আপনার ডিভাইস মিডিয়া প্লেব্যাক সমর্থন করে না

বাংলাদেশে মিউজিক ইন্ডাস্ট্রিতে স্বত্ব-ফাঁকি

ইন্টারনেটে মিউজিক পাইরেসি বা স্বত্ব ফাঁকি দিয়ে গান ডাউনলোডের ব্যবস্থা অনেক দেশেই মিউজিক ইন্ডাস্ট্রিকে বড় চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলে দিয়েছে। বাংলাদেশও এর ব্যতিক্রম নয়।

সেখানেও সঙ্গীতশিল্পী, সুরকার এবং এর সঙ্গে জড়িত ব্যবসায়ীরা বলছেন, তথ্য প্রযুক্তির প্রসারের ফলে মিউজিক পাইরেসি যেভাবে বেড়েছে, তাতে তাদের বিপুল লোকসান গুনতে হচ্ছে।

কপিরাইট আইনের যথাযথ বাস্তবায়নের মাধ্যমে এর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার জন্য তারা সরকারের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছেন।

বাংলাদেশে অবাধ তথ্য প্রবাহের এই সময়ে আরও অনেক কিছুর সাথে সাথে যে বিষয়টি মানুষের হাতের নাগালে চলে এসেছে সেটি হল ওয়েবসাইট থেকে অবাধে গান ডাউন লোড করার সুযোগ। মোবাইল ফোন, মেমোরি কার্ড আর পেন ড্রাইভের মাধ্যমে সেই গান দেশের যে কোনো জায়গায় থেকে সংগ্রহ করা যাচ্ছে খুব সহজে।

এর ফলে শিল্পী, অডিও ব্যবসায়ীদের বিশাল অঙ্কের লোকসান গুণতে হচ্ছে।

বাংলাদেশে মৌলিক কোনও প্রকাশিত শিল্প কর্মের ওপর শিল্পীর একক অধিকার নিশ্চিত করতে কপিরাইট আইন ২০০০ প্রণয়ন করা হয়। । এই আইনের বলে শিল্পী তার শিল্পের যে কোনও ধরনের চুরি, রূপ পরিবর্তন, পুনঃমুদ্রণ, পূর্ণ প্রকাশ, রূপান্তর বা নকল ঠেকাতে পারবেন।

কিন্তু মিউজিক ইন্ডাস্ট্রিসরে সঙ্গে জড়িতরা বলছেন আইন থাকলেও তা বাস্তবায়িত হচ্ছে না, ফলে যেমন শিল্পীরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন তেমনি এই শিল্পের সঙ্গে জড়িত বৈধ ব্যবসায়ীরা এখন অনেকেই জীবিকা নির্বাহের তাগিদে অন্য ব্যবসায়ের দিকে ঝুঁকে পড়ছেন।

প্রতিবেদনটি তৈরি করেছেন বিবিসি বাংলার ফারহানা পারভীন।