ঝুলন্ত দুই কিশোরীকে ধর্ষণ নিয়ে সন্দেহ

ছবির কপিরাইট bbc
Image caption এই গাছেই দু'জন কিশোরীকে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া গিয়েছিলো

ভারতে এক ফরেনসিক পরীক্ষায় দেখা যাচ্ছে, যে দু’জন কিশোরীকে গত মে মাসে একটি গাছে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া গিয়েছিলো তাদেরকে ধর্ষণ করা হয়নি।

কিন্তু এর আগে প্রাথমিক ময়নাতদন্তে বলা হয়েছিলো যে তারা যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছিলেন। বলা হয়েছিলো গাছে ঝুলিয়ে দেওয়ার কারণে তাদের মৃত্যু হয়েছে।

উত্তর ভারতে নিচু বর্ণের এই দুই কিশোরীকে পরিবারের সম্মান রক্ষার নামে (অনার কিলিং) হত্যা করা হয়েছিলো কিনা পুলিশ এখন সেই বিষয়টি তদন্ত করে দেখছে।

উত্তরপ্রদেশে নিহত এই দুই কিশোরীর বয়স ছিলো ১৪ ও ১৫।

তাদের পরিহিত কাপড় চোপড় ও শরীরের নমুনা পরীক্ষা করে ভারতীয় কর্মকর্তারা এখন নতুন এই তথ্য তুলে ধরেছেন।

এই হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত থাকার সন্দেহে বর্তমানে পাঁচজন কারাগারে আটক রয়েছেন। এদের মধ্যে দু’জন পুলিশ।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমে বলা হচ্ছে, আগামী কয়েকদিনের মধ্যে আটক ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা না হলে তাদেরকে ছেড়ে দেওয়া হবে।

এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ভারতের ভেতরে ও বাইরে আলোড়নের সৃষ্টি করে।

প্রথমে এই ঘটনার তদন্ত করে দেখছিলো রাজ্য পুলিশ। পরে তা কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা সিবিআই-এর কাছে হস্তান্তর করা হয়।

সংবাদদাতারা বলছেন, প্রাথমিক ময়নাতদন্ত ও ফরেনসিক পরীক্ষার এই পরস্পরবিরোধী রিপোর্ট সিবিআই কিভাবে মোকাবেলা করবে সেটা এখনও পরিষ্কার নয়।

নিহত এক কিশোরীর পিতা বলেছেন, সর্বশেষ রিপোর্টে তিনি মর্মাহত হয়েছেন।