলজিকাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়া বা ভারতীয় পুরাতত্ত্ব সর্বেক্ষণ, সেই দূর্গটি সিপাহী বিদ্রোহের সময়কার রাজা - রাও রামবক্স সিংয়ের।

শোভন সরকার নামে এক স্থানীয় সন্ন্যাসী স্বপ্নে ওই গুপ্তধনের হদিশ পান বলে দাবী করেছেন। কথিত ওই স্বপাদেশের বিষয়টি তিনি জানান তাঁর এক ভক্ত – কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী চরণদাস মহন্তকে। তাঁর দফতর থেকেই পুরাতত্ত্ব সর্বেক্ষণ ও ভূতাত্ত্বিক সর্বেক্ষণকে খননকাজ শুরু করার জন্য আবেদন জানানো হয়।

পুরাতত্ত্ব সর্বেক্ষণের খননকার্য বিভাগের প্রধান সৈয়দ জামাল হাসান বিবিসি বাংলাকে জানিয়েছেন, "যে জায়গায় খনন শুরু হয়েছে, সেখানে আদি-মধ্যযুগ আর মধ্যযুগীয় অনেক স্থাপত্য রয়েছে। মাটির ওপরেই অনেক নিদর্শন পাওয়া গেছে। তাই জায়গাটি পুরাতত্ত্বের দিক থেকে গুরুত্বপূর্ণ।"

মি. হাসান আরও বলছিলেন যে খননের আগে ভূতাত্ত্বিকরা যে রিপোর্ট দিয়েছেন, সেখানে বলা হয়েছে যে প্রায় কুড়ি ফুট নিচে সোনা, রুপোর মতো কোনও ধাতু থাকতে পারে।

ভূতাত্ত্বিকেরা অবশ্য কতটা পরিমান সোনা-রুপো মাটির নীচে থাকতে পারে, তার কোনও ইঙ্গিত দেন নি।

যদিও সন্ন্যাসী শোভন সরকারের দাবী, তিনি স্বপ্নে জেনেছেন যে মাটির নীচে প্রায় এক হাজার টন সোনা রয়েছে। ওই সোনা উদ্ধার করা গেলে ভারত অর্থনৈতিক সংকট থেকে মুক্তি পাবে বলে মত দিয়েছেন ওই সন্ন্যাসী।

ওই দাবী এবং একজনের স্বপ্নের ওপরে ভরসা করে পুরাতাত্ত্বিক খনন কতটা যুক্তিযুক্ত, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে।

মি. জামাল হাসানকে জিজ্ঞাসা করেছিলাম, তাঁরা একজন সন্ন্যাসীর স্বপ্নের ওপরে ভরসা করে কেন খনন কাজ শুরু করলেন।

মি. হাসানের জবাব ছিল, "পুরাতত্ত্ব একটা বিজ্ঞান আর সেটা কোনও স্বপ্ন বা অন্য কোনও কিছুর ওপরে নির্ভর করে চলে না। এক্ষেত্রেও বিজ্ঞান আর ইতিহাসের ওপরে ভিত্তি করেই খননের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ওই জায়গাটার পুরাতাত্ত্বিক গুরুত্ব তো রয়েইছে। সোনা পাওয়া যাক বা না যাক, মূর্তি বা মুদ্রার মতো পুরাতাত্ত্বিক নিদর্শন তো পাওয়া যাবে – আর সেগুলো সবই অমূল্য।"

সন্ন্যাসী শোভন সরকার যে পরিমান সোনা আছে বলে দাবী করছেন, তা নিয়েও প্রশ্ন উঠছে।

বলা হচ্ছে রামবক্স সিং এমন কোনও বড় রাজা ছিলেন না, যাঁর কাছে অতটা সোনা থাকা সম্ভব। তিনি আদতে এক বড় জমিদার ছিলেন আর সিপাহী বিদ্রোহে ঝাঁসির রাণী লক্ষ্মীবাঈয়ের সঙ্গী ছিলেন। বিদ্রোহের পরে ব্রিটিশদের হাতে ধরা পড়ে ফাঁসি হয় তাঁর।