আপনার ডিভাইস মিডিয়া প্লেব্যাক সমর্থন করে না

বিজ্ঞানের আসর

অন্ত্রনালীর ক্যান্সার প্রতিরোধে কাজে আসতে পারে অ্যাসপিরিন

চিকিৎসা বিজ্ঞানের নতুন গবেষণা বলছে, যাদের অন্ত্রনালীর ক্যান্সার বা বাওল ক্যন্সারে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা খুব বেশি, তারা যদি রোজ অ্যাসপিরিন নেন তাহলে সেই ঝুঁকি অনেকটাই কমতে পারে৻

মেডিক্যাল জার্নাল ল্যান্সেটে প্রকাশিত এক গবেষণায় বলা হয়েছে, যে সব ব্যক্তির পরিবারে বাওল ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার অনেক ঘটনা আছে – তাদের টানা দুবছর ধরে রোজ দুটো করে অ্যাসপিরিন ওষুধ খাওয়ানোর পর দেখা গেছে ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি প্রায় ষাট শতাংশ কমে গেছে৻

ছবির কপিরাইট BBC World Service
Image caption চিরচেনা সেই পুরনো ওষুধ অ্যাসপিরিন

ক্যান্সার পার্টনারস ইউ কে বহু ক্যান্সার চিকিৎসা কেন্দ্র পরিচালনা করে থাকে, সেই সংস্থার মেডিক্যাল ডিরেক্টর, প্রফেসর ক্যারল সিকোরা এই গবেষণা সম্পর্কে বিবিসিকে বলছিলেন এই গবেষণাটা খুবই কৌতূহলোদ্দীপক, কিন্তু এর একটা ক্ষতিকর দিক হল যাদের আপাতদৃষ্টিতে ক্যান্সারের ঝুঁকি ততটা নেই – তাদের ক্ষেত্রেও অ্যাসপিরিন নানা রকম পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করতে পারে৻

অথচ অ্যাসপিরিন অত্যন্ত সুপরিচিত ও সুলভ একটা ওষুধ – অনেক ডাক্তারই হৃদরোগের ঝুঁকি কমাতে বা শরীরে রক্তপ্রবাহজনিত সমস্যা মোকাবিলা করতে রোগীদের নিয়মিত অ্যাসপিরিন খেতে বলেন৻ বাওল ক্যান্সার প্রতিরোধেও অ্যাসপিরিন যদি কার্যকর হয়, সেটা নিশ্চয় দারুণ সুখবর – কিন্তু এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াই বিজ্ঞানীদের কিছুটা চিন্তিত রেখেছে৻

প্রফেসর ক্যারোল সিকোরার মতে, গবেষকদের জন্য এখন চ্যালেঞ্জটা হবে বিকল্প একটা কার্যকরী ওষুধ বের করা – যাতে এরকম কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই :

তবে যতদিন না তা মিলছে, চিরচেনা অ্যাসপিরিনই হয়তো সম্ভাব্য ক্যান্সার রোগীদের নতুন করে ভরসা জোগাতে পারে – ল্যান্সেটের নিবন্ধে দাবি করা হয়েছে তেমনটাই৻

মহাকাশে নতুন মানুষবিহীন মডিউল পাঠাল চীন

মার্কিন ও রুশ যুগের পর মহাকাশে চীন যে নতুন এক পরাক্রমশালী শক্তি হিসেবে আত্মপ্রকাশ করতে চলেছে, এ কথা এখন আর কারও অজানা নয়৻

মহাকাশে নিজস্ব একটি পূর্ণাঙ্গ স্পেস স্টেশন বানানোরও পরিকল্পনা রয়েছে চীনের, আর তারই অংশ হিসেবে গত সপ্তাহে তারা উৎক্ষেপণ করল একটি মানুষবিহীন মহাকাশযান৻

ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption চীনের মহাকাশযান উৎক্ষেপণ

চীনের উত্তর-পশ্চিমে গোবি মরুভূমির নির্জন এক উৎক্ষেপণ-কেন্দ্র থেকে একটি রকেট মহাকাশে ছিটকে গেল সেই সেনঝৌ এইট মডিউলটি নিয়ে৻

কিন্তু কোনও মহাকাশচারীকে ছাড়াই এই মডিউলটি পাঠিয়ে চীন ঠিক কী উদ্দেশ্য সাধন করতে চাইছে – আর তাদের স্পেস স্টেশন বানানোর ক্ষেত্রেই বা তা কীভাবে সাহায্য করতে পারে?

সেটাই জানতে চাওয়া হয়েছিল নাসায় কর্মরত মহাকাশ-বিজ্ঞানী ড: অমিতাভ ঘোষের কাছে, আজকের পর্বে শুনবেন এ বিষয়ে তাঁর মতামত৻

সাইবার দুনিয়ার নিরাপত্তা নিয়ে চিন্তিত বিশ্ব জুড়ে উদ্বেগ

সাইবার দুনিয়াকে কীভাবে আরও নিরাপদ ও হামলামুক্ত রাখা যায়, তা এখন সারা বিশ্ব জুড়ে বিভিন্ন সরকারের মাথাব্যথার কারণ৻

ইন্টারনেট যে সারা পৃথিবীকে বিপুল অর্থনৈতিক ও সামাজিক সুবিধা দিচ্ছে তাতে কোনও সন্দেহ নেই – কিন্তু বিভিন্ন সংগঠিত অপরাধ চক্র যেভাবে হামলা চালিয়ে এই নেটের সুরক্ষাকে প্রায়শই তছনছ করে দিচ্ছে বা লুট করে নিচ্ছে গোপন তথ্যের ভান্ডার - তাতে সরকার থেকে শিল্প সংস্থা, চিন্তিত সবাই৻

ছবির কপিরাইট Reuters
Image caption সাইবার দুনিয়ায় নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বিজ্ঞানীরা রাতদিন কাজ করছেন

সাইবারস্পেসকে কীভাবে আরও সুরক্ষিত করা যায়, তার নতুন নতুন পথ খুঁজতে প্রায় ষাটটি দেশের প্রতিনিধিদের নিয়ে গত সপ্তাহেই লন্ডনে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল বিশাল এক আন্তর্জাতিক সম্মেলন৻

সুইডেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী কার্ল বিল্ডট সেই সম্মেলনে বলেন, ইন্টারনেটে নিরাপত্তা অবশ্যই নিশ্চিত করতে হবে – কিন্তু তা যেন তার স্বাধীনতাকে বিপন্ন করে না-হয়৻

ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে লন্ডনের ওই সম্মেলনে ভাষণ দেন মার্কিন ভাইস-প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন – তিনি বলেন এর সহজ সমাধান হল আসল দুনিয়ার নিয়মকানুনগুলো সাইবার দুনিয়াতেও প্রযোজ্য হতে হবে৻

বিজ্ঞানের আসরে শুনবেন এ বিষয়ে বিশ্লেষণ৻ আজকের এই পর্বটি পরিবেশন করেছেন শুভজ্যোতি ঘোষ