বাংলাদেশের রাজনৈতিক দল বিএনপির ৩৮ বছর: সামনে চ্যালেঞ্জ কী

বিএনপির প্রতিষ্ঠার ৩৮ বছর আজ
Image caption বিএনপির প্রতিষ্ঠার ৩৮ বছর আজ

বাংলাদেশের অন্যতম প্রধান রাজনৈতিক দল বিএনপির ৩৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ। ১৯৭৮ সালের এ দিনে সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান ক্ষমতায় থাকাকালে দলটি প্রতিষ্ঠা করেন।

বেশ কয়েকবার রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় এলেও, সর্বশেষ সংসদ নির্বাচনে অংশ না নেয়ায় বর্তমানে পার্লামেন্টের বাইরে রয়েছে দলটি। সবমিলিয়ে বিএনপি এখন কী ধরণের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করছে?

কমিটি গঠনের পর দলের প্রথম সারির কয়েকজন নেতার পদত্যাগ করেছেন এতে দলের মধ্যে কতটা ঐক্য রয়েছে এই প্রশ্নে দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলছিলেন পদত্যাগের কথাটার এখনো শোনাকথা পর্যায়ে, কিন্তু বাস্তব পর্যায়ে সেটার বাস্তবতা এখনো নেই।

Image caption বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া

তিনি বলেন "এটা একটা বৃহত্তম রাজনৈতিক দল, এখানে কিছুটা অসন্তোষ থাকবেই"।

কাউন্সিলের বেশ কয়েকমাস পর সম্প্রতি দলটি নতুন করে তাদের কমিটি ঘোষণা করেছে। যদিও সেখানেও অসন্তোষের বিষয়টি বেরিয়ে এসেছে। অন্যদিকে কয়েক দফা আন্দোলনের পর দলটির অনেক নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে, অনেকে রয়েছেন কারাগারে।

মি. রায় বলছেন "ব্যক্তিগতভাবে তিনি অর্ধশত মামলার মধ্যে রয়েছেন। এর চেয়ে বেশি মামলা রয়েছে তৃণমূল পর্যায়ে। এগুলোকে মোকাবেলা করে যখন আমরা আছি, তার মানে আমরা সঠিক পথে আছি। এবং জনগণের সমর্থন আছে। এই শক্তিতেই আমাদের আগামী দিনের পথ চলার বড় মনোবল"।

"আমরা অনেক কিছু পারছি, অনেক কিছুই পারি না। তবে মনে করি শেষ ভাল যার সব ভাল তার" বলছিলেন মি. রায়।

Image caption বিএনপির পল্টনের কার্যলয়

কিছুদিন আগে জাতীয় ঐক্য গড়ার প্রশ্নে জোটের অন্যতম দল জামায়াত ইসলামি নিয়ে প্রশ্ন উঠে, দলের মধ্যে নেতাকর্মীদের মাঝে এই নিয়ে কী ধরণের চিন্তা ভাবনা কাজ করে? এই প্রশ্নে বিএনপির এই নেতা বলেন

" বিষয়টা পরিষ্কার করে বোঝা দরকার যে আমাদের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য জাতীয় ঐক্যের ডাক দেন নি, তিনি উগ্রবাদ জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে নিঃশর্ত ভাবে দল,মতের ঊর্ধ্বে থেকে জাতীয় ঐক্যের ডাক দিয়েছিলেন। কিন্তু মাঝখানে বিতর্ক সৃষ্টি হল জামায়াত থাকবে কি থাকবে না। এখন প্রশ্নটা হলো জামায়াত সমস্যা না উগ্রবাদ সমস্যা"? প্রশ্ন রাখেন মি. রায়।

তিনি আরো বলেন "জামায়াতে ইসলামির প্রশ্নটা অত্যন্ত রাজনৈতিক। জামায়াতকে সরকার চায়, সরকার না পেলে বিরুদ্ধ করবে। আমরা না পেলে আমরা বিরুদ্ধ করবো। এটা স্বাভাবিক রাজনৈতিক রেওয়াজ"।

"সুতরাং আজকের রাজনীতির আন্দোলনের কৌশলে গণতান্ত্রিক আন্দোলনে যে আমার সাথে থাকবে তাকে আমি বাদ দেব কেন? কী কারণে বাদ দেব?" পাল্টা প্রশ্ন রাখেন বিএনপির এই নেতা।

চিঠিপত্র: সম্পাদকের উত্তর