নিরাপত্তা ঝুঁকিতে বন্ধ কারখানার শ্রমিকরা বেকার

  • ১৩ মার্চ ২০১৪
ছবির কপিরাইট bbc bangla

বাংলাদেশে নিরাপত্তা ঝুঁকির কারণে বন্ধ হয়ে গেছে এমন দুই গার্মেন্টস কারখানার শ্রমিকরা এখনো জানেন না তারা আবার কাজে ফিরতে পারবেন কিনা।

গত বছর রানা প্লাজা ধসে এগারোশোর বেশি শ্রমিক নিহত হওয়ার পর বাংলাদেশের গার্মেন্টস কারখানারগুলোর নিরাপত্তা মান পরিদর্শনের কাজ চলছে ইউরোপ এবং আমেরিকার ক্রেতা প্রতিষ্ঠানগুলোর উদ্যোগে।

ইউরোপীয় প্রতিষ্ঠানগুলোর জোট আ্যাকর্ডের উদ্যোগে এরকম এক পরিদর্শনের সময় দুটি কারখানা বন্ধ করে দেয়া হয়।

ঢাকার মিরপুরের পল্লবীতে একটি পুরোনো ভবনে এই দুটি কারখানা চলছিল।

বৃহস্পতিবার বিকেলে সেখানে গিয়ে দেখা যায় ভবনটির ফটকে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

কারখানার কোন কর্মকর্তা বা কর্মীকে সেখানে খুঁজে পাওয়া গেল না।

পেছনের একটি বস্তিতে থাকেন এই কারখানার কিছু কর্মী।

কারখানার এক কর্মী জানালেন, কোম্পানির তরফ থেকে তাদের ছুটিতে পাঠিয়ে দেয়া হয়। তখন কিছু জানানো হয়নি। পরে মোবাইলে ফোন করে বলা হয় কারখানা বন্ধ। চারদিন পরে কারখানায় গেলে তাদের বলা হয় ২২শে মার্চের পরে আসতে।

বিজিএমইএ’র সহ সভাপতি শহীদুল আজিম জানান, এ্যাকর্ডের পরিদর্শনে কারখানা ভবনটি ঝুঁকিপূর্ণ বলে চিহ্ণিত করায় রিভিউ কমিটির নির্দেশে কারখানা দুটি বন্ধ রাখা হয়েছে।

বন্ধ হওয়া একটি কারখানা ফেম নীটওয়্যারের মালিক মশিউল আজম বললেন, কারখানাটি যাতে চালু করা যায় তারা সেই চেষ্টা করছেন।