সাংবাদিক গিয়াস কামাল চৌধুরী মারা গেছেন

gias kamal chowdhury
Image caption প্রয়াত গিয়াস কামাল চৌধুরী

বাংলাদেশের প্রথিতযশা সাংবাদিক গিয়াস কামাল চৌধুরী মারা গেছেন।

বছর দুয়েক ধরে কঠিন রোগে ভুগে আজ ভোরের দিকে ঢাকার একটি হাসপাতালে তিনি মারা যান। তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৪। গত দু সপ্তাহ ধরে তিনি লাইফ সাপোর্টে ছিলেন।

১৯৬৪ সালে ইত্তেফাক গ্রুপ থেকে প্রকাশিত একটি ইংরেজি পত্রিকা থেকে গিয়াস কামাল চৌধুরী সাংবাদিকতা পেশা শুরু করেছিলেন।

পরে অবিভক্ত পাকিস্তানের শীর্ষ দৈনিক ডনে কাজ করেছেন প্রয়াত মি চৌধুরী । স্বাধীন বাংলাদেশে দীর্ঘ সময় কাজা করেছেন সরকারী বার্তা সংস্থা বাসসে। বাসসের ব্যবস্থাপনা সম্পাদক হয়েছিলেন তিনি।

তবে আশির দশকে সেনাশাসন বিরোধী আন্দোলনের সময় ভয়েস অব আমেরিকার সংবাদদাতা হিসাবে তিনি বাংলাদেশে ব্যাপক পরিচিতি পান।

প্রয়াত এই সাংবাদিকের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে গিয়ে ঢাকার সিনিয়র সাংবাদিক এবং ডন পত্রিকায় মি চৌধুরীর একসময়কার সহকর্মী হাসান শাহরিয়ার বিবিসি বাংলাকে বলেন, "এরশাদ বিরোধী আন্দোলনের সময় আসল খবর জানতে মানুষজন বিবিসি এবং ভয়েস অব আমেরিকা রেডিও শুনতে উন্মুখ থাকতো। সেসময় গিয়াস কামাল চৌধুরী ঘরে ঘরে পরিচিত নাম হয়ে উঠেছিলেন।"

Image caption ঢাকার প্রেস ক্লাব চত্বরে প্রথম জানাজা

সাংবাদিকদের ট্রেড ইউনিয়ন আন্দোলনে সাথে ঘনিষ্ঠভাবে জড়িত ছিলেন মি চৌধুরী। প্রেস ক্লাব এবং অবিভক্ত ফেডারেল ইউনিয়ন অব জার্নালিস্ট বা বিএফইউজের নির্বাচিত সভাপতি হয়েছিলেন।

সাংবাদিক ইউনিয়ন ভাঙ্গার পর বিএনপি পন্থি ইউনিয়নের সাথে তার ঘনিষ্ঠতা ছিল। তবে হাসান শাহরিয়ার বলেন, পেশার ক্ষেত্রে তিনি কখনই রাজনৈতিক এবং দলীয় অনুগত্যকে টেনে আনেননি।

প্রয়াত গিয়াস কামাল চৌধুরীর প্রথম জানাজা হয় প্রেস ক্লাব চত্বরে। দাফনের জন্য তাঁর মৃতদেহ ফেনীতে তার গ্রামের বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হবে বলে জানা গেছে।