সাচিন তেন্ডুলকারের শেষ টেস্টের খেলা মুম্বাইতে

  • ১৪ নভেম্বর ২০১৩
sachin fans
Image caption সাচিনের শেষ টেস্ট নিয়ে ভারত জুড়ে ভক্তদের মধ্যে ব্যাপক উন্মাদনা

ভারতের কিংবদন্তী ক্রিকেটার সাচিন তেন্ডুলকার তাঁর জীবনের শেষ টেস্ট ম্যাচে প্রথম দিনের খেলা শেষে ক্রিসে অপরাজিত আছেন ৩৮ রানে।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে মুম্বাইতে এটা তাঁর কেরিয়ারের দু'শত তম টেস্ট।

তাঁর অবসরকে ঘিরে ক্রিকেট দুনিয়া ও গোটা ভারতে চলছে নজিরবিহীন উন্মাদনা ।

শেষ টেস্টের প্রথমদিনেই তেন্ডুলকারের ব্যাটিং দেখতে পেয়ে দর্শকরা অভিভূত।

তার ওপর দিন শেষে তিনি অপরাজিত থাকায় দর্শকরা তার সেঞ্চুরি করার স্বপ্নও দেখতে শুরু করেছে।

তাঁর নিজের শহর মুম্বাইয়ের ওয়াঙ্খেড়ে স্টেডিয়াম বিশ্বনন্দিত এই ক্রিকেটারকে আজ বিপুল হর্ষধ্বনির মাধ্যমে স্বাগত জানিয়েছে।

তিনি মাঠে ঢোকার সঙ্গে সঙ্গে স্টেডিয়ামে উপস্থিত দর্শক কান ফাটানো চিৎকারে ফেটে পড়ে। এবং তাঁর প্রতিটি স্ট্রোককে অভিনন্দন জানিয়েছেন মাঠে উপস্থিত দর্শকরা।

লিটল্ মাস্টার নামে পরিচিত ভারতের জীবন্ত এই কিংবদন্তী ক্রিকেটার ২৪ বছর ধরে ক্রিকেটের জগতে দাপটে রাজত্ব করেছেন এবং গড়েছেন অসংখ্য বিশ্ব-রেকর্ড।

মুম্বাইয়ের স্টেডিয়ামে তাঁর শেষ টেস্টের খেলায় উপস্থিত ছিলেন সাচিন তেন্ডুলকারের মা। এই প্রথম তার টেস্ট খেলা দেখতে মাঠে এসেছেন তাঁর মা।

মাঠের মধ্যে বড় পর্দায় তাঁকে প্রথম দেখার পর উপস্থিত দর্শকরা সবাই আসন থেকে উঠে দাঁড়িয়ে তাঁকে সম্মান প্রদর্শন করে।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্রথম ইনিংস গুটিয়ে যায় মাত্র ১৮২ রানে।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ অধিনায়ক ড্যারেন স্যামির দিনের শেষ ওভারের বোলিং ঠেকিয়ে ক্রিসে অপরাজিত থাকার ফলে তেন্ডুলকার শুক্রবারই সম্ভবত তার ক্রিকেট কেরিয়ারের চূড়ান্ত ইনিংসটি খেলবেন।

Image caption ম্যাচের টিকিট নিয়ে ভক্তদের মধ্যে ব্যাপক উদ্দীপনা

তেন্ডুলকারের এই সর্বশেষ টেস্ট নিয়ে ক্রিকেট পাগল ভারতের মানুষের উৎসাহ- উদ্দীপনা এতটাই বেশি ছিল যে টিকিট বিক্রির ওয়েবসাইট অনলাইনে টিকিট বিক্রি শুরু করার সঙ্গে সঙ্গেই তা জ্যাম হয়ে যায়। প্রথম এক ঘন্টায় প্রায় দুই কোটি লোক ওয়েবসাইটে টিকিট কেনার চেষ্টা করলে ওয়েবসাইট অকার্যকর হয়ে পড়ে।

৩৩ হাজার টিকিটের মধ্যে মাত্র ৫ হাজার টিকিট সাধারণ মানুষের জন্য বরাদ্দ করায় বিক্ষুব্ধ ভক্তরা বিক্ষোভও করে।

ওয়েঙ্খেড়ে স্টেডিয়ামের আশপাশের এলাকা লিটল মাস্টার লেখা ও আঁকা পোস্টার বা প্রতিকৃতিতে ছেয়ে গেছে।