আলেপ্পোর প্রচন্ড বোমাবর্ষণ, একটি গুরুত্বপূর্ণ বিদ্রোহী ঘাঁটি সরকারি বাহিনীর দখলে

সিরিয়া আলেপ্পো

ছবির উৎস, Getty Images

ছবির ক্যাপশান,

আলেপ্পোতে ফ্রি সিরিয়ান আর্মির একজন যোদ্ধা

সিরিয়ায় আলেপ্পো শহরের বিদ্রোহীদের দখলে থাকা এলাকাগুলোয় সরকারি বাহিনী অব্যাহত এবং ব্যাপক আকারে বিমান হামলা চালিয়ে যাচ্ছে। এর মধ্যেই বিদ্রোহীদের একটি গুরুত্বপূর্ণ ঘাঁটি দখল করে নিয়েছে সরকারি বাহিনী।

আলেপ্পোর উত্তরে হানদারাত নামে এই বিদ্রোহী ফাঁড়িটি একটি কৌশলগতভাবে গুরুত্বপূর্ণ উঁচু জায়গায় অবস্থিত - যেখান থেকে উত্তর দিক থেকে শহরে ঢোকার রাস্তাগুলো দেখা যায়।

রুশ-সমর্থিত সিরিয়ার সামরিক বাহিনী বলছে, আলেপ্পোতে স্থল অভিযানের প্রস্তুতি হিসেবেই গত কয়েকদিনের বিমান হামলা চলছে।

বিদ্রোহীরা বলেছে, বেশিরভাগ বিমান হামলাই চালাচ্ছে রাশিয়ার জঙ্গী বিমানগুলো। গত কয়েকদিন ধরে আলেপ্পোয় বিমান থেকে বোমা ফেলার পাশাপাশি কামান থেকে প্রচন্ড গোলাবর্ষণ করা হচ্ছে।

ত্রাণকর্মীরা এসব বিমান হামলাকে নির্বিচার বলে আখ্যায়িত করে বলছেন, এর ফলে ভেঙে পড়া ভবনগুলোর নিচে শত শত লোক চাপা পড়ে আছেন।

ছবির উৎস, Getty Images

ছবির ক্যাপশান,

আলেপ্পোয় বোমা হামলায় ধ্বংসপ্রাপ্ত ভবন

বিদ্রোহীদের দখলে থাকা পূর্ব আলেপ্পোর অধিবাসীরা জানাচ্ছেন, যুদ্ধ শুরু হবার পর থেকে যত বোমা হামলা হয়েছে - তার মধ্যে এটিই সবচেয়ে ব্যাপক।

একটি ফরাসী বার্তা সংস্থা জানাচ্ছে, শহরটির বেশ কিছু এলাকায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। কিছু কিছু রাস্তা প্রায় সম্পূর্ণ ধ্বংস হয়ে গেছে।

বিবিসির এ্যালান জনস্টন জানাচ্ছেন, সেখানে যতটুকুই চিকিৎসা সুবিধা আছে - তা এখন হতাহত বিপুল পরিমাণ লোকের চাপ সামলাতে পারছে না।

আলেপ্পো শহরের প্রায় ২০ লাখ লোক এখন ব্যাপক পানির সংকটে আক্রান্ত এবং ত্রাণ কর্মীরা বলছেন, সিরিয়ায় যুদ্ধ শুরু হবার পর এটিই হচ্ছে সবচেয়ে বড় আকারের মানবিক সংকটজনক পরিস্থিতি।