ইউক্রেনের অস্থিতিশীলতা রাশিয়ার তৈরী: যুক্তরাষ্ট্র

Image caption দোনেৎস্কের প্রশাসনিক ভবন দখল করে দোনেৎস্কে কাঁটাতারের বেড়া দিয়ে ঘিরে দিয়েছে রুশপন্থী বিক্ষোভকারীরা।

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি বলেছেন, তাদের কাছে পরিস্কার, নির্ভুল এবং খুবই অস্বস্তিকর প্রমাণ রয়েছে যে, ইউক্রেনের সাম্প্রতিক অস্থিতিশীলতার পেছনে রাশিয়ার বিশেষ বাহিনী এবং গোয়েন্দারাই দায়ী। তিনি আরো বলেন, মস্কো হয়তো ইউক্রেনে সামরিক হস্তক্ষেপেরও পরিকল্পনা করছে।

মস্কোর প্রতি হুশিয়ারি দিয়ে মি. কেরি বলেন, আরো কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপের মাধ্যমে রুশ অর্থনীতির গুরুত্বপূর্ণ খাতগুলোতে আঘাতের জন্য ওয়াশিংটন প্রস্তুত রয়েছে। এদিকে পূর্বাঞ্চলীয় দোনেৎস্ক শহরের সরকারী ভবনগুলো এখনো দখল করে রেখেছে রুশপন্থী বিক্ষোভকারীরা ।

জন কেরির হুমকির পাশাপাশি নেটোও রাশিয়াকে আবারো সতর্ক করে দিয়েছে। নেটোর মহাসচিব আন্দ্রেস ফহ রাসমুসেন বলেছেন, ইউক্রেনে আর কোন ধরণের হস্তক্ষেপ করাটা হবে রাশিয়ার জন্য একটি ‘ঐতিহাসিক ভুল’।

মস্কো আগেই জানিয়েছিল, পূর্ব ইউক্রেনে রুশপন্থী বিক্ষোভকারীদের যদি জোরপূর্বক হটানো হয়, তবে তা গৃহযুদ্ধের সূত্রপাত করতে পারে।

এদিকে ইইউ-র কূটনীতিকরা বলেছেন, ইউরোপীয় কমিশন ইউক্রেনে একটি বিশেষ সহযোগী গোষ্ঠি তৈরী করতে চাচ্ছে, যারা ইউক্রেনের অর্থনীতি এবং রাজনৈতিক অবস্থা স্থিতিশীল রাখতে সাহায্য করবে।

তবে বিভিন্ন পক্ষ নানাভাবে ইউক্রেন পরিস্থিতির জন্য রাশিয়াকে সতর্ক করলেও, মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী সরাসরিই রাশিয়াকে বর্তমান পরিস্থিতির জন্য দায়ী করলেন।

সিনেটের পররাষ্ট্রবিষয়ক কমিটিকে দেয়া বক্তব্যে মি. কেরি বলেছেন, পূর্ব ইউক্রেনের উত্তেজনার পেছনে সন্দেহাতীতভাবে রাশিয়ার হাত রয়েছে।

এদিকে রুশপন্থী বিক্ষোভকারীরা এখনো পূর্ব ইউক্রেনে দোনেৎস্ক শহরের আঞ্চলিক সরকারী দপ্তরগুলো দখল করে রেখেছে। বিক্ষোভকারীরা কিয়েভ থেকে তাদের স্বাধীনতা ঘোষণা করেছে।

বিবিসির একজন সংবাদদাতা জানাচ্ছেন, বেসবল ব্যাট হাতে মুখোশধারীরা কাঁটাতার এবং টায়ার দিয়ে নিজেদের ঘিরে রেখেছে এবং তাদেরকে সরানোর যেকোন প্রচেষ্টা প্রতিহত করার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছে।

ইউক্রেনের ভারপ্রাপ্ত পররাষ্ট্রমন্ত্রী আন্দ্রি দুসিতজা বিবিসিকে বলেছেন, স্বল্পসংখ্যক মানুষ পরিস্থিতি অস্থিতিশীল করে তুলতে চেষ্টা করছে এবং তাদের মধ্যে সবচেয়ে তৎপর গোষ্ঠিটি সম্ভবত: রাশিয়া থেকেই এসেছে।