২৩৯ জন যাত্রী নিয়ে মালয়েশিয়ার বিমান নিখোঁজ

malayasia plane ছবির কপিরাইট AP
Image caption বিমানবন্দরে উদ্বিগ্ন যাত্রীদের আত্মীয়স্বজন

মালয়েশিয়ান এয়ারলাইন্সের একটি বিমান ২৩৯ জন যাত্রী নিয়ে নিখোঁজ হবার পর এখন দক্ষিণ চীন সাগরের বিস্তীর্ণ এলাকায় সাগরে তার অনুসন্ধান চলছে।

মালয়েশিয়া থেকে ভিয়েতনামের মধ্যে দক্ষিণ চীন সাগরেরএকটি জায়গায় অনুসন্ধান চলছে।

কিছু সময় আগে ভিয়েতনামের সামরিক বিমানগুলো সাগরের দুটি জায়গায় তেলের স্তর ভাসতে দেখেছে, এবং তারা সন্দেহ করছে বিধ্বস্ত হয়ে যাওয়া বিমান থেকেই ওই তেল বেরিয়ে থাকিতে পারে। তবে এখন পর্যন্ত কোন ধ্বংসাবশেষ দেখা যায় নি।

বিমানটি মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুর থেকে বেজিং যাচ্ছিল। চীন, ফিলিপিন্স ও সিঙ্গাপুর সহ আশপাশের কয়েকটি দেশের বিমান এবং জাহাজ ইতিমধ্যে এই অনুসন্ধানকাজে যোগ দিয়েছে।

ছবির কপিরাইট AP
Image caption মালয়েশিয়ান এয়ারলাইন্স [ফাইল ফটো]

মালয়েশিয়ার সেনাবাহিনী বলছে তারা কয়েক দফায় হেলিকপ্টার এবং জাহাজ পাঠিয়ে অনুসন্ধান চালিয়েছে। কিন্তু এখন পর্যন্ত নিখোঁজ বিমানটির কোন হদিস মেলেনি।

এর আগে ভিয়েতনাম থেকে খবর পাওয়া গিয়েছিল যে সেখানকার সমুদ্রসীমায় কোন এক জায়গায় একটি বিমান বিধ্বস্ত হয়েছে, তবে এ খবর নিশ্চিত করা যায় নি।

মালয়েশিয়া এয়ারলাইন্স কর্মকর্তারা বলেছে, তাদের একটি ফ্লাইট কুয়ালালামপুর বিমানবন্দর ছেড়ে যা্ওয়ার দু’ঘন্টা পর ফ্লাইটটির সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।

ছবির কপিরাইট AFP
Image caption বেজিং বিমানবন্দরে নিখোঁজ বিমানের খবর

বিমানটিতে কোন যান্ত্রিক গোলযোগ বা বিপদ ঘটেছে এমন কোন বার্তা পাওয়া যায় নি।

চীনের সংবাদ সংস্থা বলেছে, কোন বোয়িং-৭৭৭ বিমান চীনের আকাশসীমাতেই যায়নি। কুয়ালামপুর থেকে বেজিং গামী বিমানটি ২৩৯ জন যাত্রী ও ক্রু নিয়ে ওড়ার দু ঘন্টা পর তার সাথে সবরকম যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।

যাত্রীদের আত্মীয়স্বজনরা শোকার্ত অবস্থায় বেজিংএর বিমানবন্দরে ভিড় করছেন।

তাদের অনেককে বিমানবন্দরের কাছে একটি হোটেলে রাখা হয়েছে এবং স্বেচ্ছাসেবকরা তাদের সহায়তা দিচ্ছেন। বিবিসির সংবাদদাতা জানাচ্ছেন, কয়েক ঘন্টা পার হয়ে গেলেও তেমন কোন খবর না পেয়ে অনেককেই ক্ষোভ প্রকাশ করতে দেখা গেছে।

বিমানটির যাত্রীদের মধ্যে ১৫৩ জনই চীনা এবং ৩৮ জন মালয়েশীয়। গত ২০ বছরে এর আগে বোয়িং ৭৭৭ বিমান বিধ্বস্ত হয়েছে মাত্র একবার।