biman basu
আপনার ডিভাইস মিডিয়া প্লেব্যাক সমর্থন করে না

এ সপ্তাহের সাক্ষাৎকার

বিমান বসু কিছুদিন আগেও ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি মার্কসবাদীর পশ্চিমবঙ্গের সম্পাদক ছিলেন, আর এখনও তিনি ওই দলের পলিটব্যুরোর সদস্য।

আদতে পূর্ববঙ্গের বিক্রমপুরের বাসিন্দা বসু পরিবার, তবে তিনি মা আর দাদাদের সঙ্গে কলকাতাতেই থাকতেন।

খুব ছোট বয়সেই কমিউনিস্ট পার্টির প্রতি আকৃষ্ট হয়েছিলেন। ১৮ বছর না পেরনোয় প্রথমে তাঁকে পার্টির সদস্যপদ দেওয়া হয় নি।

বাড়িতে কংগ্রেসী রাজনীতির প্রভাব ছিল, তাই প্রথমদিকে পরিবারের কেউ মি. বসুর রাজনীতি করা নিয়ে কিছু জানত না।

একবার কোনও মিছিলে অংশ নিতে দেখে ফেলায় দাদাদের হাতে মার খেয়েছিলেন খুব।

ছাত্র রাজনীতি করতে করতেই সিপিআইএমের ছাত্র সংগঠনের সর্বভারতীয় সম্পাদক হন আর তখনই বাড়ি ছেড়ে চলে যান পার্টির শেল্টারে।

আত্মগোপন করে থাকার সময়ে বিচিত্র অভিজ্ঞতা মি. বসুর। ছোটবেলা থেকে ইউরোপীয় কায়দার টয়লেট ব্যবহার করতেন তিনি, তবে এমন অনেক জায়গায় থাকতে হয়েছে, যেখানে ঠিকমতো টয়লেটও নেই; শুতে হয়েছে নোংরা বিছানায়।

১৯৫৮ সাল থেকে দলের সদস্য, কিন্তু এত বছরে একবারও নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন নি তিনি। কারণ, “সংসদীয় রাজনীতিটা ঠিক আমার জন্য না, আমি গ্রামে, মাঠে-ঘাটেই বেশি স্বচ্ছন্দ।

বাড়ি ছেড়ে আত্মগোপন করে থাকার সময়েই একদিন পায়েস খেতে ইচ্ছে হয়েছিল। নিজেই চাল, দুধ আর চিনি কিনে এনে প্রথম রান্না। তারপর রান্না করা আর পার্টির সহকর্মী, বন্ধুদের খাওয়ানো বিমান বসুর একটা বড় শখ। সবথেকে ভালবাসেন মাশরুম রান্না করতে।