নিখোঁজ বিমানের যাত্রীদের আত্মীয়রা মালয়েশিয়ায়

 malayasia plane search ছবির কপিরাইট AP
Image caption সাগরে অনুসন্ধান জোরদার হয়েছে

মালয়েশিয়ার নিখোঁজ বোয়িং বিমানটির সন্ধান পেতে ভারত মহাসাগরে অনুসন্ধান প্রক্রিয়া যখন জোরদার করা হচ্ছে - তার মধ্যেই ওই বিমানটির চীনা যাত্রীদের প্রায় ৩০ জন আত্মীয় কুয়ালালামপুরে এসে পৌঁছেছেন। তাদের লক্ষ্য হচ্ছে - এ ঘটনা নিয়ে ওঠা নানা প্রশ্নের জবাব এবং আরো তথ্যপ্রমাণ জানার জন্য সরকারে ওপর চাপ প্রয়োগ করা।

এই আত্মীয়স্বজনরা একটি ব্যানার বহন করছিলেন - যাতে বলা হয়, বিমানটির ভাগ্যে কি ঘটেছে সে সম্পর্কে তারা 'সত্য ঘটনা এবং প্রমাণ' জানতে চান।

বিমান বন্দরে তাদের আগমনের সময় বেশ উত্তেজনাপূর্ণ পরিবেশ সৃষ্টি হয়, এবং মালয়েশিয়ার রক্ষীদের কড়া প্রহরার জন্য সাংবাদিকরা তাদের সাথে কথা বলতে অসুবিধায় পড়েন।

এই আত্মীয়স্বজনরা দাবি করছেন যে, 'বিমানটি ভারত মহাসাগরের ওপর হারিয়ে গেছে' এমন কথা বলার জন্য , এবং তথ্য জানাতে দেরি করার জন্য মালয়েশিয়ান কর্মকর্তাদের ক্ষমা চাইতে হবে ।

অন্যদিকে ২৩৯ জন যাত্রী নিয়ে ৮ই মার্চ নিখোঁজ হওয়া বিমানটির জন্য অনুসন্ধান প্রক্রিয়া জোরদার হয়েছে। এখন এ জন্য আটটি জাহাজ এবং দশটি বিমান কাজ করছে।

সমুদ্রের তলদেশ থেকে বিমানটির ব্ল্যাকবক্সের কোন সিগন্যাল ধরতে সক্ষম এমন একটি যন্ত্র একটি অস্ট্রেলিয়ান জাহাজে বসানো হয়েছে। এই জাহাজটি আগামি কাল পার্থ থেকে সাগরের দিকে রওনা দেবে।

তবে সময় আর বেশি নেই, কারণ আগামি এক সপ্তাহের মধ্যেই ফ্লাইট রেকর্ডারের ব্যাটারি নি:শেষ হয়ে যাবে - অথচ এর খোঁজ করতে হবে এক বিশাল জায়গায়।

শনিবারেও সাগর থেকে বেশ কিছু বস্তু উদ্ধার করা হয়েছে তবে এগুলো যে নিখোঁজ বিমানটিরই টুকরো তা এখনো নিশ্চিত করা যায় নি।