ব্রিটেনে স্মরণকালের অন্যতম ভয়াবহ বন্যা

britain floods evacuation ছবির কপিরাইট PA
Image caption টেমস নদীর দুই তীর থেকে বাসিন্দাদের সরিয়ে নেওয়ার কাজ চলছে

ব্রিটেনের স্মরণকালের অন্যতম ভয়াবহ বন্যায় হাজার হাজার মানুষ গৃহহীন হয়ে পড়েছে।

জানুয়ারিতে অতিবৃষ্টির কারণে সৃষ্ট বন্যা এখন লন্ডনের আশপাশের কয়েকটি এলাকায় আঘাত করেছে।

টেমস নদী উপচে পড়ায় শত শত মানুষকে ঐসব এলাকা থেকে নিরাপদ জায়গায় সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে।

মরার ওপর খাঁড়ার ঘা হয়ে দেখা দিয়েছে ধেয়ে আসা একটি সামুদ্রিক ঝড়। একশ মাইল বেগের এই ঝড় ওয়েলস এবং ইংল্যান্ডের উত্তর-পশ্চিম উপকূলে আঘাত করতে পারে বলে আবহাওয়া দপ্তর লাল সতর্কতা জারি করেছে।

প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন মধ্যপ্রাচ্যে তার একটি গুরুত্বপূর্ণ সফর বাতিল করেছেন এবং বন্যা পরিস্থিতি মোকাবেলার মূল দায়িত্ব নিজের হাতে নিয়েছেন।

ব্রিটেনে স্মরণকালের মধ্যে সবচেয়ে গুরুতর এই দুর্যোগের মুখে পুরো দক্ষিণাঞ্চল জুড়ে ১৬টি জায়গায় মারাত্মক বন্যার আশংকা করা হচ্ছে। এর মধ্যে ১৪টি সতর্কীকরণ বার্তা জারি করা হয়েছে টেমস নদীর কূল বরাবর বার্কশায়ার, সমারসেট এবং সমারসেট কাউন্টি জুড়ে।

গত কয়েক সপ্তাহ ধরেই লন্ডন ও অক্সফোর্ডের মধ্যবর্তী জেলা এবং উপকূলীয় অঞ্চলের নানা জায়গায় বন্যা এবং ঝড়ের কারণে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

বন্যাপীড়িত মানুষজনকে উদ্ধারে সেনাবাহিনী নামানো হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন তার বিদেশ সফর বাতিল করে আপৎকালীন পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্য আজ বুধবার কর্মকর্তাদের সাথে জরুরি বৈঠক করেছেন। ব্রিটেনের আবহাওয়া দপ্তর বলছে আগামী ক'দিনে পরিস্থিাতির আরো অবনতি ঘটবে।

তারা ব্রিটেনের দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে সামুদ্রিক ঘুর্ণিঝড় এবং প্রবল বৃষ্টির আশংকা করছেন।

ছবির কপিরাইট BBC World Service

দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় কর্নওয়লে একটি বন্দরের হারাবার মাস্টার ফিল ওয়ার্ড বলছেন তারা ইতিমধ্যেই ঝড়ের নমুনা দেখতে শুরু করেছেন।

''এখন ঘন্টায় ৮০ মাইল বেগে বাতাস বইছে। বাতাসের শক্তি যাচাই করছিলাম। দেখলাম বাতাসের প্রবল ধাক্কায় পার্ক করা মোটর গাড়ি পর্যন্ত সরে যাচ্ছে। এই মুহূর্তে সমুদ্রে ভাঁটা চলছে। যখন জোয়ার হবে তখন ঢেউয়ের উচ্চতাও বেড়ে যাবে বলে।''

সমারসেটের বাসিন্দা লুৎফর রহমান বিবিসি বাংলাকে বলছিলেন, তিনি যে গ্রামে থাকেন সেখানে ইতিমধ্যেই স্বাভাবিক জীবন ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে।

তিনি বলছেন সেনাবাহিনী তাদের ট্রাক ব্যবহার করে গ্রামের মানুষজনকে সরিয়ে নিচ্ছে। মানুষজনকে সরিয়ে নেওয়ার জন্য উঁচু ট্র্যাকটরও ব্যবহার করা হচ্ছে। লন্ডনের পাশের কাউন্টি বার্কশায়ারের গ্রাম রেসবারি। সেখানে লোকজন বন্যার জল ঠেকাতে হিমশিম খাচ্ছেন। সেখানে স্কুলগুলোকে আশ্রয় শিবিরে পরিণত করা হয়েছে। সেনাবাহিনীর ১০০ জন সৈন্য সেখানে মোতায়েন রয়েছে।

ছবির কপিরাইট PA
Image caption বার্কশায়ারের রেসবারি গ্রামে সেনাবাহিনীর উদ্ধার তৎপরতা

মেজর জিম স্কেলটন বলছেন, তারা সেখানে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করছেন। ''বাড়ি বাড়ি ঘুরে আমরা মানুষজনকে সাহায্য দেওয়ার চেষ্টা করছি। যেসব জায়গায় বন্যার প্রকোপ বেশি আমাদের লোকজন সেখানেও কাজ করছে। তারা মানুষজনের মাঝে পানীয় জল এবং শুকনো খাবার সরবরাহ করছেন।''

আবহাওয়া দপ্তর বলছে আগামী ক'দিনে ঝড়ো হাওয়ার দাপটে বাড়িঘর ও গাছপালা ভেঙে পড়তে পারে।

অনেক জায়গাতেই বিদ্যুৎ সরবরাহ বিচ্ছিন্ন হবে এবং রেল যোগাযোগও ব্যাপকভাবে ব্যাহত হতে পারে বলে আবহাওয়া দপ্তর বলছে।