ভারতীয়-পাকিস্তানীদের নিয়ে বর্ণবাদী ইঙ্গিতের জন্য এয়ার চায়নার ক্ষমা প্রার্থনা

এয়ার চায়নার ইনফ্লাইট ম্যাগাজিন

ছবির উৎস, Haze Fan, CNBC

ছবির ক্যাপশান,

এয়ার চায়নার ইনফ্লাইট ম্যাগাজিনে প্রকাশিত ফিচারে এই মন্তব্য করা হয়েছিল

এয়ার চায়না তাদের ইনফ্লাইট ম্যাগাজিনে লন্ডনের ভারতীয়-পাকিস্তানি-কৃষ্ণাঙ্গ অধ্যূষিত এলাকা নিয়ে এক বর্ণবাদী ইঙ্গিতের পর তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েছে।

এয়ার চায়নার ইনফ্লাইট ম্যাগাজিনে প্রকাশিত এত ফিচারে লন্ডনকে মোটামুটি নিরাপদ নগরী বলে বর্ণনা করা হলেও লন্ডনের ভারতীয়-পাকিস্তানী-কৃষ্ণাঙ্গ অধ্যূষিত এলাকায় ভ্রমণের সময় পর্যটকদের সতর্ক থাকার পরামর্শ দেয়া হয়।

তীব্র সমালোচনার মুখে এয়ার চায়না এ নিয়ে এখন ক্ষমা চেয়েছে এবং এই ম্যাগাজিনটি প্রত্যাহার করে নিয়েছে।

এই ম্যাগাজিনের প্রকাশক 'এয়ার চায়না মিডিয়া' বলেছে, যে পাঠকরা এবং যাত্রীরা এই ফিচার নিয়ে অস্বস্তি বোধ করেছেন তাদের কাছে তারা ক্ষমাপ্রার্থী।

আরও দেখুন:

তারা আরও বলেছে, ফিচারটিতে প্রকাশিত মতামতের সঙ্গে এয়ার চায়না একমত নয় এবং সম্পাদকদের ভুলে এটি প্রকাশিত হয়।

ছবির উৎস, Haze Fan, CNBC

ছবির ক্যাপশান,

এয়ার চায়না প্রতি সপ্তাহে বেইজিং থেকে লন্ডনের হিথ্রো বিমান বন্দরে দুটি ফ্লাইট চালায়

এয়ার চায়নার ম্যাগাজিনে এই লেখাটির প্রতি প্রথম দৃষ্টি আকর্ষণ করেন মার্কিন সংবাদ চ্যানেল সিএনবিসির একজন প্রযোজক হেজ ফেন।

এতে লেখা হয়েছিল, "লন্ডন নগরী ভ্রমণের জন্য মোটামুটি নিরাপদ। তবে ভারতীয়, পাকিস্তানী এবং কৃষ্ণাঙ্গ অধ্যূষিত এলাকাগুলিতে যাওয়ার সময় সতর্কতা অবলম্বন করা প্রয়োজন। পর্যটকদের রাতে এরকম জায়গায় একা না যাওয়া এবং মহিলাদের সাথে একজন সঙ্গী রাখার পরামর্শ দেব আমরা।

লন্ডনের একজন এমপি এয়ার চায়নার ম্যাগাজিনে প্রকাশিত এই লেখার বিরুদ্ধে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন।

এমপি বীরেন্দ্র শর্মা ইতোমধ্যে লন্ডনে চীনা রাষ্ট্রদূতের কাছে চিঠি লিখে এ নিয়ে ক্ষমা চাইতে বলেছেন।